কক্সবাজারে শরিফউল্লাহর বাজিমাত; চট্টগ্রামে ঝলক দেখালেন নাইম

২৩ তম এনসিএলের পূর্নাঙ্গ সূচি
Vinkmag ad

২৩ তম বঙ্গবন্ধু জাতীয় ক্রিকেট লিগের (এনসিএল) তৃতীয় দিনে টায়ার-২ এর ম্যাচে কক্সবাজারে বল হাতে ঢাকা মেট্রোর মোহাম্মদ শরিফউল্লাহর বাজিমাত; মাত্র ৩৪ রানে শিকার করেন ৫ উইকেট। চট্টগ্রামে রাজশাহীর বিপক্ষে ঝলক দেখালেন স্পিনার নাইম হাসান।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে প্রথম দিনই চট্টগ্রাম বিভাগের বিপক্ষে আগে ব্যাট করে ১৬৬ রানে গুটিয়ে যায় রাজশাহী বিভাগ। জবাবে ইয়াসির আলি চৌধুরীর শতরানের ইনিংস ও মুমিনুল-ইরফান শুক্কুরের ফিফটিতে চড়ে চট্টগ্রাম স্কোরবোর্ডে তোলে ৩৪৯ রান।

আগের দিন ব্যাট করতে নেমে ৩ উইকেট হারিয়ে রাজশাহীর সংগ্রহ ছিল ৭৯ রান। জহুরুল ইসলাম অপরাজিত ২১ রানে, আর তৌহিদ হৃদয় ২৬ রানে। এদিন ফিফটি পেয়েছেন জহুরুল, হৃদয় দুজনই। তবে ফিফটির পর বেশিক্ষণ টেকেননি জহুরুল। হাসান মুরাদ তাঁকে ফিরিয়েছেন ৫৩ রানে রেখে। তৌহিদ হৃদয় প্যাভিলিয়নে ফেরেন ৮ রানের ইনিংস খেলে। ব্যর্থ সাব্বির রহমান; ৩৮ বলে ১ চারে করেন কেবল ৬ রান।

এরপর ফরহাদ রেজা আর সানজামুল ইসলামের জুটিতে ২৫০ রানের গণ্ডি পার করে রাজশাহী বিভাগ। ফরহাদ রেজা করেন ৪০ আর সানজামুলের ব্যাট থেকে আসে ৩৯ রান। ২৫৯ রানে থামে রাজশাহী বিভাগের দ্বিতীয় ইনিংস।

চট্টগ্রামের হয়ে বল হাতে ঝলক দেখালেন স্পিনার নাইম হাসান। ৬১ রান খরচায় নেন ৪ উইকেট। এছাড়া মেহেদী হাসান রানা শিকার করেন ৩ উইকেট।

দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট হাতে বাজে শুরু চট্টগ্রামের। সানজামুলের প্রথম আঘাত; ২ রানের বেশি পাননি ওপেনার তাসামুল হক। তিনে নামা ইরফান শুক্কুরও এদিন ব্যর্থ (৭) ।  ২ উইকেট হারিয়ে ১৫ রানে দিন শেষ করেছে চট্টগ্রাম বিভাগ। পিছিয়ে আছে আরও ৬২ রানে; হাতে ৮ উইকেট।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ (রাজশাহী-চট্টগ্রাম)

রাজশাহী বিভাগ ১ম ইনিংসঃ ১৬৬/১০ (৪১.৩ ওভার)

চট্টগ্রাম বিভাগ ১ম ইনিংসঃ ৩৪৯/১০ (১০০ ওভার)

রাজশাহী বিভাগ ২য় ইনিংসঃ ২৫৯/১০ (৯৯ ওভার)

চট্টগ্রাম বিভাগ ২য় ইনিংসঃ ১৫/২ (৭ ওভার)

চট্টগ্রাম বিভাগ ৬২ রানে পিছিয়ে

দ্বিতীয় স্তরের আরেক ম্যাচে কক্সবাজার শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বরিশাল বিভাগ-ঢাকা মেট্রোর দ্বিতীয় দিনের খেলা মাঠে গড়াতে দিল না বৃষ্টি। তুমুল বৃষ্টির কারণে হয়নি একটি বলও। এর আগে অধিনায়ক সাদমান ইসলাম ও মোহাম্মদ শরিফুল্লাহর জোড়া ফিফটিতে অলআউট হওয়ার আগে ২৩৯ রান সংগ্রহ করে ঢাকা মেট্রো। আজ তৃতীয় দিন ৬ রানে অপরাজিত থেকে মোহাম্মদ আশরাফুল ব্যাট হাতে নেমে আউট হন ৩৬ রানে। রান পাননি অধিনায়ক ফজলে মাহমুদ রাব্বি (৬)।

এরপর সালমান হোসেন ইমন আর শামসুল ইসলাম অনিকের ফিফটিতে এগিয়ে যায় বরিশাল। শেষদিকে মনির হোসেনের ৩৯ রানের ইনিংসে স্কোরবোর্ডে ২৪১ রান জমা করে বরিশাল বিভাগ। ঢাকা মেট্রোর ২৩৯ রানের জবাবে ২৪১ রান করে ২ রানে এগিয়ে যায় বরিশাল।

বল হাতে ঢাকা মেট্রোর মোহাম্মদ শরিফউল্লাহর বাজিমাত; মাত্র ৩৪ রানে শিকার করেন ৫ উইকেট। এছাড়া শহিদুল ইসলাম ৪১ রান খরচায় নেন ৪টি উইকেট।

শেষ বিকেলে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট হাতে নামে ঢাকা মেট্রোর ব্যাটসম্যানরা। দুই ওপেনার সাদমান ইসলাম ও রাকিন আহমেদ উইকেট না হারিয়ে ২৫ রান স্কোরবোর্ডে তুলে দিন শেষ করেন। অধিনায়ক সাদমান ১২* ও রাকিন অপরাজিত ১৩ রানে।  ঢাকা মেট্রো দ্বিতীয় ইনিংসে এগিয়ে আছে ২৩ রানে; হাতে ১০ উইকেট।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ (ঢাকা মেট্রো-বরিশাল)

ঢাকা মেট্রো ১ম ইনিংসঃ ২৩৯/১০ (৮২.৫ ওভার)

বরিশাল বিভাগ ১ম ইনিংসঃ ২৪১/১০ (৮৫ ওভার)

ঢাকা মেট্রো ২য় ইনিংসঃ ২৫/০ (১৩ ওভার)

ঢাকা মেট্রো ২৩ রানে এগিয়ে

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

লড়াই করে হারল পাপুয়া নিউ গিনি

Read Next

সাকিব-নাইমের ব্যাটে রান, তবুও স্কোরবোর্ডে ১৫৩

Total
1
Share