যে কারণে হুট করেই টি-টোয়েন্টি দলে আকবর

আকবর আলি

পাকিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিকের স্কোয়াডে বেশ কিছু পরিবর্তন আসবে অনুমেয়ই ছিল। কারা ঢুকতে পারেন তাদের নামও মুখে মুখে সরব। কিন্তু যুব বিশ্বকাপ জয়ী দলের অধিনায়ক আকবর আলির অন্তর্ভূক্তির ব্যাপারে আঁচ করতে পারেনি কেউই। মোটামুটি বড় চমক হয়েই দলে জায়গা পেলেন আকবর। দল ঘোষণার পর তাকে নেওয়ার পেছনে কারণ ব্যাখ্যা করেছেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু।

টানা টেস্ট ম্যাচের মধ্যে থাকবে বাংলাদেশ। অন্তত চারটি ম্যাচ তো আছে পরপর। যে কারণে টেস্টে মুশফিকের কাছ থেকে সেরা ফর্ম পেতে পাকিস্তান সিরিজের টি-টোয়েন্টি থেকে বিশ্রামও দেওয়া হয়। এদিকে বাজে ফর্মে টি-টোয়েন্টি থেকে বাদ পড়েছেন লিটন দাসও।

এমন পরিস্থিতিতে টি-টোয়েন্টি দলে নুরুল হাসান সোহান একমাত্র উইকেট রক্ষক। আর তার ব্যাকাপ হিসেবে দলে ভেড়ানো হলো আকবরকে।

তবে গত কয়েকদিনের অনুশীলনে আকবরের দেখা মিলেনি একবারও। ফলে বিকল্প উইকেট রক্ষক কে হচ্ছেন এ নিয়ে ভালোই আলোচনা হয়েছে।

একদিন অনুশীলনেতো যুব বিশ্বকাপ জয়ী দলের আরেক সদস্য পারভেজ হোসেন ইমনকেও কিপিং গ্লাভস হাতে দেখা যায়। কিন্তু সব ধারণা, আভাসকে আড়াল করে আকবরই ডাক পেলেন।

আজ (১৬ নভেম্বর) দল ঘোষণার পর প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু আকবর প্রসঙ্গে বলেন,

‘সোহান কিন্তু আমাদের এক নম্বর উইকেটরক্ষক। এখানে ইঞ্জুরির ব্যাপার আছে, সোহান ছাড়া দলে আর কোনো উইকেটরক্ষক নেই। সেই হিসেবে আকবরকে রাখা হয়েছে। টিম ম্যানেজমেন্ট চাইলে ওকে খেলাতে পারবে।’

যদিও সাম্প্রতিক সময়ে ব্যাট হাতে অসাধারণ কিছু করে নজরে আসেননি আকবর। নান্নু বলছেন মূলত তার উইকেট কিপিংকেই দেওয়া হয়েছে প্রাধান্য।

তিনি বলেন,

‘ওর (আকবর) পারফরম্যান্সের চেয়ে উইকেটকিপিং নেশি গুরুত্বপূর্ণ। কিপিংয়ের কথা চিন্তা করে ওকে ব্যাকআপ হিসেবে নিয়েছি। আমরা এখনও কিন্তু বলছি না ও খেলবে। যদি মূল কিপার ইঞ্জুরিতে পড়ে তখন ওর কথা চিন্তা করা হবে। ওকে স্কোয়াডের সাথে রেখে ভবিষ্যতের জন্য তৈরি করাও গুরুত্বপূর্ণ।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

২০২৩ বিশ্বকাপ পর্যন্ত খেলবেন ওয়াহাব রিয়াজ

Read Next

লিটন-সৌম্যের ফেরার পথ দেখালেন নান্নু

Total
1
Share