সেঞ্চুরিয়ানে ভারতের ঐতিহাসিক জয়

সেঞ্চুরিয়ানে ভারতের ঐতিহাসিক জয়

সেঞ্চুরিয়ানে ঐতিহাসিক জয় ভারতের, দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারাল ১১৩ রানে। জয়ের জন্য শেষদিন ভারতের দরকার ছিল ৬ উইকেট। আর প্রোটিয়াদের  প্রয়োজন ছিল ২১১ রান। ভারতীয় পেসারদের তোপের সামনে স্বাগতিকরা আটকে যায় ১৯১ রানে। ১১৩ রানে টেস্ট জিতে সিরিজে ১-০ এগিয়ে গেল ভিরাট কোহলির দল।

দ্বিতীয় ইনিংসে ভারতের দেওয়া ৩০৫ রানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে ১৯১ রানে অলআউট হয়ে যায় দক্ষিণ আফ্রিকা। দাপট দেখিয়ে ভারতের জয় ১১৩ রানে। প্রথম ইনিংসের অনবদ্য ইনিংসের সুবাদে ম্যাচ সেরার পুরষ্কার জেতেন লোকেশ রাহুল।

প্রথম ইনিংসে লোকেশ রাহুলের শতরানের উপর ভর করে ভারতীয় দল ৩২৭ রান করে। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ভারতীয় পেসারদের সামনে গুটিয়ে যায় ১৯৭ রানে গুটিয়ে যায় দক্ষিণ আফ্রিকার প্রথম ইনিংস। দ্বিতীয় ইনিংসে ভারতীয দল ১৭৪ রানে থেমে গেলেও প্রথম ইনিংসের বড় লিডের কারণে প্রোটিয়াদের সামনে দাঁড়ায় ৩০৫ রানের বড় টার্গেট। যা সম্ভব হয়নি।

চতুর্থ দিনের শেষে প্রোটিয়াদের স্কোর ছিল ৪০.৫ ওভারে ৪ উইকেটে ৯৪। আজ মধ্যাহ্নভোজের বিরতির আগে আরও তিনটি উইকেট হারায় দক্ষিণ আফ্রিকা। লাঞ্চ বিরতিতে যায় ৬৬ ওভারে ৭ উইকেটে ১৮২ রানে। বাকি তিনটি উইকেট ভারত তুলে নিল লাঞ্চের পর মাত্র দুই ওভারেই। দ্বিতীয় সেশনের প্রথম ওভারের পঞ্চম বলে মার্কো জানসেন মোহাম্মদ শামির বলে কট বিহাইন্ড হন। পরের ওভারের শেষ দুই বলে কাগিসো রাবাদা ও লুঙ্গি এনগিডিকে আউট করেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন।

প্রোটিয়া অধিনায়ক ডিন এলগার করলেন সর্বাধিক ৭৭, তাঁর ১৫৬ বলের ইনিংসে রয়েছে ১২টি চার। টেম্বা বাভুমা ৮০ বলে ৩৫ রানে অপরাজিত থাকলেন।

দ্বিতীয় ইনিংসে জাসপ্রীত বুমরাহ ও মোহাম্মদ শামি পেলেন তিন উইকেট করে। জোড়া উইকেট মোহাম্মদ সিরাজ ও রবিচন্দ্রন অশ্বিনের। 

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

এশিয়া কাপের ফাইনালে যাওয়া হলনা টাইগার যুবাদের

Read Next

ডিনার টেবিলে ফুরফুরে মেজাজের বাংলাদেশকে পেলেন নাফিস ইকবাল

Total
4
Share