অবশেষে মুখ খুললেন কুইন্টন ডি কক

দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে শেষ ম্যাচ খেলে ফেলেছেন কুইন্টন ডি কক!

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ম্যাচের আগে বর্ণবিদ্বেষের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে সামিল হতে চাননি কুইন্টন ডি কক। ম্যাচ থেকেও নিজেকে সরিয়ে নেন তিনি। এই বিষয়টি মাথাচাড়া দিয়ে উঠতেই ডি কক এবার মুখ খুললেন। বিতর্কের মুখে ক্ষমা চাইলেন ডি কক, হাঁটু মুড়েই এ বার করবেন বর্ণবিদ্বেষের প্রতিবাদ।

গত মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ম্যাচের শুরুতে বর্ণবৈষম্যের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ ভাবে হাঁটু মুড়ে বসে প্রতিবাদ জানানোর নির্দেশ দেয় দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ড। এর পরেই ‘ব্যক্তিগত কারণ’ দেখিয়ে সেই ম্যাচ থেকে নিজেকে সরিয়ে নেন কুইন্টন ডি কক। কুইন্টনের সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়ে ঝড় উঠেছে। দক্ষিণ আফ্রিকা বোর্ড অপেক্ষায় ছিল কুইন্টনের বক্তব্য শোনার। অবশেষে মুখ খুললেন এই প্রোটিয়া উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান। সরে দাঁড়ালেন নিজের অবস্থান থেকে।

ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকার (সিএসএ) প্রকাশ করা এক বিবৃতিতে কুইন্টন ডি কক ব্যাখ্যা দিয়েছেন,

‘আমি কোনভাবেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে না খেলে কাউকে অসম্মান করতে চাইনি। অনেকেই জানে না, যে পুরো বিষয়টা আমাদের মঙ্গলবার ম্যাচের দিন সকালেই খেলতে নামার আগে জানানো হয়। পুরো ঘটনায় যাদের মনে আঘাত লেগেছে, তাদের কাছে আমি ক্ষমা চাইছি এবং এর জন্য আমি দুঃখিত।’

‘জোড় জবরদস্তি আমায় কি করতে হবে সেটা বলে দেওয়ায় আমার মনে হয়েছে যে আমার ব্যক্তিগত অধিকার খর্ব হচ্ছে। এ বিষয়ে আমার বোর্ডের সঙ্গেও কথা হয়েছে এবং বর্তমানে আমরা সকলেই বিষয়টা আরও ভালভাবে বুঝতে পেরেছি। এগুলো যদি আগে থেকে ঠিকভাবে বলা হত, তবে ম্যাচের দিন যা ঘটেছে, তা সহজেই এড়ানো যেত।’

‘আমি মিথ্যা বলব না, এত গুরুত্বপূর্ণ এক ম্যাচ খেলতে যাওয়ার পথে মানতেই হবে, এমন একটা নির্দেশনা দেখে স্তব্ধ হয়ে গেছি। আমরা ক্যাম্প করেছি, আমাদের সেশন ছিল। আমরা জুম মিটিং করেছি। আমরা জানি, আমাদের অবস্থান কী এবং সেটা হলো, এ ব্যাপারে সবাই সংঘবদ্ধ। আমি আমার সব সতীর্থকে ভালোবাসি। এবং দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে ক্রিকেট খেলার চেয়ে বেশি আর কিছুই ভালোবাসি না।’

উল্লেখ্য, চলতি আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ম্যাচ শুরুর আগে প্রোটিয়া ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ হতে ক্রিকেটারদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল ক্যারিবিয়ান দলের সাথে একসাথে হাঁটু মুড়ে বসে বর্ণবৈষম্যের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে এবং ‘ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার্স’ আন্দোলনকে জোরদার করতে। তবে বোর্ডের সেই নির্দেশ অগ্রাহ্য করে কুইন্টন ডি কক এই সিদ্ধান্ত মানবেন না জানিয়ে ম্যাচ থেকেই সরে দাঁড়িয়েছিলেন।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

বাংলাদেশকে হারানো সহজ নয়ঃ জেসন রয়

Read Next

বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচ, ‘বাউন্স ব্যাক’ এর সুযোগ বলছেন পুরান

Total
4
Share