সুপার টুয়েলভেও অঘটন ঘটাতে মুখিয়ে আছে স্কটল্যান্ড

সুপার টুয়েলভেও অঘটন ঘটাতে মুখিয়ে আছে স্কটল্যান্ড

বিশ্বকাপ মানেই যেন উত্তেজনায় টইটুম্বুর প্রতিটি ম্যাচ। আর প্রতিটি ম্যাচই যেন রোমাঞ্চ ছড়ায় পারদে পারদে। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের রোমাঞ্চ একটু বেশিই ছড়ায়। তবে বিশ্বকাপে মহাকাব্যের রচনা করে আইসিসির সহযোগী দল গুলোই।

নিজেদেরকে প্রমান করার জন্য তাদের এই একটি মঞ্চ বিশ্বকাপের বাছাই পর্ব। তাছাড়া আর বড় দলগুলোর সাথে খেলার সুযোগ কোথায়! তাই বিশ্ব মঞ্চেই দুর্দান্ত পারফর্ম করতে মরিয়া হয়ে থাকে দলগুলো। তাদের জয়গুলো অঘটন নামেই জায়গা করে নেয় ক্রিকেট দুনিয়ায়।

এরকম অঘটনই সাহস জাগায় সহযোগী দলগুলোর। ২০০৯ সালের টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচেই ইংল্যান্ডকে হারিয়ে দেয় নেদারল্যান্ডস। তাও আবার হোম অফ ক্রিকেট লর্ডসে। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৪ উইকেটের ঐতিহাসিক জয় পায় ডাচরা।

নেদারল্যান্ডস ২০১৪ সালের বিশ্বকাপেও সুপার টেনের ম্যাচে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে ইংল্যান্ডকে ৪৫ রানে হারিয়ে দেয়।

এবারের টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম পর্বের ম্যাচে বাংলাদেশকে হারিয়ে দেয় স্কটল্যান্ড। বিশ্ব আসরে তাদের এই জয় গুলোয় প্রমান দিতে চায় নিজেদের সামর্থের। তবে বড় দদলগুলোর সাথে নিয়মিত খেলতে না পারায় অভিজ্ঞতার ঘাটতিতে সবসময় তারা সেই সুখের দেখা পায় না।

এই জয়ে এবারের বিশ্বকাপে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই সুপার টুয়েলভে পাড়ি জমায় স্কটিশরা। গ্রুপ পর্বের শেষ খেলায় ওমানকে হারিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়া নিশ্চিত করে স্কটল্যান্ড। ম্যাচ শেষে সুপার টুয়েলভে আরও অঘটন ঘটাতে স্কটিশরা প্রস্তুত বলে জানান স্কটিশ বাঁহাতি স্পিনার মার্ক ওয়াট।

ওয়াট বলেন, ‘সহযোগী সদস্য হিসেবে আমরা জিততেই হবে এমন খেলায় অভ্যস্ত। সবসময় আমাদেরকে জিততেই হবে এমন পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যেতে হয়। যা আমাদের জন্য কঠিন। ছেলেরা জিততেই হবে এমন ম্যাচ খেলে অভ্যস্ত হয়ে গেছে এবং শেষ পর্যন্ত আমরা পয়েন্ট তালিকায় শীর্ষে অবস্থান করছি।’

নিজেদের উপর বিশ্বাস ছিল উল্লেখ করে ওয়াট বলেন, ‘এই সাফল্য অসাধারণ তবে অবিশ্বাস্য নয়। আমরা পুরোপুরি বিশ্বাস করতাম যে আমরা এটা করতে পারবো এবং ছেলেরা এটা করে দেখিয়েছে।’

বোলিং এ দুর্দান্ত করেছে স্কটিশ সিমার এবং স্পিনাররা। স্টাম্প টু স্টাম্প বল করে ব্যাটারদের সবসময় চাপে রাখে স্কটিশ বোলাররা। এতে তিনি দলের বিশ্লেষক জর্জ মাকনিলের প্রশংসা করেন।

তিনি বলেন, ‘আমাদের বিশ্লেষক জর্জ ম্যাকনিল দারুণ কাজ করেছেন, তিনি আমাদের জন্য ঘন্টার পর ঘন্টা শ্রম দিয়েছেন। আমি মনে করি আমরা পরিকল্পনা অনুযায়ী বল করতে পেরেছি। ‘

গ্রুপ পর্বের দুর্দান্ত পারফর্ম করে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে গ্রুপ ২ এ ভারত, পাকিস্তান, নিউজিল্যান্ড এর মতো শক্তিশালী প্রতিপক্ষের মুখোমুখি হবে স্কটিশরা। সুপার টুয়েলভেও অঘটন ঘটাতে মুখিয়ে আছে স্কটল্যান্ড।

ওয়াট বলেন, ‘আমি মনে করি আমরা আরও কিছু অঘটন ঘটাতে যাচ্ছি। আমরা এটা আগেও করেছি। আমরা বিশ্বের অন্যতম সেরা ওয়ানডে দল বাংলাদেশকে হারিয়েছি। আমি মনে করি আমরা ভালো ফর্মে আছি ও দলগুলো আমাদেরকে হালকা ভাবে নেবে না। তাদের স্কটল্যান্ডকে নিয়ে চিন্তিত হওয়া উচিত।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

আইপিএলের দল পাবার দৌড়ে রনবীর-দীপিকাও

Read Next

শ্রীলঙ্কাকে মূল পর্বে উঠিয়ে দিয়ে বিদায় বললেন জয়াবর্ধনে

Total
11
Share