লাইভেই শোয়েব-নোমান ঝগড়া, তদন্ত কমিটি গঠন

লাইভেই শোয়েব-নোমান ঝগড়া, তদন্ত কমিটি গঠন

পিটিভি স্পোর্টস থেকে প্রস্থান করলেন পাকিস্তানের সাবেক স্পিডস্টার শোয়েব আখতার। পাকিস্তান বনাম নিউজিল্যান্ডের ম্যাচ শেষে পিটিভির লাইভ টক শোতে ক্রীড়া সাংবাদিক ডক্টর নোমান নিয়াজের সাথে বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়েন। এরপরই তিনি এ সিদ্ধান্ত নেন।

জানা যায়, লাহোর কালান্দার্সের খেলোয়াড় উন্নয়ন প্রোগ্রামে পেসার শাহীন শাহ আফ্রিদি ও হারিস রউফের উত্থান নিয়ে লাইভে আলোচনা করছিলেন এ দুইজন।

‘আপনি কিছুটা ক্রুদ্ধ ছিলেন। আমি এ নিয়ে বলতে চাই না। কিন্তু আপনি যদি নিজেকে অতিরিক্ত চালাক মনে করেন, তাহলে আপনি যেতে পারেন। আমি সরাসরি এটা বলছি,’ শোয়েবকে বলছিলেন নিয়াজ এবং দ্রুত বিজ্ঞাপন বিরতি নেন।

‘সামাজিক মাধ্যমে এ নিয়ে ব্যাপক ভিডিও আছে। আমি ভাবছিলাম আমি গুছিয়ে বলবো। ডক্টর নোমান অগ্নিমূর্তি ধারণ করেছিলেন এবং আমাকে প্রোগ্রাম ছেড়ে চলে যেতে বললেন। স্যার ভিভিয়ান রিচার্ডস এবং ডেভিড গাওয়ারের মত কিংবদন্তির সামনে এভাবে আমাকে চলে যেতে বলাটা খুবই অস্বস্তিকর,’ বলেন শোয়েব।

বিজ্ঞাপন বিরতির পরও শোয়েব প্রোগ্রামে ছিলেন। তবে অন্য অতিথিদের অনুরোধে তিনি বিদায় নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

‘অভিজ্ঞ ক্রিকেটার এবং লাখ লাখ সমর্থক দেখছিল। অস্বস্তিকর অবস্থা থেকে সবাইকে রক্ষা করার জন্য আমি ডক্টর নোমানের সাথে সমঝোতা করতে চেয়েছিলাম। তিনি ক্ষমা প্রার্থনা করলে আমি প্রোগ্রাম চালু রাখতে পারতাম। তবে তিনি তা করেননি। তাই আমার সেখান থেকে ত্যাগ করা ছাড়া অন্য উপায় ছিল না,’ বলেন শোয়েব।

‘সবার কাছে মাফ চাই, আমি পিটিভি স্পোর্টস ছাড়ছি। জাতীয় টিভিতে যেভাবে আমাকে অপমান করা হলো, আমার উচিত হবে না এখানে আর থাকা। তাই আমি ত্যাগ করছি। সবাইকে ধন্যবাদ।’

প্রোগ্রামে কি হয়েছিল, তা নিয়ে একটি ভিডিও বার্তা দিয়ে টুইটারে পোস্ট করেছিলেন শোয়েব।

এদিকে শোয়েব ও ডক্টর নোমানের মধ্যকার বাদানুবাদের অভিযোগ গ্রহণ করেছেন পাকিস্তানের তথ্য মন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরী। এ সমস্যার সমাধানে একটি কমিটিও গঠন করা হয়েছে। পিটিভির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও হিউম্যান রিসোর্স বিভাগ এ কমিটিতে আছেন।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

বাংলাদেশকে উড়িয়ে দিল ইংল্যান্ড

Read Next

আমাদের দ্বারা হচ্ছে নাঃ নাসুম

Total
1
Share