তাসকিনের ভান্ডারে মুস্তাফিজের অস্ত্র যোগ করতেই এসেছেন মাশরাফি

তাসকিনের ভান্ডারে মুস্তাফিজের অস্ত্র যোগ করতেই এসেছেন মাশরাফি

বিশ্বকাপ সামনে রেখে ৩ অক্টোবর দেশ ছাড়বে বাংলাদেশ। তবে ছুটির মাঝেও মিরপুরে ঘাম ঝরিয়ে যাচ্ছেন কয়েকজন। যাদের মাঝে আছেন পেসার তাসকিন আহমেদও। এমনকি কাটার শিখতে আজ (৩০ সেপ্টেম্বর) ডেকে আনেন খোদ মাশরাফি বিন মর্তুজাকেই।

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বিসিবি কার্যালয় এখন সরব আসন্ন নির্বাচন নিয়ে। সেসবের ফাঁকেই আজ হঠাত দেখা যায় মাশরাফি বিন মর্তুজাকে। তার আগমন যে নির্বাচনী ইস্যুতে নয় সেটা অনুমেয়ই ছিল।

মাশরাফি সোজা চলে যান মূল মাঠে। যেখানে আগে থেকে অনুশীলন করছিলেন সৌম্য সরকার, নুরুল হাসান সোহান,মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, তাসকিন আহমেদরা। ধারণা করা হচ্ছিল সামনে ঘরোয়া ক্রিকেট আছে বলে নিজেই অনুশীলন করবেন।

তবে সব ধারণাকে ভুল প্রমাণ করে মাশরাফি হয়ে পড়লেন মেন্টর। সেন্টার উইকেটে বোলিং অনুশীলন করা তাসকিনকে হাতে ধরে শিখিয়ে দিছিলেন কিছু জিনিস। এই সেশন চলেছে ঘন্টা খানেকের মত।

পরে সাংবাদিকদের সাথে আলাপে তাসকিন জানিয়েছেন কেন হঠাত মাশরাফির আগমন। মূলত পূর্ব পরিকল্পনার অংশ হিসেবেই এমনটা হয়েছে।

তাসকিন বলেন, ‘ভাইয়াকে বলছিলাম একদিন সময় দেওয়ার জন্য। কারণ আমার আসলে পেস, সুইং এইগুলা উন্নতি হচ্ছে কিন্তু আমি স্লোয়ারের দিক থেকে একটু পেছানো। স্লোয়ার বল উন্নতি করতে চাই। ভাইয়াকে বলতাম। ভাইয়ে এসে কিছু গ্রিপ দেখালো যে একেকজনের একেক রকক অ্যাকশন হয়। এইগুলা একটু চেষ্টা করে দেখতে পার।’

‘আমার কাছে ভালো লাগল কিছু কাটারের গ্রিপ দেখিয়েছে। আশা করি এইগুলা প্রয়োগ করলে ফল হবে। মূলত দুই তিনটা গ্রিপ দেখিয়েছে। আর বলেছে একসঙ্গে এত কিছু নিয়ে তো কাজ করা যাবে না। যেহেতু সামনেই অনেক খেলা। আপাতত কাটার ট্রাই করতে বলেছে। তো ওইটাই দেখাল। বলল যদি ভাল লাগে এটা কন্টিনিউ করতে পার। এটা আয়ত্তে এলে আরেকটা।’

‘ব্যস্ততার মাঝে মাশরাফি ভাই আমাকে সময় দিয়েছে এটা অনেক। আমার স্লোয়ার অন্যদের থেকে একটু উইক। কাজেই আজ যে গ্রিপ দেখিয়েছে এইগুলা আগেরগুলোর থেকে ভিন্ন।’

উইকেট বুঝে কাটার করে নিয়মিত সাফল্য পাচ্ছে মুস্তাফিজুর রহমান। যা দেখে শেখার চেষ্টা তাসকিন আহমেদ, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, শরিফুল ইসলামদের। যদিও বাকিদের মত তাসকিনও জানেন তার পক্ষে মুস্তাফিজের মত দক্ষ হওয়া সম্ভব নয়। বরং নিজের বৈচিত্রে কিছুটা ভিন্নতা যোগ করতেই কাটার শিখছেন। নিজের শক্তির জায়গা গতিতেই থাকছে।

ডানহাতি এই পেসার বলেন, ‘পেসের সঙ্গে আমার কোন কম্প্রমাইজ নাই। আমি মুস্তাফিজ হতে পারব না। মুস্তাফিজ কাটার মাস্টার। আমি পেসের সঙ্গে একটু স্লোয়ার যোগ করছি আরকি। আমি কাটার আগেও করতাম। আমারটা একটু সোজা যেত, কম ঘুরত। স্লোয়ারটা কি আসলে সেইম অ্যাকশনে একটু পেস কমে গ্রিপ করা। সেটাই চেষ্টা করছি।’

‘আমার শক্তি যেটা পেস বাউন্স এটার সঙ্গে এটা যোগ হলে আরেকটা বিকল্প হতে পারে। মাশরাফি ভাই বলেছে যদি ভাল লাগে তাহলে চেষ্টা করবা। হয়ত একটু সময় লাগবে। যদি শিখতে পারি আমার মনে হয় ভাল হবে।’

‘মুস্তাফিজের মতো কাটার আমি পারব না। আমার পেসের সঙ্গে, সুইংয়ের সঙ্গে আগের থেকে ভালো কাটার যদি করতে পারি তাহলে একটা বিকল্প বাড়বে। এটা ভালো একটা অস্ত্র হতে পারে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

পাকিস্তান সফর বাতিল করায় ক্ষমা চাইলেন ইসিবি চেয়ারম্যান

Read Next

পোস্টাল ব্যালট, ই-ভোটে বিসিবি নির্বাচন; প্রভাবিত হবেনা বলছে নির্বাচন কমিশন

Total
1
Share