আয়ারল্যান্ডকে হারিয়ে সুপার টুয়েলভে নামিবিয়া

আয়ারল্যান্ডকে হারিয়ে সুপার টুয়েলভে নামিবিয়া

এবারে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম পর্বে দারুণ চমক দেখাচ্ছে আইসিসির সহযোগী সদস্য দলগুলো। তবে নামিবিয়া যা করেছে তা রীতিমত অবিশ্বাস্যই বলা যায়। ‘এ’ গ্রুপে তাদের তিন প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা, আয়ারল্যান্ড, নেদারল্যান্ডস। শ্রীলঙ্কাকে এক পাশে রাখলেও আয়ারল্যান্ড বর্তমানে আইসিসির পূর্ণ সদস্য, বিশ্ব মঞ্চে নেদারল্যান্ডসও পরিচিত। অথচ শ্রীলঙ্কার সাথে এই গ্রুপ থেকে সুপার টুয়েলভ নিশ্চিত করলো প্রথমবার বিশ্বকাপ খেলতে আসা নামিবিয়া।

আজ (২২ অক্টোবর) শারজাহ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বাঁচা-মরার লড়াইয়ে মুখোমুখি হয় আয়ারল্যান্ড ও নামিবিয়া। যে দল জিতবে সে দলই খেলবে সুপার টুয়েলভ, এমন ম্যাচে আইরিশদের ৮ উইকেটে হারিয়ে ইতিহাস গড়লো নামিবিয়া।

২০১৯ সালে স্বীকৃত আন্তর্জাতি টি-টোয়েন্টি খেলা দলটির এই স্বপ্ন যাত্রায় অন্যতম সারথী দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক ক্রিকেটার ডেভিড ভিসা। যিনি এবার খেলছেন নামিবিয়ার হয়ে। নেদারল্যান্ডসের পর আজ আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষেও দেখান অলরাউন্ড নৈপুণ্য।

টস জিতে আগে ব্যাট করা আয়ারল্যান্ড ৮ উইকেটে তোলে ১২৫ রান। অধিনায়ক জেরহার্ড এরাসমাসের অপরাজিত ৫৩ ও ডেভিড ভিসার অপরাজিত ২৮ রানের ক্যামিওতে ৮ উইকেট ও ৯ বল হাতে রেখেই লক্ষ্যে পৌঁছায় নামিবিয়া।

আগে ব্যাট করতে নেমে আইরিশ দুই ওপেনার পল স্টার্লিং ও কেভিন ও ব্রায়েন এনে দেন উড়ন্ত সূচনা। ৭.২ ওভার স্থায়ী উদ্বোধনী জুটিতেই আসে ৬২ রান। ২৪ বলে ৫ চার ১ ছক্কায় ৩৮ রান করে স্টার্লিং ফিরলে ভাঙে জুটি। ৫ রানের ব্যবধানে ও ব্র্যায়েনও ফেরেন ২৪ বলে ২৫ রান করে।

দুজনের বিদায়ের পরই ভূতুড়ে ব্যাটিং আয়ারল্যান্ডের। ক্রিজে টিকেও খুব বেশি কিছু করতে পারেননি অধিনায়ক অ্যান্ড্রু বালবার্নি। ২৮ বলে তার ব্যাটে ২১ রান, এরপর ক্রিজের আসা কোনো আইরিশ ব্যাটসম্যান ছুঁতে পারেনি দুই অঙ্ক। ৮ উইকেটে ১২১ রানেই থামতে হয়।

নামিবিয়ার হয়ে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট পেসার জান ফ্রাইলিঙ্কের। ডেভিড ভিসা নেন ২ উইকেট, একটি করে শিকার বার্নার্ড স্কল্টজ ও জে জে স্মিটের।

লক্ষ্য তাড়ায় নামা নামিবিয়া উদ্বোধনী জুটিতে তোলে ২৫ রান। কুর্টিস ক্যাম্ফারের বলে কেভিন ও ব্রায়েনকে ক্যাচ দিয়ে ওপেনার ক্রেইগ উইলিয়ামস ফেরেন ১৫ রান করে। তবে অধিনায়ক জেরহার্ড এরাসমাসকে নিয়ে আরেক ওপেনার জ্যান গ্রিন যোগ করেন ৪৮ রান। তাতে দলের জয়ের পথটা হয় মসৃণ।

৩২ বলে ২৪ রান করে গ্রিন ফেরেন ক্যাম্ফারের বলে ও ব্রায়েনের আরেকটি দুর্দান্ত ক্যাচ হয়ে। তবে বাকি পথ অনায়েসেই পাড়ি দেন এরাসমাস ও ডেভিড ভিসা। দুজনের অবিচ্ছেদ্য ৫৩ রানের জুটিতে ৯ বল হাতে রেখেই স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দেয় নামিবিয়া।

৪৯ বলে ৩ চার ১ ছক্কায় অপরাজিত ৫৩ রানের অধিনায়কোচিত ইনিংস এরাসমাসের ব্যাটে। ১৪ বলে ১ চার, ২ ছক্কায় অপরাজিত ২৮ রানে কাজ সহজ করেন ভিসা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

আয়ারল্যান্ড: ১২৫/৮ (২০ ওভার) স্টার্লিং ৩৮, ও ব্রায়েন ২৫, বালবার্নি ২১, ডেলানি ৯, ক্যাম্ফার ৪, টেক্টর ৮, রক ৫, অ্যাডায়ার ৫, সিমি ৫*, ইয়াং ১* ; রুবেন ৩-০-১৮-০, ভিসা ৪-০-২২-২, স্মিট ৪-০২৭-১, স্কল্টজ ৩-০-২৫-১, ফ্রাইলিঙ্ক ৪-০-২১-৩, ফ্রান্স ২-০-১১-০।

নামিবিয়া: ১২৬/২ (১৮.৩ ওভার) উইলিয়ামস ১৫, গ্রিন ২৪, এরাসমাস ৫৩*, ভিসা ২৮*; লিটল ৪-০-২২-০, ইয়াং ৩.৩-০-৩৩-০, অ্যাডায়ার ১.৪-০-১২-০, ক্যাম্ফার ৩-০-১৪-২, ও ব্রায়েন ২.২-০-১৫-০, সিমি ৪-০-২৮-০।

ফল: নামিবিয়া ৮ উইকেট ও ৯ বল হাতে রেখে জয়ী

ম্যাচসেরাঃ ডেভিড ভিসা (নামিবিয়া)।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

কয়েকটি ম্যাচ মিস করবেন উইলিয়ামসন, জানালেন কোচ

Read Next

চট্টগ্রামের স্মৃতি শারজাতে, খালি হাতে বাড়ি ফিরছে নেদারল্যান্ডস

Total
8
Share