পাকিস্তানের বিপক্ষে শান্তদের আশাবাদী করছে বিপিএল

নাজমুল হোসেন শান্ত খুলনা টাইগার্স

দুই দফা টি-টোয়েন্টিতে সুযোগ পেয়ে ব্যর্থ নাজমুল হোসেন শান্ত। তবে আরেক দফা সংক্ষিপ্ত এই সংস্করণে তার ডাক পড়লো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাংলাদেশের ব্যর্থতা ও দল চোটে জর্জরিত বলে। অতীতকে পেছনে ফেলে শান্ত এবার নতুন উদ্যমে এগোতে চান পাকিস্তান সিরিজ দিয়ে।

পাকিস্তানের বিপক্ষে দল হিসেবেও ভালো করার ব্যাপারে আশাবাদী এই বাঁহাতি। যেখানে বিপিএলে (বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে) পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের সাথে খেলা কাজে দিবে বলছেন।

২০১৯ সালে ত্রিদেশীয় সিরিজে টি-টোয়েন্টি অভিষেক শান্তর। জিম্বাবুয়ে ও আফগানিস্তানের বিপক্ষে ২ ম্যাচে সুযোগ পেয়ে রান করেছেন মাত্র ১৬। এরপর আরেক দফা সুযোগ মিলে চলতি বছর নিউজিল্যান্ড সিরিজে, এক ম্যাচে ব্যাট হাতে নেমে আউট হন ৮ রানে।

এরপর আর টি-টোয়েন্টিতে বিবেচিত হননি ২৩ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যান। যদিও স্বীকৃত টি-টোয়েন্টিতে এই সময়ে তার ব্যাটে ছিল দারুণ ছন্দ। হাঁকিয়েছেন দুইটি সেঞ্চুরিও, সব মিলিয়ে স্বীকৃত টি-টোয়েন্টিতে স্ট্রাইক রেটটাও (১২৮.৯৯) সন্তোষজনক।

এবার দলে বেশ কিছু পরিবর্তন আসাতে সুযোগ হয়েছে তার। লিটন দাস, সৌম্য সরকার বাদ পড়েছেন, চোটের কারণে নেই সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবালও, বিশ্রাম দেওয়া হয়েছে মুশফিকুর রহিমকে।

১৯ নভেম্বর মাঠে গড়াবে পাকিস্তানের বিপক্ষে প্রথম টি-টোয়েন্টি। আজ (১৭ নভেম্বর) অনুশীলন শেষে বিসিবির পাঠানো এক ভিডিও বার্তায় কথা বলেন শান্ত।

রানের খেলা টি-টোয়েন্টিতে আগ্রাসী ব্যাটিং করতে চান উল্লেখ করে তিনি জানান, ‘সাধারণত টি-টোয়েন্টি অবশ্যই রানেরই খেলা। আমি যখনই খেলি আমার লক্ষ্য থাকে আক্রমণাত্মক ক্রিকেটই খেলব। চিন্তা থাকে প্রথম বল থেকেই আগ্রাসী মেজাজে থাকব। তার মানে এই না যে প্রতি বলেই মারতে থাকব। অবশ্যই বল বিচার করে খেলব।’

দলে ডাক পাওয়া তরুণ ক্রিকেটারদের সামর্থ্য নিয়ে আশাবাদী শান্ত, ‘আমরা এখানে যারা আছি প্রত্যেকেই সামর্থ্যবান। প্রত্যেকটা ব্যাটসম্যানই দায়িত্ব নিয়ে খেলার মতো। আমাদেরই দায়িত্ব নিতে হবে। এখানে সিনিয়র বা জুনিয়র বলে কিছু নাই। এখানে সবাই সামর্থ্যবান বলে আমরা আছি। প্রত্যেকেরই দায়িত্ব আছে। যার যে দায়িত্ব সবারই ওটা সমানভাবে পালন করতে হবে। সবারই সেই সামর্থ্য আছে।’

এদিকে পাকিস্তানের মতো শক্তিশালী দলের বিপক্ষে কাজটা কঠিন হলেও ভালো করার ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী শান্ত। বিপিএলের বদলৌতে পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের সম্পর্কে কিছুটা হলেও ধারণা রাখেন বলে জানান এই বাঁহাতি।

তার মতে, ‘বিশ্ব ক্রিকেট চিন্তা করলে পাকিস্তান সেরা দলগুলোর একটি। বিপিএলে ওদের বেশ কয়েকজনের সঙ্গে খেলার সুযোগ হয়েছে। ওই দিক থেকে আমরা একটু আত্মবিশ্বাসী যে ওই বোলারদের মোকাবেলা করেছি, বা ওই ব্যাটসম্যানের বিপক্ষে বল করেছি। এই সুযোগ আছে। বিশ্ব ক্রিকেটে প্রত্যেকটা দলই ভাল। চিন্তা করলে হবে না যে অনেক ভাল কিছু করব, আমরা জাস্ট বল দেখব, খেলব। অতো বেশি চিন্তার কিছু নেই আমরা যেটা পারি ওই জিনিসটা করব।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

আগামীকাল থেকে পাওয়া যাবে পাকিস্তান সিরিজের টিকিট

Read Next

বাংলাদেশে খেলে যাওয়ার পুরোনো গল্প শোনালেন হায়দার-নেওয়াজরা

Total
1
Share