আনুষ্ঠানিকভাবে টেস্ট ক্রিকেটকে বিদায় বললেন মাহমুদউল্লাহ

টেস্ট স্কোয়াডে ফিরলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ

প্রায় দেড় বছর পর টেস্ট ক্রিকেটে ফিরেই সেঞ্চুরি হাঁকান মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। গত জুলাইয়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে হারারে টেস্টে খেলেন দলের প্রয়োজনে ১৫০ রানের অপরাজিত এক ইনিংস। তবে এরপরই হুট করে অবসরের ঘোষণা দেন। কিন্তু সেটি সতীর্থ আর টিম ম্যানেজমেন্টের মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিলো। এবার আনুষ্ঠানিকভাবে রিয়াদ ইতি টানলেন এক যুগের টেস্ট ক্যারিয়ারের।

হারারে টেস্টে অঘোষিত অবসরের পর বিতর্ক মোড় নেয় নানা দিকে। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনও এ ইস্যুতে খোলাসা করেননি কিছু। রিয়াদ নিজেও এ বিষয়ে পরে পরিষ্কার করবেন বলে জানান। কিন্তু সেই অপেক্ষা যেনো দীর্ঘই হচ্ছিলো।

অবশেষে ৪ মাস পর পুরিয়েছে সে অপেক্ষা। আজ বিসিবি এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানায় আনুষ্ঠানিকভাবেই সাদা পোশাকের ক্রিকেটকে বিদায় বলছেন ৩৫ বছর বয়সি এই টাইগার ক্রিকেটার।

বিসিবির সংবাদ বিজ্ঞপ্তির বরাত দিয়ে রিয়াদ বলেন,

‘যে ফরম্যাটে আমি এতদিন ধরে খেলছিলাম সেটা ছেড়ে দেওয়া কোন সহজ ব্যাপার নয়। আমি সবসময় উচ্চে যাওয়ার কথা ভেবেছিলাম এবং আমি বিশ্বাস করি এটাই আমার টেস্ট ক্যারিয়ার শেষ করার সঠিক সময়।’

‘টেস্ট দলে ফিরে আসতে (বাদ পড়ার পর আবার দলে ডাক পাওয়া) আমাকে সমর্থন করার জন্য বিসিবি সভাপতির প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতে চাই। সবসময় আমাকে উৎসাহিত করার জন্য এবং আমার ক্ষমতার উপর বিশ্বাস রাখার জন্য সতীর্থদের এবং সহায়তা কর্মীদের ধন্যবাদ জানাই। বাংলাদেশের হয়ে টেস্ট ক্রিকেট খেলতে পারাটা একটা পরম সম্মান ও সৌভাগ্যের বিষয়। এবং আমি অনেক স্মৃতি মনে রাখব।’

‘যদিও আমি টেস্ট থেকে অবসর নিচ্ছি, কিন্তু ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টি খেলা চালিয়ে যাব। আমি সাদা বলের ক্রিকেটে দেশের জন্য আমার সেরাটা দেওয়ার জন্য উন্মুখ।’

উল্লেখ্য, ২০০৯ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্টে অভিষেক হয় মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের। সাদা পোশাকে খেলেছেন মোট ৫০ টি টেস্ট। ৩৩.১১ গড়ে রান করেছেন ২৯১৪, ৫ সেঞ্চুরির বিপরীতে আছে ১৬ ফিফটি।

শেষদিকে পড়তি ফর্মে রিয়াদ ২০২০ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে রাওয়ালপিন্ডি টেস্টের পরই দলে জায়গা হারান। বিশেষ করে রান না করার চাইতে তার আউটের ধরণে হতাশ ছিলো প্রধান কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো। এরপর আর জায়গা হচ্ছিলো না সাদা পোশাকে। তবে চলতি বছর জিম্বাবুয়ে সফরের টেস্ট দলে জায়গা পান মুশফিকুর রহিম ও তামিম ইকবালের চোট শঙ্কায়।

আর প্রত্যাবর্তনের ম্যাচেই দলের বিপদে ১৫০ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলে বসেন। এরপর টেস্ট চলাকালীন তৃতীয় দিন খেলা শুরুর আগেই সতীর্থদের জানিয়ে দেন এটি তার শেষ টেস্ট ম্যাচ। যদিও আনুষ্ঠানিক ঘোষণা পেতে অপেক্ষা করতে হয়েছে আজকে পর্যন্ত।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

চট্টগ্রাম টেস্টের টিকিটের মূল্য জানিয়েছে বিসিবি

Read Next

কানপুর টেস্টে অভিষেকের অপেক্ষায় শ্রেয়াস আইয়ার

Total
32
Share