লিটন-মুশফিককে প্রশংসায় ভাসালেন হাসান আলি

লিটন-মুশফিককে প্রশংসায় ভাসালেন হাসান আলি

টেস্টের প্রথম দিনের প্রথম সেশন, উইকেট থেকে খুব বেশি সুবিধা না পেয়েও প্রতিপক্ষের ৪ উইকেট তুলে নেওয়া। কিন্তু পরের দুই সেশনে উইকেট শূন্য থেকে দিনের খেলাই নিজেদের কাছ থেকে ফসকে যাওয়া হতাশারই। চট্টগ্রাম টেস্টের প্রথম দিন শেষে এমনই অবস্থা পাকিস্তানের। ৪৯ রানে ৪ উইকেট হারানো বাংলাদেশ লিটন দাস ও মুশফিকুর রহিমের ব্যাটে দিন শেষ করে ৪ উইকেটে ২৫৩ রান নিয়ে। দিন শেষে পাকিস্তানি পেসার হাসান আলি প্রশংসায় ভাসালেন লিটন-মুশফিককে।

আলোক স্বল্পতায় ৫ ওভার আগেই দিনের খেলা শেষ ঘোষণা করে আম্পায়ার। অবশ্য তার আগেই পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের চোখে মুখে অন্ধকার দেখার উপলক্ষ এনে দেয় ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি হাঁকানো লিটন ও সেঞ্চুরির দ্বারপ্রান্তে যাওয়া মুশফিক।

দিন শেষে লিটন ১১৩ ও মুশফিক ৮২ রানে অপরাজিত আছেন। দিনের খেলা শেষে পাকিস্তানের সব ক্রিকেটারই অভিনন্দন জানান লিটনকে, তবে হাসান আলি সময় দেন আরও বেশি। প্রায় মিনিট খানেকের মতো লিটনের কাঁধে হাত রেখে অভিনন্দন জানান, পিঠ চাপড়ে দেন এবং কথা বলেন। দিন শেষে পিসিবির পাঠানো এক ভিডিও বার্তায়ও হাসান লিটন-মুশফিকের প্রশংসা করেন।

৩৮ রান খরচায় সাদমান ইসলামের উইকেট নেওয়া হাসান বলেন, ‘দেখুন আমাদের পরিকল্পনা ছিল, যদি আগে বোলিং করতে হয় তাহলে শুরু থেকেই উইকেট নেওয়ার চেষ্টা করবো। আমরা এই পরিকল্পনায় সফলও ছিলাম। তবে আমাদের অবশ্যই প্রশংসা করতে হবে, যেভাবে মুশফিক ও লিটন ব্যাটিং করেছেন।’

‘তারা দুজন আমাদের হাত থেকে ম্যাচটা নিয়ে গেছে। আমার মতে, দুজনই দারুণ ইনিংস খেলেছে। প্রথম সেশনের পর বল ব্যাটে আসা শুরু হয়ে গিয়েছিল। আমরা ব্রেক থ্রু নিতে পারিনি। তবে টেস্ট ক্রিকেট এমনই। আমরা (দ্বিতীয় দিন) সকালে শুরুতেই উইকেট নিতে চেষ্টা করবো।’

৪ উইকেটে ২৫৩ রান তোলা বাংলাদেশ দ্বিতীয় দিন কোথায় গিয়ে থামে তা দেখতে অপেক্ষা করতে হচ্ছে। তবে হাসান আলি চান টাইগারদের ৩৫০ এর মধ্যে আটকে দিতে। তবে বাংলাদেশ এখন ভালো অবস্থানে আছে সেটিও জানান।

তার মতে, ‘আমি মনে করি তারা (বাংলাদেশ) ভালো অবস্থানে আছে। দিন শেষে ২৫০ (২৫৩) রান করে ফেলেছে। দুজন সেট ব্যাটার যেভাবে খেলছে, আমরা যদি তাদের ৩৫০ রানে আটকে ফেলতে পারি, তাহলে সেটা দুর্দান্ত হবে। এরপর পিচ যেমন এবং আমাদের ব্যাটাররাও ফর্মে আছে, ইনশাআল্লাহ্‌ আমরাও বড় স্কোর করবো।’

‘দেখুন পিচটা স্লো। আমরা সবাই জানি এখানে স্লো পিচ হয়। আমাদের ঠিক জায়গায় বোলিং করতে হবে। চেষ্টা করবো ঠিক জায়গায় বোলিং করতে, যাতে ব্যাটাররা ভুল করে এবং আমাদের উইকেট নেওয়ার বেশি সুযোগ আসে।’

চট্টগ্রাম থেকে, ক্রিকেট৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

লিটনের প্রথম টেস্ট শতক, চট্টগ্রামে টাইগারদের দিন

Read Next

সেঞ্চুরি হাঁকানো লিটনের দুশ্চিন্তার কারণ ‘ক্রাম্প’

Total
1
Share