রাজস্থানের পরাজয়ের দিনে উজ্জ্বল কেবল মুস্তাফিজ

featured photo updated v 25

৭৭ রানের ঝড়ো উদ্বোধনী জুটির পরও বড় সংগ্রহ পায়নি রাজস্থান রয়্যালস। হারশাল, চাহালদের দাপুটে বোলিংয়ের সামনে ১৪৯ রানে শেষ হয় স্যামসনদের ইনিংস। মুস্তাফিজের আলো ছাড়ানোর দিনে ব্যর্থ মরিস, সাকারিয়ারা। ম্যাক্সওয়েলের ঝড়ো ফিফটিতে ব্যাঙ্গালোরের ৭ উইকেটের বড় জয়। ১৪ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের তিনে জায়গা শক্ত করল ভিরাট কোহলির দল।

রাজস্থান রয়্যালস নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেটের বিনিময়ে ১৪৯ রান তুলে। গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের ৫০*, শ্রীকর-কোহলি-পাডিকালের ইনিংসে ব্যাঙ্গালোরের সহজ জয়। রাজস্থানের হয়ে বল হাতে সফল কেবল মুস্তাফিজুর রহমান। ৩ ওভারে মাত্র ২০ রান খরচায় ফিজ তুলে দুই উইকেট।

দুবাইয়ে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে এভিন লুইস আর জায়সওয়ালের জুটিতে উড়ন্ত সূচনা পায় রাজস্থান রয়্যালস। তবে রাজস্থান প্রথম উইকেট হারায় ৭৭ রানে। ২২ বলে ৩১ রান করে ফিরে গেলেন জায়সওয়াল। এরপর ব্যর্থ মহিপাল লোমরর (৩)। ঝড়ের গতিতে ফিফটি হাঁকানো এভিন লুইস (৫৮) জর্জ গার্টনের বলে মারতে গিয়ে ক্যাচ আউট হলেন।

আগের দুই ম্যাচে বড় ইনিংস খেলে দলকে টানলেও এদিন ব্যর্থ হলেন সাঞ্জু স্যামসন। তবে প্যাভিলিয়নে ফেরার আগে রয়্যালস অধিনায়কের ব্যাট থেকে আসে ১৯ রান। শেষদিকে ক্রিস মরিসের ১৪ রান ছাড়া আর কেউই দুই অংকের ঘরে পৌঁছাতে পারেনি। ব্যাঙ্গালোরের বোলারদের তোপের সামনে পড়ে লিয়াম লিভিংস্টোন (৬), রাহুল তেওয়াটিয়া (২) ও রিয়ান পরাগ (৯) বিদায় নেন দ্রুত। ফলে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৪৯ রান সংগ্রহ করে রাজস্থান রয়্যালস।

৩৪ রান দিয়ে ৩ উইকেট তুলে নেওয়া হারশাল প্যাটেল ব্যাঙ্গালোরের সেরা বোলার। এছাড়া যুজবেন্দ্র চাহাল ও শাহবাজ আহমেদের দখলে ২টি করে উইকেট।

লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ঝড়ো শুরু কোহলি, পাডিকালের। ক্রমশ ভয়ংকর হয়ে উঠা এই উদ্বোধনী জুটি ভাঙেন মুস্তাফিজুর রহমান। ষষ্ঠ ওভারের দ্বিতীয় বলে পাডিকালকে বোল্ড করলেন মুস্তাফিজুর। ৪টি বাউন্ডারির সাহায্যে ১৭ বলে ২২ রান করে ক্রিজ ছাড়েন দেবদূত পাডিকাল। নিজের দ্বিতীয় ওভারেই সাফল্য পান ফিজ।

পরের ওভারেই রান আউটের কবলে ভিরাট কোহলির ইনিংস। ২৫ রানের ইনিংসে থামেন কোহলি। এরপর শ্রীকর ভরত ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের ব্যাটে চড়ে এগোয় ব্যাঙ্গালোর। ৭৯ রানের এই জুটি নিজের দ্বিতীয় স্পেলে এসেই ভাঙেন মুস্তাফিজুর রহমান। ফিজের শিকার হয়ে শ্রীকর ভরতকে ফিরতে হয় ৪৪ রানে।

ইনিংসের ৯তম ওভারে কার্তিক তিয়াগির বলে ম্যাক্সওয়েলের হাঁকানো নিশ্চিত ৬ লাফিয়ে উঠে বাঁচালেন মুস্তাফিজ। দৌড়ে কেবল ১ রান নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয় ম্যাক্সওয়েলকে।

১৭তম ওভারে ক্রিস মরিসকে তুলোধোনা করে ম্যাক্সওয়েল তুলে নেন ২২ রান। ৩০ বলেই অর্ধশত রান পূর্ণ করে ব্যাঙ্গালোরকে জয়ের প্রান্তে এনে দেন ম্যাক্সি। পরের ওভারের প্রথম বলেই বাউন্ডারি হাঁকিয়ে জয়ের বাকি আনুষ্ঠানিকতা শেষ করেন এবি ডি ভিলিয়ার্স। ১৭ বল হাতে রেখেই রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের ৭ উইকেটের বড় জয়।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ (৪৩তম ম্যাচ)

রাজস্থান রয়্যালসঃ ১৪৯/৯ (২০ ওভার) লুইস ৫৮, জায়সওয়াল ৩১, স্যামসন ১৯, লিভিংস্টোন ৬, মরিস ১৪; হারশাল ৩/৩৪, চাহাল ২/১৮, শাহবাজ ২/১০, ক্রিশ্চিয়ান ১/২১, গারটন ১/৩০

রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরঃ ১৫৩/৩ (১৭.১ ওভার) পাডিকাল ২২, কোহলি ২৫, ম্যাক্সওয়েল ৫০*, ভরত ৪৪, ভিলিয়ার্স ৪*; মুস্তাফিজুর ২/২০

ফলাফলঃ রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর ৭ উইকেটে জয়ী

ম্যাচ সেরাঃ যুজবেন্দ্র চাহাল (রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর)।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

পিসিবিতে বড় পদ পাচ্ছেন আকিব ও মইন

Read Next

ছিটকে গেলেন অর্জুন টেন্ডুলকার, সিমরজিৎের পৌষ মাস

Total
9
Share