বাংলাদেশকে অনুসরণ করা স্টুয়ার্ট ল জানালেন সংকট থেকে উত্তরণের উপায়

বাংলাদেশকে অনুসরণ করা স্টুয়ার্ট ল জানালেন সংকট থেকে উত্তরণের উপায়

আজ (১৯ নভেম্বর) থেকে শুরু হচ্ছে আবু ধাবি টি-টেন লিগ। যেখানে বাংলাদেশি মালিকানাধীন ফ্র্যাঞ্চাইজি বাংলা টাইগার্সের প্রধান কোচ হিসাবে আছেন স্টুয়ার্ট ল। বাংলা ও বাংলাদেশের সঙ্গে অবশ্য স্টুয়ার্ট ল এর সম্পর্ক নতুন নয়। এর আগে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল ও অনূর্ধ্ব-১৯ দলের কোচ হিসাবে কাজ করেছেন সাবেক এই অজি ব্যাটসম্যান। 

২০১১ বিশ্বকাপের পর শ্রীলঙ্কার অন্তর্বর্তীকালীন কোচ হিসাবে দায়িত্ব পালনের পর বাংলাদেশ দলের প্রধান কোচ হয়েছিলেন তিনি। তার কোচিং আমলেই বাংলাদেশ প্রথমবার এশিয়া কাপের ফাইনাল খেলে। পারিবারিক কারণে অবশ্য ৯ মাসের বেশি টাইগারদের কোচিংয়ের দায়িত্ব চালিয়ে নিতে পারেননি তিনি।

স্টুয়ার্ট ল আবার বাংলাদেশে ফিরেছিলেন ২০১৬ সালে। ঘরের মাঠে টাইগার যুবাদের বিশ্বকাপ যাত্রার সঙ্গী ছিলেন ল। মেহেদী হাসান মিরাজ, নাজমুল হোসেন শান্ত, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনদের টেকনিক্যাল অ্যাডভাইজর ছিলেন অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ১ টেস্ট ও ৫৪ ওয়ানডে খেলা ল।

বাংলাদেশ দল ও বাংলাদেশে তার স্মৃতি নিয়ে আলাপে স্টুয়ার্ট ল জানালেন বাংলাদেশের খোঁজ রাখেন নিয়মিতই। জাতীয় দল ও অনূর্ধ্ব-১৯ দলের সঙ্গে কাজ করার সময় যাদের সঙ্গী হিসাবে পেয়েছিলেন তাদের সবার সঙ্গে যোগাযোগ বজায় রেখেছেন তিনি।

৫৩ বছর বয়সী স্টুয়ার্ট ল বলেন, ‘হ্যা, সবসময়ই (বাংলাদেশ দলকে অনুসরণ করি)। আমি যেখানেই যাই না কেনো আমি যাদের সঙ্গে কাজ করেছি তাদের খোঁজ রাখি। আমি বাংলাদেশে থাকতে যেসব কোচের সঙ্গে একসাথে কাজ করেছি তাদের অনেকের সাথেই যোগাযোগ বজায় রেখেছি। শুধু বাংলাদেশ জাতীয় দলের না, অনূর্ধ্ব-১৯ দলেরও।’

যেসব ক্রিকেটারদের সঙ্গে কাজ করেছেন তাদেরকে ভালো করতে দেখলে গর্বিত হন ল। বাংলাদেশে প্রতিভার অভাব নেই উল্লেখ করে ল জানান তার মতে বাংলাদেশের আরও ভালো অবস্থানে থাকা উচিৎ ছিল।

‘বাংলাদেশে আমার সময়ে যাদেরকে আমি দেখভাল করেছি তাদের জন্য আমি গর্ব করি। তাদেরকে ভালো কিছু করতে দেখলে আমার গর্ব হয়। বাংলাদেশে প্রতিভার শেষ নেই। দেখেন, এই মুহূর্তে বাংলাদেশ যেমন অবস্থায় আছে তার চেয়ে তারা ভালো অবস্থানে তাদের থাকা উচিত।’

মাঠ ও মাঠের বাইরের বিতর্কে বাংলাদেশ ক্রিকেট আছে সংকটে। এমন অবস্থা থেকে উত্তরণের জন্য দলে বিশ্বাস ফিরিয়ে আনার তাগিদ সাবেক টাইগার কোচ স্টুয়ার্ট ল’র।

‘এই দলে বিশ্বাসটা ফিরিয়ে আনতে হবে। যখন তারা নিজেদের ওপর বিশ্বাস করে তখন তারা খুবই ভালো দল।’

ঘরের মাঠে দ্বিপাক্ষিক সিরিজে ভালো ফল আসলেও বিশ্ব আসরে টাইগারদের পারফরম্যান্স নিশ্চিতভাবেই সমর্থকদের মন খারাপের কারণ। দুই জায়গাতে পারফরম্যান্সের এই ফারাকের কারণ ব্যাখ্যা করেছেন ল।

ল বলেন, ‘দেখেন, তারা ঘরের মাঠে যে উইকেটে খেলে তা তাদেরকে সাহায্য করে। সেখানে বল দ্রুত যায় না, অনেক স্পিন হয়। বাংলাদেশে যেয়ে অন্য দলের ভালো করাটা কঠিন হয়ে যায়। যখন তারা বিশ্ব আসরে খেলতে আসে, সেখানে উইকেট সবার জন্য একই রকম হয়। অন্য দলের পেসাররা খুব ভালো, যা বাংলাদেশের জন্য সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়ায়।’

ভালো করার উপায় খোঁজার তাগিদ স্টুয়ার্ট ল’র। তার মতে প্রতিদিন নিজেকে ছাড়িয়ে যাবার চেষ্টা করতে হবে, থাকতে হবে শেখার প্রক্রিয়ার মধ্যে।

‘বাংলাদেশ বিশ্বকাপে কয়েকটা ম্যাচ হেরেছে, যেখানে তাদের জেতার কথা ছিল। অল্পের জন্য হেরেছে তারা। বড় মোমেন্টাম তারা নিজেদের দিকে নিতে পারেনি। এখন এমন না যে সবকিছু ছেড়ে ছুড়ে দিতে হবে। যা হয়েছে সেখান থেকে ভালো করার উপায় খুজতে হবে। ক্রিকেটে যদি আপনি প্রতিদিন নিজেকে ছাড়িয়ে যাবার চেষ্টা না করেন তাহলে আপনি আপনার কাজ সঠিকভাবে করছেন না। আপনাকে শেখার প্রক্রিয়ার মধ্যেই থাকতে হবে।’

আবু ধাবি থেকে শিহাব আহসান খান

Read Previous

প্রধানমন্ত্রীর অনুপ্রেরণায় উচ্ছ্বসিত রিয়াদ

Read Next

যৌন কেলেঙ্কারিতে টিম পেইন; সরে দাঁড়ালেন অধিনায়কের পদ থেকে

Total
7
Share