কোনো এক ভুলে ডিফেন্ড করার মতো রানেও জেতা হয়নি বলছেন নাইম

কোনো এক ভুলে ডিফেন্ড করার মতো রানেও জেতা হয়নি বলছেন নাইম

খানিক শঙ্কা জাগিয়ে প্রথম পর্ব উতরে সুপার টুয়েলভ নিশ্চিত করে বাংলাদেশ। সুপার টুয়েলভের প্রথম ম্যাচেও সঙ্গী পরাজয়। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জয়ের দারুণ সুযোগ পেয়েও হারতে হয়েছে। যেখানে লিটন দাসের ছাড়া সহজ দুই ক্যাচ মিস ও অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের নেতৃত্ব দেওয়া হয়েছে প্রশ্নবিদ্ধ। তবে দলের হয়ে সর্বোচ্চ রান করা নাইম শেখ বলছেন কোনো এক ভুলে জিততে পারেনি দল।

আগে ব্যাট করে নাইমের ৬২ রানের সাথে মুশফিকুর রহিমের ৫৭ রানে ১৭১ রানের পুঁজি পায় বাংলাদেশ। যা শারজাহর উইকেট বিবেচনায় বড় সংগ্রহই। ইনিংস বিরতিতে মুশফিক নিজেও সেটি বলেছেন ব্রডকাস্ট চ্যানেলকে।

নিজেদের বোলিং ইনিংসেও পথেই ছিল বাংলাদেশ। ৭৯ রানে ৪ উইকেট তুলে নেয় লঙ্কানদের। কিন্তু চারিথ আসালঙ্কা ও ভানুকা রাজাপাকশের ব্যাটে ৫ উইকেটের সাবলীল জয় পায় লঙ্কানরা। দুজনেই পেয়েছেন ফিফটির দেখা, সাথে দুজনেই পেয়েছেন জীবন।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by cricket97 (@cricket97bd)

৮০ রান করা আসালঙ্কা ৬৩ ও ৫৩ রান করা রাজাপাকশে জীবন পান ১৫ রানে। দুইটি ক্যাচই মিস করেন লিটন দাস। অন্যদিকে এই দুই বাঁহাতি যখন ব্যাতট করছেন তখন বাংলাদেশ দলপতি দলের সেরা বোলার বাঁহাতি স্পিনার সাকিবকে আক্রমণেও আনেননি। মূলত বাঁহাতি ব্যাটসম্যানের জন্য বাঁহাতি বোলার কার্যকর নয় এই তত্বেই বিশ্বাসী ছিলেন রিয়াদ।

আজ (২৫ অক্টোবর) সংবাদ মাধ্যমের উদ্দেশে নাইম শেখ পাঠিয়েছেন এক ভিডিও বার্তা। শারজাহ থেকে দুবাই পৌঁছে বাংলাদেশ দল আজ ছিল বিশ্রামে। ২৭ অক্টোবর ইংল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশের পরবর্তী ম্যাচ।

আগের ম্যাচ নিয়ে নাইম বলেন, ‘দুবাই, ওমানের কন্ডিশন একইরকম। অনেক দিন এখানে আছি আমরা। তো এখানে আমরা কন্ডিশনের সঙ্গে অনেকটাই মানিয়ে নিয়েছি। আমারা গতকাল কোনো একটা ভুলের কারণে জিততে পারিনি। ইন শা আল্লাহ আমাদের ফোকাস থাকবে সামনের ম্যাচগুলোতে যেন তিনটা ডিপার্টমেন্টে ভালো করতে পারি।’

নাইম ৩ ম্যাচে পেয়েছেন ২ ফিফটি, তবে শুরুটা ধীরেই হচ্ছে এই বাঁহাতির। মূলত উইকেট বুঝে সেভাবেই ব্যাট করতে চান বলে একটু দেখে শুনে খেলছেন শুরুতে।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘শুরুতে তো উইকেট বুঝা যায়না। উইকেট অ্যাসেস করে কিভাবে খেলবো বা কি টার্গেটে খেলবো সেটা ঠিক করতে হয়, কোন স্কোর ভালো সেটা দেখতে হয়। যখন ভালো শুরু পেলাম (গত ম্যাচে) তখন আমি, সাকিব ভাই, মুশফিক ভাই মিলে অ্যাসেস করে বুঝতে চেষ্টা করলাম’

‘উইকেট বুঝে রান করার চেষ্টা করেছি যে এ উইকেটে কত রান করলে ডিফেন্ড করতে পারব। তো আমরা কাল যে রান করেছিলাম সেটা ডিফেন্ড করার মতো।’ যোগ করেন তরুণ এই ব্যাটসম্যান।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

ইভেন্ট সামনে রেখে রানের ক্ষুধা বাড়ে নাইমের

Read Next

সাইফ-মজিদের জোড়া সেঞ্চুরিতে এগিয়ে ঢাকা, বিজয়-কায়েসের ব্যর্থতাতেও এগিয়ে খুলনা

Total
16
Share