চমক জাগিয়ে নাইমের টেস্ট অভিষেক, ব্যাটিং কোচ বলছেন উত্তর জানে নির্বাচক প্যানেল

বাংলাদেশের ওপেনিং জুটি নয়, প্রিন্সের ভাবনায় স্মার্ট নিউজিল্যান্ড
Vinkmag ad

পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে হুট করে ওপেনার হিসেবে নাইম শেখের অন্তর্ভূক্তি বেশ সমালোচনার জন্ম দেয়। প্রায় দুই বছর আগে সর্বশেষ প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলা নাইমের এবার অভিষেকও হয়ে গেলো নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্ট দিয়ে। যথারীতি ব্যর্থ হয়েছে, বিশেষ করে আউটের ধরণে পুরোনো সমালোচনা আবারও সামনে এলো। ব্যাটিং পরামর্শক অ্যাশওয়েল প্রিন্স বলছেন এই ইস্যুতে উত্তর দিতে পারবে কেবল নির্বাচক প্যানেল।

নাইম শেখ মূলত সাদা বলের ক্রিকেটে নিয়মিত খেলছেন, টি-টোয়েন্টিতে জাতীয় দলে হয়ে পড়েছেন অবিচ্ছেদ্য অংশও। কিন্তু টেস্ট দলে ওপেনার সংকটে পাকিস্তান সিরিজে তাকেই হুট করে ডেকে নেয় নির্বাচকরা। যেখানে নাইম নিজেই বিভিন্ন সাক্ষাৎকারে জানান তিনি লাল বলের জন্য এখনই প্রস্তুত নন।

বিশেষ করে তার প্রথম শ্রেণির পরিসংখ্যানের দিকে তাকালে সেটি পরিষ্কার হয়ে যাবে আরও। ২০১৮ সালে অভিষেকের পর ৬ ম্যাচে সাকূল্যে রান করেছেন ১৮৩, গড় ১৬.৬৩। যেখানে সর্বশেষ প্রথম শ্রেণির ম্যাচ ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে। এমন একজনকেই পাকিস্তান সিরিজে ডেকে সমালোচিত হয়েছে নির্বাচক প্যানেল।

তাকে মাহমুদুল হাসান জয় ও সাদমান ইসলামের সাথে বিকল্প ওপেনার হিসেবে নিয়ে যাওয়া হয় নিউজিল্যান্ডেও। সাকিব আল হাসানের ছুটিতে সুযোগ মিলে সর্বশেষ এনসিএলে ৬০ এর বেশি গড়ে ৬০৩ রান করা ফজলে রাব্বিকেও।

মাউন্ট মঙ্গানুই টেস্টে জয় ওপেন করতে নেমে খেলেন ৭৮ রানের কার্যকরী ইনিংস। তবে আঙুলের চোটে ম্যাচের সাথে সিরিজ থেকেও ছিটকে যান। ফলে ক্রাইস্টচার্চ টেস্টে বিকল্প হিসেবে ফজলে রাব্বিকেই এগিয়ে রেখেছিলো অনেকেই। যেখানে সদমানের সাথে অনায়াসেই ওপেন করতে পারতেন নাজমুল হোসেন শান্ত।

তবে সেসব হিসেবে না গিয়ে দেশের ১০০তম টেস্ট ক্রিকেটার হিসেবে অভিষেক করানো হয় লাল বলের সাথে যার ২ বছর নেই কোনো সম্পর্ক সেই নাইম শেখকে। কিউইদের ৬ উইকেটে ৫২১ রানের জবাবে প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ১২৬ রানেই গুটিয়ে গেছে বাংলাদেশ। টিম সাউদির অফ স্টাম্পের বাইরের বল টেনে এনে বোল্ড হন নাইম, ফিরেছেন খালি হাতে।

দিন শেষে সংবাদ সম্মেলনে ব্যাটিং কোচ অ্যাশওয়েল প্রিন্সকে সম্মুখীন হতে হয়েছে নাইমের একাদশে জায়গা নিয়ে প্রশ্নের। তবে দায় নিতে নারাজ প্রিন্স, এই প্রশ্নের উত্তর পাওয়া যাবে নির্বাচকদের কাছে এমনটাই জানান।

তিনি বলেন, ‘আমি নির্বাচক প্যানেলের অংশ না, এটা মূল কথা। আপনাকে এই প্রশ্নের উত্তর পেতে হলে নির্বাচক প্যানেলের কাছে যেতে হবে। অবশ্যই নাইম একজন ওপেনার, সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে নিয়মিত খেলে, যেখানে সে ভালো করছেও।’

কিউইদের রানের পাহাড়ের জবাব দিতে নেমে ২৭ রানেই ৫ উইকেট হারিয়ে বসে বাংলাদেশ। অথচ ঐতিহাসিক জয় তুলে নেওয়া মাউন্ট মঙ্গানুই টেস্টে এই ব্যাটিং লাইনআপই প্রায় ১৮০ ওভার ব্যাটিং করে কিউইদের বিপক্ষে।

টাইগার টপ অর্ডারের আজকের ব্যাটিং নিয়ে হতাশ প্রিন্স বলেন, ‘অবশ্যই আমরা হতাশ। গত সপ্তাহে আমরা দুর্দান্ত ইফোর্ট দিয়েছিলাম। আমরা কোয়ালিটি বোলিং আক্রমণের বিরুদ্ধে ১৭৩ (মূলত ১৭৬.২) ওভার খেলেছিলাম। আমার মনে হয় এটা স্বীকার করে নেওয়া ঠিক হবে যে আমরা আশাই করছিলাম নিউজিল্যান্ড খেলায় ফিরতে মরিয়া হওয়ায় সর্বশক্তি নিয়ে মাঠে নামবে।’

‘আপনি যদি দুটি ম্যাচের তুলনা করেন তবে আপনি দেখতে পাবেন যে, আপনি এক নম্বর দল হলেও আপনার ফিরে আসার পথে লড়াই করা সত্যিই কঠিন। এই ম্যাচে, তাদের শুরুটা হয়েছিল দুর্দান্ত। বল টু বল তারা খেলেছে। তারা আমাদের জন্য ম্যাচটা কঠিন করে তুলেছে। আমাদের আরও একটা দিন লড়তে হবে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

বোল্টের ‘৫’ ইয়াসিরের ‘৫৫’, কিউইদের পাহাড়সম লিড

Read Next

লজ্জা থেকে বাঁচানো সোহান-রাব্বিকে প্রশংসায় ভাসালেন অ্যাশওয়েল প্রিন্স

Total
6
Share