আশরাফুলকে নান্নুর ব্যক্তিগত আক্রমণ, সভাপতির শরণাপন্ন হবে ক্রিকেট অপারেশন

আশরাফুলকে নান্নুর ব্যক্তিগত আক্রমণ, সভাপতির শরণাপন্ন হবে ক্রিকেট অপারেশন

একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলের লাইভে এসে জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আশরাফুলকে দেশদ্রোহী হিসেবে আখ্যা দেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু। তার এই বিতর্কিত মন্তব্যকে গ্রহণযোগ্য বলছেন না বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান জালাল ইউনুস। এমনকি এই ইস্যু নিয়ে বোর্ড সভাপতির সাথে আলাপ করা হবে বলেও জানান।

সাম্প্রতিক সময়ে জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু নানাভাবে বিতর্কিত। যার সবটুকুই অবশ্য দল নির্বাচন নিয়েই। কিন্তু এবার সমালোচনার তোপে পড়েছেন প্রধান নির্বাচকের মতো একটি গুরুত্বপূর্ন পদে থেকে একজন বর্তমান খেলোয়াড়কে প্রকাশ্যে দেশদ্রোহী বলে।

আজ (৩ জানুয়ারি) মিরপুরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে জালাল ইউনুস বলেন, ‘সে (আশরাফুল) একজন বর্তমান খেলোয়াড়, আবার সাবেক অধিনায়কও অবশ্যই। যেহেতু সে এখনো আমাদের অধীনে খেলছে সেহেতু এভাবে ব্যক্তিগত আক্রমণ করা ঠিক হয়নি। আমি শুনেছি এটা যেটা হয়েছে, এটা নিয়ে আমাদের আলাপও হয়েছে। দেখা যাক, এটা নিয়ে আমরা বোর্ড সভাপতির সাথে আলাপ করবো।’

‘কারও ব্যাপারেই এভাবে আক্রমণ … আপনি একটা অবস্থানে আছেন বোর্ডের। ঐ জায়গা থেকে এটা না করাটাই ভালো হতো। যেহেতু নির্বাচক প্যানেল আমাদের ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের আওতায়, আমরা এটা নিয়ে আজকেও আলাপ করেছি। এখন বোর্ড সভাপতির সাথেও কথা বলবো।’

নান্নু নির্বাচক প্যানেলের সদস্য ও প্রধান নির্বাচক মিলিয়ে এক দশক কাজ করে ফেলেছেন বিসিবিতে। টানা এতো লম্বা সময় নির্বাচক প্যানেলে দেখা যায়না অন্যান্য দেশে। যদিও কিছু ব্যতিক্রম অবশ্য আছে।

সম্প্রতি বেসরকারি টিভি চ্যানেল যমুনাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সামগ্রিকভাবে নির্বাচকদের মূল্যায়ণ করতে গিয়ে আশরাফুল বলেন নির্বাচকদের মেয়াদ হওয়া উচিৎ একটা নির্দিষ্ট সময়ের জন্য। তার ঐ সাক্ষাৎকারে অবশ্য প্রধান নির্বাচক কিংবা নির্বাচক প্যানেলের আবকি দুই সদস্যের কারও নাম সরাসরি উল্লেখ ছিলো না। এমনকি কোনো ব্যক্তিগত আক্রমণও দেখা যায়নি।

তিনি বলেন, ‘একই ব্যক্তি একটি কাজ এগারো বছর ধরে করতে থাকলে আপনি ওই জায়গায় আটকে থাকবেন। নির্বাচক প্যানেল এমন হওয়া উচিত, যারাই হবেন তারা ৩-৪ বছরের জন্য দায়িত্ব পাবেন, একটা বিশ্বকাপ থেকে আরেকটা বিশ্বকাপ পর্যন্ত। এভাবে হলে আপনি ভিন্ন কিছু পাবেন, ভিন্ন কিছু ভাবনায় আসবে।’

পরে যমুনা টিভিতেই লাইভ অনুষ্ঠানে আশরাফুলের মতামত নিয়ে জানতে চাইলে আক্রমণাত্মক হয়ে পড়েন নান্নু। যেখানে ব্যক্তিগতভাবে আশরাফুলকে ফিক্সার, দেশদ্রোহী শব্দ দিয়ে বিশেষায়িত করেন।

নান্নু বলেন, ‘অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাচক কত বছর ধরে কাজ করেছে সেটার ধারণা আশরাফুলের নাই। অস্ট্রেলিয়া কি ক্রিকেটে পিছিয়ে গিয়েছে। আমাদের সকলেরই জানা উচিত, প্রায় ৯-১২ বছর ধরে কাজ করেছে অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাচক। সেখানে ও (আশরাফুল) বলছে বিশ্বকাপ থেকে বিশ্বকাপ! কোন বিশ্বকাপ? বাংলাদেশ কি শুধু ওয়ানডে বিশ্বকাপ খেলবে, শুধু টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলবে, শুধু টেস্ট ক্রিকেট খেলবে?’

‘তাহলে প্ল্যানটা কি ওয়ানডের জন্য একটা, টেস্টের জন্য একটা, টি-টোয়েন্টির এর জন্য একটা নির্বাচক লাগবে? ওর তো কোন গোছানো কথা নাই! যে সমস্ত ক্রিকেটার দেশদ্রোহী হয়ে, ম্যাচ ফিক্সিং করে নিষিদ্ধ হয়, তাদের থেকে তো ভালো কোন পরামর্শ আশা করা যায় না’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

খালেদ মাহমুদের চোখে টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের অন্যতম সেরা দিন

Read Next

লিটনের সুন্দর খেলার ভক্ত খালেদ মাহমুদ সুজন

Total
374
Share