লিড পেয়ে হারা ম্যাচও যখন বাংলাদেশের অনুপ্রেরণা

পদে বহাল আছেন কিনা সেটাই জানেন না খালেদ মাহমুদ সুজন
Vinkmag ad

এখনো পর্যন্ত নিউজিল্যান্ডের মাটিতে কোনো ফরম্যাটেই ম্যাচ জিততে পারেনি বাংলাদেশ। ৯ টেস্টের ৫ টিতে আবার হেরেছে ইনিংস ব্যবধানে। এমন পরিসংখ্যানের মাঝেও এবার দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজ খেলতে গিয়ে আশাবাদী টাইগাররা। টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজন অনুপ্রেরণা খুঁজছেন ২০১৭ সালের ওয়েলিংটিন টেস্ট থেকে।

এবারের সিরিজটি মাঠে গড়াচ্ছে নতুন বছরের প্রথম দিন। মাউন্ট মঙ্গানুইয়ের বে ওভাল মাঠে ১ জানুয়ারি সিরিজের প্রথম টেস্ট। দ্বিতীয় টেস্ট শুরু হবে ৯ জানুয়ারি ক্রাইস্টচার্চের হাগলি ওভালে।

সিরিজ সামনে রেখে গত ৮ ডিসেম্বর দেশ ছাড়ে বাংলাদেশ। এরপর কোয়ারেন্টাইন জটিলতা শেষে ২১ ডিসেম্বর থেকে অনুশীলনের সুযোগ পায়। এই কদিন ক্রাইস্টচার্চে অনুশীলন শেষে টাইগাররা গতকাল (২৪ ডিসেম্বর) পৌঁছেছে তরাঙ্গায়। আজ (২৫ ডিসেম্বর) বড় দিনের ছুটি শেষে আগামীকাল থেকে শুরু হবে ফের অনুশীলন। ২৯ ডিসেম্বর থেকে একটি দুইদিনের প্রস্তুতি ম্যাচ খেলারও কথা আছে।

নিউজিল্যান্ড এমনিতে দুঃস্বপ্নের বলা যায় বাংলাদেশ দলের জন্য। কিউইদের সামনে প্রতিবারই যে করতে হয়েছে অসহায় আত্মসমর্পণ। সে ক্ষেত্রে কিছুটা ব্যতিক্রম ছিলো ২০১৭ সালের ওয়েলিংটন টেস্ট।

যে ম্যাচে আগে ব্যাট করা বাংলাদেশ সাকিব আল হাসানের ডাবল সেঞ্চুরি (২১৭) ও মুশফিকুর রহিমের সেঞ্চুরিতে (১৫৯) ৫৯৫ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করে। জবাবে নিউজিল্যান্ডও তোলে ৫৩৯ রান।

৫৬ রানের লিড পেয়েও দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশ গুটিয়ে যায় ১৬০ রানে। ফলে ২১৭ রানের লক্ষ্য পেয়ে যায় স্বাগতিকরা। পঞ্চমদিন ৩৯.৪ ওভার ব্যাট করেই চা বিরতির পর ৭ উইকেটের জয় তুলে নেয় কেইন উইলিয়ামসনের দল।

লিড পেয়ে সেই হারা ম্যাচকেই এবার অনুপ্রেরণা বলছে টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজন, ‘এর আগে আমরা নিউজিল্যান্ডে ১০ টা (মূলত ৯ টা) টেস্ট ম্যাচ খেলেছি যার রেকর্ড খুব একটা ভালো না। শুধু মাত্র ২০১৬ (আসলে ২০১৭) সালের ম্যাচটা বাদে, যেখানে আমরা পঞ্চম দিন টি সেশনের পরে হেরেছিলাম।’

‘তো ঐ ম্যাচটাকে অনুপ্রেরণা হিসেবে নিচ্ছি যে ঐ ম্যাচে যদি ৮ উইকেটে ৫৯৫ রান করতে পারি,… আমরা (ইনিংস) ডিক্লেয়ার করেছিলাম ঐ ম্যাচে… ঐ জায়গা থেকে চাই ভালো কিছু করতে। ইনশাআল্লাহ্‌। আল্লাহ্‌ ভরসা।’

এবার নিজেদের প্রস্তুতি প্রসঙ্গে সুজন যোগ করেন, ‘গতকাল রাতে আমরা ক্রাইস্টচার্চ থেকে তরাঙ্গায় এসেছি। আজকে আমাদের ডে অফ, কারণ আজকে ক্রিসমাস এখানে। সবার এখানে ছুটি, কেউ কাজ করবে না। ছেলেদেরও আজকে ছুটি। আমরা খুব ভালো ট্রেনিং করে এসেছি ক্রাইস্টচার্চ থেকে।’

‘আগামী দুই দিন ২৬ ও ২৭ তারিখ ট্রেনিং করবো আমরা। আশা করি খুব ভালো ট্রেনিং হবে, হার্ড ট্রেনিং করবো আমরা ইনশাআল্লাহ্‌। ২৮-২৯ তারিখ আমাদের একটা অনুশীলন ম্যাচ আছে,এরপর আমরা ১ তারিখ প্রথম টেস্ট খেলবো। এখনো পর্যন্ত মাশাআল্লাহ ছেলেরা সবাই ভালো আছে, ফিট আছে, প্র্যাকটিসও খুব ভালো হচ্ছে। আমরা আশাবাদী ভালো ক্রিকেট খেলার ব্যাপারে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

বক্সিং ডে টেস্টের ইংল্যান্ড একাদশে চার পরিবর্তন

Read Next

এবার রবিনের সেঞ্চুরিতে বড় সংগ্রহ টাইগার যুবাদের

Total
21
Share