৪ লাখ নয়, ১৭ ভোটের বিসিবি নির্বাচনকে কঠিন বলছেন দুর্জয়

নাইমুর রহমান দুর্জয়

নাইমুর রহমান দুর্জয়ের অভিজ্ঞতার ভান্ডার বেশ সমৃদ্ধ। দেশের প্রথম টেস্ট অধিনায়ক, উজ্জ্বল ক্রিকেট ক্যারিয়ার। রাজনীতির মাঠেও সরব উপস্থিতি, বর্তমান সাংসদ। নির্বাচন করে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পরিচালক পদেও আছেন কয়েক দফা। তবে দুর্জয়ের চোখে সাংসদ নির্বাচন নয় কঠিন মনে হয় বিসিবি নির্বাচনকে।

প্রায় চার লাখ ভোটারের মানিকগঞ্জ-১ আসন থেকে জাতীয় সংসদ নির্বাচন করেন দুর্জয়। এদিকে বিসিবির পরিচালক পদে ঢাকা বিভাগ থেকে নির্বাচন করলেও ভোটারের সংখ্যা ২০ এর আশেপাশেই থাকে। কিন্তু সংখ্যা বিবেচনায় বিসিবি নির্বাচনকে সহজ মনে করা হলেও এখানেই কঠিন লড়াই করতে হয়।

আগামীকাল (৬ অক্টোবর) বিসিবি নির্বাচন, ক্যাটাগরি-১ এ (আঞ্চলিক ও জেলা ক্রিকেট সংস্থার প্রতিনিধি) ঢাকা বিভাগে দুই পদের জন্য ৪ জন লড়াই করার কথা ছিল। তবে প্রত্যাহারের তারিখ শেষ হওয়ার পরও নিজেকে সরিয়ে নেন মোহাম্মদ খালিদ হোসেন (মাদারীপুর)।

ফলে ওই দুই পরিচালক পদের জন্য এখন ৩ জনের লড়াই, যদিও আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচন প্রক্রিয়ায় আছেন খালিদও, তার নামে থাকবে ব্যালটও। গতকাল (৪ অক্টোবর) রাজধানীর একটি পাঁচ তারকা হোটেলে কাউন্সিলরদের নিয়ে ‘গেট টুগেদার’ অনুষ্ঠান আয়োজন হয়। সেখানেই সাংবাদিকদের সাথে আলাপে নাইমুর রহমান দুর্জয় বলেন তার কাছে সংসদ নির্বাচনের চেয়ে কঠিন বিসিবি নির্বাচন।

তিনি বলেন, ‘নির্বাচনের সময় তো কিছু টেনশন কাজ করেই। ইলেকশন করলে আসলে রেজাল্ট না আসা পর্যন্ত তো কিছুটা টেনশন কাজ করেই। আসলে আমার কাছে যা মনে হয় যত কম ভোটের নির্বাচন তত বেশি কঠিন। কারণ আমি যেটা অনুভব করি যে, আমি দুইটা ইলেকশন করি একটা (সংসদ) প্রায় চার লাখ ভোটের, আরেকটা ১৭ ভোটের (বিসিবি)। আমার মনে হয় যে এটা (বিসিবি) একটু কঠিন।’

পুরোদস্তুর ক্রিকেট খেলোয়াড়ি জীবন শেষে রাজনীতি, বিসিবি নির্বাচনে সরব দুর্জয়। ম্যাচের আগেরদিন নাকি বির্বাচনের আগেরদিন কঠিন এমন প্রশ্নেও নির্বাচনকেই কঠিন বললেন দেশের প্রথম টেস্ট অধিনায়ক।

তিনি বলেন, ‘ভোট আসলে এমন একটা জিনিস যে মানুষ শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত চিন্তা করে, আর খেলার মাঠের ব্যাপারটা সম্পূর্ন আলাদা। সেখানে আগে থেকে প্রস্তুতির একটা ব্যাপার থাকে, পূর্ব পরিকল্পনা থাকে, খেলা নিয়ে মোটামুটি একটা ধারণা থাকে, তবে নির্বাচনে আপনার ধারণার উপর কিছু নির্ভর করেনা। এটা নির্ভর করছে ভোটাররা কি ভাবছে, তারা কিন্তু শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত চিন্তাভাবনা করে। বুথের ভেতরে গিয়েও অনেকসময় সিদ্ধান্ত বদলায়। একটা অনিশ্চয়তার মধ্যে তো থাকতেই হয়।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বললেন আনা পিটারসন

Read Next

ইমাদ-শাহীনদের অনুরোধ রাখল পিসিবি

Total
11
Share