অনেক কিছু চূড়ান্ত না হওয়া বিপিএলে বাড়ছে দেশী ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিক

featured photo1 56
Vinkmag ad

বিপিএলের ৮ম আসর সামনে রেখে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল কাজ শুরু করেছে। ফ্র্যাঞ্চাইজি কিনতে আগ্রহীদের সাথে আজ (১২ ডিসেম্বর) বিকেলে বিসিবি কার্যালয়ে বৈঠকও হয়। তবে এখনো ফ্র্যাঞ্চাইজি, পারিশ্রমিক, ড্রাফটের তারিখ কোনো কিছুতেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসেনি। যদিও আগ্রহ প্রকাশ করা প্রতিষ্ঠানগুলো জানিয়েছে সভায় গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা সম্পর্কে। যেখানে দেশী ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিক বাড়ানো ও একজন করে দেশী ক্রিকেটার সরাসরি চুক্তিবদ্ধ করার সম্ভাবনা প্রবল।

প্রায় দেড়-দুই ঘন্টার সভায় বেশ কিছু ফ্র্যাঞ্চাইজি কিনতে আগ্রহী প্রতিষ্ঠানের সাথে আলাপ করে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল। বৈঠক শেষে তারা সংবাদ মাধ্যমের সাথেও কথা বলেন। মোটামুটি সবুজ সংকেত পেয়ে যাওয়া প্রতিষ্ঠানগুলো নিজেদের দল গুছানো শুরু করেছেন বলেও জানান। কিন্তু আনুষ্ঠানিক ঘোষণার আগে দল নিয়ে খুব একটা মুখ খুলতে চাননি কেউই।

তবে বৈঠকে যে দেশী ক্রিকেটারের পারিশ্রমিক বাড়তে যাচ্ছে সেটি জানিয়েছেন বরিশালের দল কিনতে আগ্রহী ফরচুন গ্রুপের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান। যেখানে আগে এ প্লাস ক্যাটাগরির দেশী ক্রিকেটারের পারিশ্রমিক ছিলো ৫০ লাখ, বিদেশী এ প্লাস ক্যাটাগরি ৬৫ লাখ। নতুন সিদ্ধান্তে দেশী এ প্লাস ক্যাটাগরির ক্রিকেটার পাবেন ৭০ লাখ টাকা।

মিজানুর বলেন,

‘এ প্লাস ক্যাটাগরির খেলোয়াড়ের পারিশ্রমিক কিছুটা বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। আগে ৫০ লাখ ছিলো এখন ৭০ লাখ হচ্ছে। এটাই বড় পরিবর্তন।’

এর বাইরে এতোদিন নিয়ম ছিলো বিদেশী ৩ জন ক্রিকেটার ড্রাফটের বাইরে সরাসরি চুক্তিবদ্ধ করতে পারবে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো। এখন দেশী একজন ক্রিকেটারও সরাসরি চুক্তিবদ্ধ করার সুযোগ পাবে বলে জানান মিজানুর রহমান।

তিনি বলেন,

‘কিছু পরিবর্তন আছে, এর মাঝে ইতিবাচক দিক হলো একজন বাংলাদেশী খেলোয়াড়কে আমরা সরাসরি চুক্তিবদ্ধ করতে পারবো। এটাই আমরা চেয়েছিলাম যার মাধ্যমে আমরা দলটাকে সুন্দরভাবে গুছাতে পারবো। এই সিদ্ধান্তটা হয়েছে।’

আর সেক্ষেত্রে তারা সাকিব আল হাসানের সাথে কথাবার্তা এক প্রকার পাকা করে রেখেছে তারা। এখন শুধু অপেক্ষা বিসিবির আনুষ্ঠানিক ঘোষণার। কারণ তারাই যে ফ্র্যাঞ্চাইজি পাচ্ছেন সেটি এখনো চূড়ান্ত করেনি বিসিবি। এর আগে বিপিএলের আদলে হওয়া বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে ফরচুল বরিশালের মালিকানা পেয়েছিলো ফরচুন গ্রুপ।

তবে বৈঠক শেষে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল চেয়ারম্যান শেখ সোহেল সংবাদ মাধ্যমকে কোনো কিছুই নিশ্চিত করেননি। এমনকি আগ্রহ প্রকাশ করা ৮ টি প্রতিষ্ঠানের মাঝে কোন ৬ টি টিকে থাকছে সেটি জানাতেও সময় নিয়েছেন।

তিনি বলেন,

‘৮ টা ফ্র্যাঞ্চাইজি আগ্রহ দেখিয়েছে। এখানে নতুন পুরাতন মিলিয়ে আছে। কুমিল্লা সহ আরও আছে পুরোনো যারা আসতে চায়, নতুন আছে কয়েকটা। এখানে কিছু ব্যাপার আছে, এটার জন্য আমরা কিছু দিন সময় নিয়েছি। যত দ্রুত সম্ভব আমরা আপনাদের ফ্র্যঞ্চাইজির ব্যাপারটা জানিয়ে দিবো। আমরা সাধারণত ৬ টা দিয়ে করি, এবারও ৬ টা দিয়ে করবো।’

দেশী এ প্লাস ক্যাটাগরির ক্রিকেটারের পারিশ্রমিক ইস্যুতেও তার কণ্ঠে একই সুর,

‘এটা আমরা ভেবেছি, এখনো রাফ অবস্থায় আছে। এখনো চূড়ান্ত কিছু নয়, কাজ শুরু করেছি। দুই-একদিনের মধ্যে জানাতে পারবো।’

বিপিএলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান থাকবে কিনা জানতে চাইলে শেখ সোহেল বলেন,

‘এটাও আমরা আলাপ করতেছি। আমরাতো চাই সবসময় বিপিএলের একটা উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হবে। এটাও আলাপ করে চূড়ান্ত হলে জানাবো। খুব সম্ভবত হবে।’

উল্লেখ্য, বিপিএলের এবারের আসর মাঠে গড়ানোর কথা আগামী বছর জানুয়ারির শেষ দিকে। ফ্র্যাঞ্চাইজি চূড়ান্ত করে চলতি মাসেই প্লেয়ার ড্রাফট করতে চায় বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল, এমনটাই জানান শেখ সোহেল।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

বোলারদের দিনে মিঠুনের ব্যাটিং ঝলক

Read Next

ড্রাফট শেষে যেমন হল পিএসএলের ৬ দল

Total
17
Share