চরম ব্যাটিং ব্যর্থতা বাংলাদেশের

featured photo updated 6
Vinkmag ad

ব্যাটিং ব্যর্থতার আরও একটি নতুন অধ্যায় লিখল বাংলাদেশ। চলতি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে ইংলিশদের বিপক্ষে টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। মইন, ওকস, লিভিংস্টোনের বোলিং তোপের সামনে পড়ে ১২৪ রানের বেশি করতে পারেনি বাংলাদেশ।

ইনিংসের শুরুটা বেশ ভালো হয়েছিল বাংলাদেশের। মইন আলির করা প্রথম ওভারের শেষ ২ বলে ২ চার হাঁকিয়ে ছন্দে ফেরার আভাস দিয়েছিলেন লিটন দাস। কিন্তু ফের আরও একবার ব্যর্থতার গল্প লিখলেন লিটন। মইনের করা পরের ওভারের দ্বিতীয় বলে লিয়াম লিভিংস্টোনের হাতে সহজ ক্যাচ তুলে ফিরলেন প্যাভিলিয়নে (৮ বলে ৯)। মোহাম্মদ নাইমকেও (৭ বলে ৫) পরের বলে ফিরিয়ে দেন মইন আলি। তৃতীয় ওভারে দুই বলে তাঁর শিকার বাংলাদেশের দুই ওপেনার।

১৪ রানে দুই উইকেট হারানো বাংলাদেশ লড়াইয়ে ফেরার চেষ্টা করেছিল সাকিব-মুশফিকের ব্যাটে। কিন্তু পাওয়ার-প্লের মধ্যেই সাকিবের উইকেট হারিয়ে আরও বিপদ বাড়ে টাইগারদের। ক্রিস ওকসের বলে দুর্দান্ত এক ক্যাচ নিয়ে সাকিবকে বিদায় করেন আদিল রশিদ। ৭ বলে সাকিবের ব্যাট থেকে ৪ রানের বেশি আসেনি। ৩ উইকেট হারিয়ে ২৭ রানে প্রথম পাওয়ার-প্লে শেষ করে বাংলাদেশ।

এরপর মুশফিককে এসে দারুণ সঙ্গ দেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। কিন্তু উইকেটে টিকলেন না মুশফিক নিজেই; ভাঙল রিয়াদের সঙে গড়া ৩৭ রানের জুটি। লিয়াম লিভিংস্টোনের বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়ে ফেরার আগে ৩ চারের সাহায্যে ৩০ বলে ২৯ রানের ইনিংস আসে মুশফিকের ব্যাট থেকে। রিয়াদের সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝিতে রান আউট হয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরতে হয় আফিফ হোসেন ধ্রুবকে (৫)।

থিতু হয়েও ইনিংস বড় করতে পারলেন না অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। লিভিংস্টোনের শিকার হওয়ার আগে ২৪ বলে ১ চারের সাহায্যে ১৯ রানের বেশি করতে পারেননি রিয়াদ। এরপর মেহেদী হাসানের ব্যাট থেকে আসে ১১ রান। তবে ইনিংসের ১৯তম ওভারে নাসুম আহমেদ দেখালেন ব্যাটিং তান্ডব। আদিল রশিদের ওভারে ২ ছয় ও ১ চার হাঁকান নাসুম; এই ওভার থেকেই সর্বোচ্চ ১৭ রান সংগ্রহ করে বাংলাদেশ। ইনিংসের শেষ দুই বলে দুই উইকেট তুলে নেন তাইমাল মিলস। ১৮ বলে ১৬ করেন নুরুল হাসান সোহান, কোন রান করার আগেই বোল্ড মুস্তাফিজ। নাসুম আহমেদের ৯ বলে ১৯ রানের ক্যামিও ইনিংস সাজানো ২ ছক্কা ও ১ চারে। ৯ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশের ইনিংস থামে ১২৪ রানে।

ইংলিশ বোলারদের মধ্যে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট পান তাইমাল মিলস। দুটি করে উইকেট নেন মইন আলি ও লিয়াম লিভিংস্টোন। ক্রিস ওকসের দখলে ১টি উইকেট।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

বাংলাদেশঃ ১২৪/৯ (২০ ওভার) লিটন ৯, নাইম ৫, সাকিব ৪, মুশফিক ২৯, মাহমুদউল্লাহ ১৯, আফিফ ৫, সোহান ১৬, মেহেদী ১১, নাসুম ১৯*; মইন ২/১৮, ওকস ১/১২, লিভিংস্টোন ২/১৫, মিলস ৩/২৭

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

অ্যাংকরিংকেই নিজের কাজ ভাবছেন স্টিভ স্মিথ

Read Next

বাংলাদেশকে উড়িয়ে দিল ইংল্যান্ড

Total
4
Share