‘পঞ্চপাণ্ডব মিডিয়ার ‍সৃষ্টি’, আবারও বললেন সাকিব

১২ হাজারি ক্লাবের সদস্য হলেন সাকিব

নতুন বর্ষ এসেছে আশার স্বপ্ন নিয়ে, এসেছে মুক্তির শক্তি হয়ে। বিদেশের মাটিতে বাংলাদেশ দলও পেয়েছে বড় এক সাফল্য। সাকিব আল হাসানের বিশ্বাস বছরটা যেভাবে শুরু হল ধারাবাহিক থাকতে পারলে আরও ভালো কিছু হবে। পঞ্চপাণ্ডব মিডিয়ার ‍সৃষ্টি; আবারও বললেন সাকিব।

নিউজিল্যান্ডকে তাঁদের মাঠে প্রথমবারের মতো হারানো সাকিবের চোখে বড় এক অর্জন। সামনে আরও বড় কিছু ফলাফল আসবে, অপ্পোর পণ্যদূত হয়ে সেখানে গণমাধ্যমকে আত্মবিশ্বাসী সাকিব বলেন,

‘বছরের শুরুটা আসলে যেভাবে হল সেটা অবিশ্বাস্য। খুবই আনন্দিত। দলের ক্রিকেটার, কোচিং স্টাফ সবাইকে ক্রেডিট দিতে হয়। যেহেতু আমাদের আগের বছরটা ভালো যায়নি, তাই এই বছরটি আমাদের জন্য একটি বড় চ্যালেঞ্জ। সো শুরুটা যেহেতু আমাদের ভালো হয়েছে তাই আমরা আশাবাদী এই বছরটায় আমরা ভালো কিছু করতে পারবো। সত্যি কথা বলতে এত ভালো ক্রিকেট বাংলাদেশ খুব কম সময়ই খেলে থাকে। প্রতিটা ক্রিকেটার, কোচিং স্টাফকে ক্রেডিটটা দিতে হয়, কারণ এতো প্রেশারের পরও কঠিন একটা কন্ডিশনে গিয়ে এতো ভালো ক্রিকেট খেলতে পেরেছে।’

পঞ্চপাণ্ডব মিডিয়ার ‍সৃষ্টি, আবারও সেই কথা সাকিবের কণ্ঠে,

‘এটা অবশ্যই ভালো দিক যে, আপনারা মিডিয়া যেভাবে মনে করেন যে আমরা চার পাঁচজন ছাড়া ভালো ক্রিকেটার নেই, সেটা ভুল প্রমাণিত হল আমার ধারণা। এবং তাদের যদি এভাবে আরও রেসপন্সিবলিটি দেয়া যায় তাহলে আমার মনে হয় ওরা আরও ভালো করবে।’

‘দেখেন গ্রিন উইকেট থাকলেও আমাদের জন্য যেই এডভান্টেজটা থাকবে সেটা হল আমাদের তিনটা পেইস বোলার খুবই ভালো বল করছে। স্পিনাররাও অসাধারণ বোলিং করেছে, কিন্তু আমাদের পেইসাররা বেশ ভালো করেছে। ওদের (নিউজিল্যান্ডকে) এটা মাথায় রাখতে হবে ওরা আমাদের ফেইস করবে। এধরণের জয়ের পর যেটা হয়, আমাদের কনফিডেন্সটা অনেক বেড়ে গেছে। এই কনফিডেন্সটা যেন কাজে লাগে। নট নেসেসারি যে কাজে লাগাতেই হবে, তবে কাজে লাগলে ভালো হবে। নতুন একটা ম্যাচ, প্রথম দিনটা খুব গুরুত্বপূর্ণ হবে, টস জেতাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ হবে। আমার মনে হয় টস জেতাটা সবচেয়ে বড় ফ্যাক্টর হয়ে দাঁড়াবে। কেননা নিউজিল্যান্ডের উইকেট দ্বিতীয় ও তৃতীয় দিনে উইকেটটা খুবই ভালো হয়ে যায়। তাই এক্ষেত্রে টসটা জিতে যদি ফিল্ডিং করতে পারে, তাহলে সবথেকে ভালো হবে দলের জন্য। তবে আমার মনে হয় প্রথম টেস্ট থেকে যেই আত্মবিশ্বাস দল পেয়েছে সেটা কাজে লাগাতে পারলে ভালো হবে।’

ব্যক্তিগত লক্ষ্য অর্জন থেকে দলীয়ভাবে অর্জনটাকেই বড় করে দেখেন বিশ্বসেরা সাকিব,

‘আমার কখনো পার্সোনাল অ্যাচিভমেন্ট নিয়ে টার্গেট থাকে না।’

তারুণ্য নির্ভর বাংলাদেশ দল দ্বিতীয় সংস্করণের টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ যেভাবে শুরু করল; তাতে সাকিবের বিশ্বাস ভালো কিছু করে দেখানো যাবে এবার,

‘দুই একটা টেস্ট ম্যাচ দিয়ে আসলে সবকিছু চেঞ্জ হয়ে যায়না। টেস্ট ম্যাচ অনেক কিছু চেঞ্জ করার সম্ভাবনা তৈরি হল। আমার বিশ্বাস এই সম্ভাবনাটা যদি আমরা ধরে রাখতে পারি তাহলে এই টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে ভালো কিছু করে দেখাতে পারবো।’

‘আমি থাকা না থাকা আমার কাছে বড় বিষয় না। আমার কাছে বড় বিষয় যেই দলটা গিয়েছে তারা কেমন রেজাল্ট করবে। আমি খুবই খুশি প্রতিটা খেলোয়াড় ও কোচিং স্টাফের ওপর।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

মাশরাফির মতে পৃথিবীর সবই চ্যালেঞ্জিং

Read Next

সিরিজ জেতার এমন সুযোগ হারাতে চায় না বাংলাদেশ

Total
1
Share