জয়-শান্তর ব্যাটে ওয়াগনারের কণ্ঠে বেমানান সুর

জয়-শান্তর ব্যাটে ওয়াগনারের কণ্ঠে বেমানান সুর
Vinkmag ad

নিউজিল্যান্ডের মাটিতে বিশ্বের বড় বড় দলগুলোও খাবি খায়, বাংলাদেশ তো সেখানে নিয়মিত বিধ্বস্ত হয়। অথচ এবার মাউন্ট মঙ্গানুই টেস্টের দ্বিতীয় দিন শেষে কিউই পেসার নেইল ওয়াগনার বলছেন দিনটি তাদের ছিলো না। এই বাঁহাতি পুরো কৃতিত্ব বাংলাদেশকে দিতে বাধ্য হন। এমনকি ব্যর্থতার পেছনে কোয়ারেন্টাইন, আইসলেশনের অজুহাতও সামনে আনলেন।

আগেরদিন নিজেদের প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ৫ উইকেটে ২৫৮ রান তুলে দিন শেষ করেছিলো নিউজিল্যান্ড। আজ বাকি ৫ উইকেটে যোগ করতে পারেনি ৭০ রানের বেশি। লাঞ্চের আগেই কিউইদের ৫ উইকেট তুলে নেওয়া, এরপর সারাদিনে ২ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশের স্কোরবোর্ডে ১৭৫ রান।

মাহমুদুল হাসান জয়ের অপরাজিত ৭০, নাজমুল হোসেন শান্তর ব্যাটে ৬৪। দুজনে জুটি গড়েন ১০৪ রানের। সফরকারী দল হিসেবে এমন দিন যে খুব কমই পাওয়া যায় নিউজিল্যান্ডে।

দিন শেষে কিউইদের হয়ে ২ টি উইকেটই নেন ওয়াগনার। এই বাঁহাতি পেসার ১৬ ওভারে ৫ মেইডেনসন ২৭ রানে নিয়েছেন ২ উইকেট।

বাংলাদেশকে কৃতিত্ব দিয়ে ওয়াগনার সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘আজ দিনটি আমাদের পক্ষে যায়নি। আমরা সবাই আপ্রাণ চেষ্টা করেছি কিন্তু শেষ পর্যন্ত সফলতা আসেনি। পুরো কৃতিত্বই দিতে হবে বাংলাদেশ দলকে। তারা খুব ভালো খেলেছে।’

‘দেখুন, বাংলাদেশ আমাদের ভালোই ভুগিয়েছে। আমাদের এখানের কন্ডিশন থেকে সাধারণত পেসাররা সুবিধা পেয়ে থাকে, এমনকি উইকেটে সবুজ ঘাস থাকে। কিন্তু আজকে এখানে অনেক বাতাস ছিল। পাশাপাশি উইকেট স্পিনও করছিল তবে শেষ বিকেলে পেসাররা সুবিধা পেয়েছে। উইকেট উপর-নিচ হতে পারে। যেমনটা ইংল্যান্ড-পাকিস্তানের বিপক্ষে দেখেছেন।’

‘আমার কাছে মনে হয় তারা খুব ভালো ব্যাটিং করেছে, অনেক ধৈর্য ধরে ব্যাটিং করেছে। যখনি আমরা উইকেটের খোঁজে বোলিং করেছি, চাপে ফেলার চেষ্টা করেছি সেই পরিকল্পনাগুলো তারা ভেস্তে দিয়েছে। উল্টো তারা আমাদের চাপে রেখেছে, আরও বেশি ভালো বল করতে বাধ্য করেছে।’

নিউজিল্যান্ড এই ম্যাচের আগে সর্বশেষ টেস্ট খেলছে এক মাসেরও (৩ দিসেম্বর ২০২১, মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়াম) কম সময় আগে। তবে এই সময়কেই নিজেদের টেস্ট মেজাজে খাপ খাওয়ানোর জন্য কম সময় বলছেন ওয়াগনার।

তিনি বলেন, ‘ভারতে টেস্ট খেলে আসার পর আমরা লম্বা সময় শুধু সাদা বলেই খেলেছি, লম্বা সময় পর টেস্ট খেলছি ঘরের মাঠে। এছাড়া আইসোলেশনে থাকতে হয়েছে সবাইকে। উইকেটের ধরণও বদলেছে। আমরা আজকে বসবো কালকে কিভাবে বোলিং করব, প্রতিপক্ষকে চাপে ফেলব। আমাদেরকেও ধৈর্য ধরতে হবে।’

এখনো বাংলাদেশ পিছিয়ে আছে ১৫৩ রানে, ম্যাচে ফিরতে কিউইদের প্রয়োজন কেবল তৃতীয় দিন শুরুতে দাপুটে বোলিং করা। কিউই পেসার ওয়াগনার সে ব্যাপারে বেশ আশাবাদীও।

তিনি যোগ করেন, ‘আগামীকাল আমাদের প্রথম লক্ষ্য থাকবে জুটি বেধে বোলিং করা, তাদেরকে চাপে ফেলা এবং দ্রুত উইকেট তুলে নেয়া। এখনও খেলার অনেক অংশ বাকি। উইকেটে ফাটল ধরবে, স্পিনাররাও সুবিধা পাবে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

জয়কে দেখে নতুন মনে হয়নি মিরাজের

Read Next

অবসরের পর বিস্ফোরক হরভজন, উগরে দিলেন ক্ষোভ

Total
13
Share