বাংলাদেশের ইতিহাস গড়া জয়, ভাঙল যত রেকর্ড

featured photo updated v 2
Vinkmag ad

২০১১ সালের জানুয়ারি, ঘরের মাঠে এশিয়ার কোন দলের বিপক্ষে নিউজিল্যান্ড হেরেছিল শেষ। পাকিস্তানের বিপক্ষে ঐ হারের পর কোন এশিয়ার দলই তাসমান পাড়ে এসে জয়ের দেখা পায়নি। সেই ধারা ভাঙল মুমিনুল হকের নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ দল। মাউন্ট মঙ্গানুইয়ে নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে বেশকিছু রেকর্ডে নাম লেখাল টাইগাররা।

এশিয়ার দলগুলোর বিপক্ষে নিউজিল্যান্ড সাদা পোশাকে সবসময়ই অপ্রতিরোধ্য। ২০১১ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে ঐ হারের পর তো সেই তকমাটা বাড়তি পাত্তা পাচ্ছিল। এই সময়ে ঘরের মাঠে ১৯ টি টেস্টের কোনটিতে হারেনি নিউজিল্যান্ড। ৬ টি জিতেছে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে, ৫ টি পাকিস্তানের বিপক্ষে এবং ভারত ও বাংলাদেশের বিপক্ষে ৪ টি করে। সেই জয়ের ধারায় যতিচিহ্ন দিল বাংলাদেশ। 

মাউন্ট মঙ্গানুইয়ে বাংলাদেশের এই জয় স্পেশাল আরও একটি কারণে। নিউজিল্যান্ড যে আইসিসি ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়ন দল। তাদেরকে রেকর্ড গড়ে তাদের মাটিতে হারিয়ে দেবার গল্প দীর্ঘদিন মনে রাখবে টাইগার ভক্ত-সমর্থকরা।

বাংলাদেশের এই জয়-

  • নিউজিল্যান্ডের মাটিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে যেকোন ফরম্যাটে প্রথম কোন জয়।
  • নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্টে ১৬ বারের দেখায় প্রথম জয়।
  • দেশের বাইরে র‍্যাংকিংয়ের শীর্ষ ৫ দলের বিপক্ষে প্রথম জয়।
  • ৬১ তম অ্যাওয়ে টেস্টে ৬ষ্ঠ জয়।
  • সবমিলে ১২৮ তম টেস্টে ১৬ তম জয়।

বাংলাদেশের এই জয়ে ভাঙল-

  • ২০১৭ সাল থেকে ঘরের মাঠে টানা ৮ সিরিজ জয়ের রেকর্ড ভাঙল নিউজিল্যান্ডের।
  • ঘরের মাঠে টানা ১৭ ম্যাচের জয়ের ধারায় ছেদ পড়ল নিউজিল্যান্ডের।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

নিউজিল্যান্ড ১ম ইনিংসে ৩২৮/১০ (১০৮.১), ল্যাথাম ১, ইয়াং ৫২, কনওয়ে ১২২, টেইলর ৩১, নিকোলস ৭৫, ব্লান্ডেল ১১, রাচিন ৪, জেমিসন ৬, সাউদি ৬, ওয়েগনার ০, বোল্ট ৯*; শরিফুল ২৬-৭-৬৯-৩, এবাদত ১৮-৩-৭৫-১, মিরাজ ৩২-৯-৮৬-৩, মুমিনুল ৪.১-০-৬-২

বাংলাদেশ ১ম ইনিংসে ৪৫৮/১০ (১৭৬.২), সাদমান ২২, জয় ৭৮, শান্ত ৬৪, মুমিনুল ৮৮, মুশফিক ১২, লিটন ৮৬, রাব্বি ২৬, মিরাজ ৪৭, তাসকিন ৫, শরিফুল ৭, এবাদত ০*; সাউদি ৩৮-৪-১১৪-২, বোল্ট ৩৫.২-১১-৮৫-৪, জেমিসন ৩৫-১১-৭৮-১, ওয়াগনার ৪০-৯-১০১-৩

নিউজিল্যান্ড ২য় ইনিংসে ১৬৯/১০ (৭৩.৪), ল্যাথাম ১৪, ইয়াং ৬৯, কনওয়ে ১৩, টেইলর ৪০, নিকোলস ০, ব্লান্ডেল ০, রবীন্দ্র ১৬, জেমিসন ০, সাউদি ০, ওয়াগনার ০*, বোল্ট ৮; তাসকিন ১৪-৩-৩৬-৩, এবাদত ২১-৬-৪৬-৬, মিরাজ ২২.৪-৫-৪৩-১

বাংলাদেশ ২য় ইনিংসে ৪২/২ (১৬.৫), সাদমান ৩, শান্ত ১৭, মুমিনুল ১৩*, মুশফিক ৫*; সাউদি ৫-২-২১-১, জেমিসন ৩.৫-১-১২-১

ফলাফলঃ বাংলাদেশ ৮ উইকেটে জয়ী

ম্যাচসেরাঃ এবাদত হোসেন (বাংলাদেশ)।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

এবাদত-তাসকিন জুটিতে দিশেহারা নিউজিল্যান্ড

Read Next

পরবর্তী প্রজন্মের জন্য উদাহরণ তৈরি করতে চেয়েছেন এবাদতরা

Total
1
Share