বিকেএসপিতে তামিমের সেঞ্চুরি, দ্বিতীয় ইনিংসেও নাসুমের ঝলক

বিকেএসপিতে তামিমের সেঞ্চুরি, দ্বিতীয় ইনিংসেও নাসুমের ঝলক

২৩ তম এনসিএলে (ন্যাশনাল ক্রিকেট লিগ) বিকেএসপিতে সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে ১৪৫ রানের অনবদ্য ইনিংস খেলেন ওপেনার তানজিদ হাসান তামিম। ৭৫ রানের লিড পেল রাজশাহী। সিলেটে অন্য ম্যাচে ঢাকা ৯২ রানের লিড পেলেও এগিয়ে আছে স্বাগতিকরাই। দ্বিতীয় ইনিংসেও আলো ছড়াচ্ছেন নাসুম আহমেদ। দখলে নেন আরও ৩ উইকেট।

জাতীয় ক্রিকেটে লিগের চতুর্থ রাউন্ডের প্রথম দিনে সাভার বিকেএসপির ৪ নম্বর গ্রাউন্ডে ঢাকা মেট্রোর বিপক্ষে টস হেরে আগে ব্যাট করতে নামে রাজশাহী প্রথম ইনিংসে অলআউট হয় ২৩২ রানে। জবাবে ঢাকা মেট্রো প্রথম ইনিংসে সংগ্রহ করে ৩৯৮ রান।

আগের দিন আমিনুল ইসলাম বিপ্লব ৬৫* ও আবু হায়দার ৫৬* রানে অপরাজিত থাকেন। এই দুইয়ের ব্যাটে চড়েই বড় সংগ্রহের পথে এগোয় ঢাকা মেট্রো। ইনিংস বেশি করতে পারেননি আবু হায়দার রনি। সানজামুল ইসলামের শিকার হওয়ার আগে করেন ৫৯ রান। তবে আমিনুল ইসলাম বিপ্লবের ব্যাট থেকে আসে ৮২ রান। সানজামুল তুলে নেন ৪ উকেট। ৩৯৮ রানে থামে মেট্রোর ইনিংস।

দ্বিতীয় ইনিংসে রাজশাহীকে দারুণ শুরু এনে দেন ওপেনার তানজিদ হাসান তামিম। তবে ব্যক্তিগত ১১ রানে ফিরে যান আরেক ওপেনার অভিষেক মিত্র। তিনে নাম জুনায়েদ সিদ্দীকিকে নিয়ে ১৬২ রানের জুটি গড়েন তানজিদ হাসান। এরমাঝেই প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে নিজের প্রথম সেঞ্চুরি তুলে নেন তানজিদ তামিম। ফিফটি রান পূর্ণ করে ফেলেন জুনায়েদ সিদ্দিকী।

মাঝে মিজানুর রহমানের ব্যাট থেকে আসে ১৫ রান। শূন্য রানে ফেরত যেতে হয় ফরহাদ রেজাকে। তবে প্রিতম কুমারকে নিয়ে দেখে-শুনে দিন শেষ করে আসেন জুনায়েদ সিদ্দীকি। ৪ উইকেট হারিয়ে স্কোরবোর্ডে রাজশাহীর সংগ্রহ ২৪১ রান। তৃতীয় দিন শেষে রাজশাহীর লিড ৭৫ রানের।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ (রাজশাহী বিভাগ-ঢাকা মেট্রো)

১ম ইনিংসে রাজশাহীঃ ২৩২/১০ (৬৫.৫ ওভার) মিজানুর ৪৮, জুনায়েদ ২৬, ফরহাদ ২০, প্রিতম ৩০, ফরহাদ ৬০, সানজামুল ৩৯; শহিদুল ১৫.৫-৩-৪৮-৭

১ম ইনিংসে ঢাকা মেট্রোঃ ৩৯৮/১০ (১১৩.৫ ওভার) মুনিম ১৪, জাহিদুজ্জামান ৪৫, মিনহাজুল ৫, শামসুর ৮৯, সাদমান ৬২, আমিনুল ৮২, রনি ৫৯, স্বাধীন ১০; নাহিদ ১৬-১-৫৩-১, ফরহাদ ১৫-১-৬১-২, সানজামুল ৩৭-৫-১২৪-৪, ফরহাদ ১৫-১-৬১-২

২য় ইনিংসে রাজশাহীঃ ২৪১/৪ (৭২ ওভার) তামিম ১৪৫, অভিষেক ১১, জুনায়েদ ৫৯*, মিজানুর ১৫, ফরহাদ ০, প্রিতম ২*; বিপ্লব ৯-১-৫১-১, রনি ১২-১-৩১-১

রাজশাহীর লিড ৭৫ রানের।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে স্বাগতিকদের কাছে টস হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে নাসুম আহমেদের স্পিন বিষে বিপর্যস্ত হয়ে ১২৩ রানের বেশি করতে পারেনি ঢাকা বিভাগ। জবাবে সিলেটের প্রথম ইনিংস শেষ হয় ২৬৫ রানে। নাজমুল ইসলাম অপু ৭২ রান খরচায় তুলে নেন ৫ উইকেট।

আগের দিন শেষ বিকালে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ১ উইকেট হারিয়ে ২২ রান স্কোরবোর্ডে জমা করে ঢাকা। নাসুমের শিকার হওয়ার আগে রনি তালুকদার পাননি ১ রানের বেশি। আব্দুল মজিদ ৮ ও জয়রাজ শেখ অপরাজিত ১৩ রানে। ১২০ রানে পিছিয়ে থেকে আজ ম্যাচের তৃতীয় দিন ব্যাট করতে এসে বেশিক্ষণ টেকেননি জয়রাজ শেখ। ১৮ রানে বিদায় নেন এবাদত হোসেনের শিকার হয়ে।

আব্দুল মজিদের সঙ্গে জুটি হয় রাকিবুল হাসান নয়ন। ফিফটি হয় দু’জনেরই। ৫৯ রানের ইনিংসে থামেন আব্দুল মজিদ। নাসুম তুলে নেন দ্বিতীয় উইকেট। উইকেটের পেছনে ক্যাচ তুলে ৫৪ রানে ফেরত যান রাকিবুল। রান পাননি অধিনায়ক তাইবুর রহমান (২)। মাঝে মাহিদুল ইসলাম অঙ্কন ২২ ও রুবেল মিয়ার ব্যাট থেকে আসে ২৫ রান। সুমন খান প্যাভিলিয়নে ফেরার আগে করেন ২২ রান।

নাজমুল ইসলাম অপু ১৯ রানে অপরাজিত থাকেন। ঢাকা দিন শেষ করেছে ৮ উইকেটে ২৩৪ রান সংগ্রহ করে। লিড পেল ৯২ রানের; হাতে বাকি ২ উইকেট।

প্রথম ইনিংসে ৭ উইকেট শিকারের পর দ্বিতীয় ইনিংসেও আলো ছড়াচ্ছেন নাসুম আহমেদ। দখলে নেন আরও ৩ উইকেট।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ (ঢাকা-সিলেট)

১ম ইনিংসে ঢাকাঃ ১২৩/১০ (৫০.৩ ওভার) অঙ্কন ৬৪, তাইবুর ২০, অপু ১৬*; নাসুম ১৮-৬-৪৩-৭, এবাদত ৯-৪-১৩-১, রাজা ১২-৭-২৫-১

১ম ইনিংসে সিলেটঃ ২৬৫/১০ (১০৪.১ ওভার) সায়েম ৭৮, অমিত ৬, জাকির ৬৭, জাকের ৬৭* শাহানুর ২৩; অপুর ৩৬.৪-১০-৭২-৫, তাইবুর ১৯.৩-৩-৪০-৩

২য় ইনিংসে ঢাকাঃ ২৩৪/৮ (১০৩ ওভার) রনি ১, মজিদ ৫৯, জয়রাজ ১৮, রাকিবুল ৫৪, অঙ্কন ২২, রুবেল ২৫, অপু ১৯*, সুমন ২২, আনামুল ১*; নাসুম ৩৭-৯-৬৯-৩, এবাদত ২১-৬-৩৬-২, কাপালি ৪-১-১০-১, রাজা ১৫-৫-২২-১

ঢাকার লিড ৯২ রানের।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

রোহিত শর্মাকে অধিনায়ক করে ভারতের টি-টোয়েন্টি দল ঘোষণা

Read Next

এলপিএলে দল পেলেন ‘৫’ বাংলাদেশি

Total
1
Share