মিঠুন-মিজানুরের রেকর্ড জুটিতে চট্টগ্রামের রানের পাহাড় ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোনের

featured photo updated v 11
Vinkmag ad

প্রথম শ্রেণির ক্যারিয়ারে প্রথম বার ওপেন করতে নেমেই বাজিমাত করলেন মোহাম্মদ মিঠুন। বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগের (বিসিএল) প্রথম রাউন্ডে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে আরেক ওপেনার মিজানুর রহমানের সাথে গড়েছেন রেকর্ড জুটিও। বিসিবি নর্থ জোনের ২১৯ রানের জবাবে ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোন দ্বিতীয় দিন শেষ করেছে ২ উইকেটে ৪৩০ রান তুলে। মিঠুন-মিজানুরের জোড়া সেঞ্চুরিতে ইতোমধ্যে লিড ২১১ রানের।

মিঠুন-মিজানুরের উদ্বোধনী জুটি ৩২৭ রানের। যা প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে বাংলাদেশী কোনো উদ্বোধনী জুটির তৃতীয় সর্বোচ্চ রান। মিঠুন ১৭৬ ও মিজান ১৬২ রান করে আউট হন।

বিসিবি নর্থ জোনকে গতকাল (১২ ডিসেম্বর) প্রথম দিন ২১৯ রানে অলআউট করে দেয় ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোন। পরে নিজেরা দিন শেষ করে বিনা উইকেটে ৬১ রান তুলে, যেখানে মিঠুন ৪৩ ও মিজানুর ১৮ রানে অপরাজিত ছিলেন।

আজ দিনের শুরুতেই ফিফটি তুলে নেন মিঠুন। এরপর সেঞ্চুরিও তুলে নেন লাঞ্চের আগে। ১৪৫ বলে প্রথম শ্রেণির ক্যারিয়ারের ১৩ তম সেঞ্চুরির দেখা পান হুট করে ওপেন করতে নামা মিঠুন।

ততক্ষণে সমান তালে রান তোলা শুরু করেন মিজানুর রহমানও। পিছিয়ে থেকেও একই সেশনেই তুলে নেন সেঞ্চুরি। লেগ স্পিনার তানভীর হায়দারকে ছক্কা মেরে ১৬৩ বলে সেঞ্চুরির দেখা পান তিনি।

মিঠুন-মিজানুরের সেঞ্চুরিতে প্রথম সেশনেই বিনা উইকেটে প্রতিপক্ষের সংগ্রহ ছুঁয়ে ফেলে ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোন। ২১৯ রান নিয়ে লাঞ্চে যায় তারা, মিজানুর ১০১ ও মিঠুন অপরাজিত ছিলেন ১১৪ রানে। এক সেশনেই তাদের স্কোরবোর্ডে যোগ হয় ১৫৮ রান।

লাঞ্চের পর নাইম ইসলাকে লং অনে ঠেলে দিয়ে ১ রান নিয়ে দেড়শ রান স্পর্শ করেন মিজানুর। মোহাম্মদ মিঠুনের পরে সেঞ্চুরি পেলেও দেড়শর ঘর আগেই স্পর্শ করেন এই ওপেনার। সেঞ্চুরির পর দেড়শ করতে মিজানুরের লাগে মাত্র ৬১ বল। তার কিছুক্ষণের মধ্যেই দেড়শ করে ফেলেন মিঠুনও।

ততক্ষণে জুটিও ছুটছিলো রেকর্ডের দিকে। চা বিরতির খানিক আগে মিজানুর আউট হলে ভাঙে ৩২৭ রানের জুটি। ২৪৩ বলে ২১ চার ৩ ছক্কায় ১৬২ রান করে এলবিডব্লিউ হন নাইম ইসলামের বলে। ৩২৭ রানের জুটিটি প্রথম শ্রেণিতে বাংলাদেশের কোনো জুটির তৃতীয় সর্বোচ্চ রান। ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোন চা বিরতিতে যায় ১ উইকেটে ৩৩০ রান তুলে।

চা বিরতির পর অবশ্য মিঠুনও বেশিক্ষণ টিকেননি। ২৫৭ বলে ২১ চার ২ ছক্কায় ১৭৬ রান করে ফেরেন পেসার নোমান চৌধুরীর বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে।

এরপর দিনের বাকি সময় পার করে দেন সৌম্য সরকার ও সালমান হোসেন ইমন। দুজনে অবিচ্ছেদ্য আছেন ৭৬ রানের জুটিতে। ২ উইকেটে ৪৩০ রান ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোনের স্কোরবোর্ডে। সৌম্য ৩৯ ও সালমান ৪০ রানে অপরাজিত আছেন।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

দুবাই, দক্ষিণ আফ্রিকায় হচ্ছে না, হাসান মাহমুদের নতুন গন্তব্য ইংল্যান্ড

Read Next

শ্রীলঙ্কার কনসালটেন্ট কোচ হলেন মাহেলা জয়াবর্ধনে

Total
20
Share