দুবাইয়ে পচা শামুকে পা কাটল মুস্তাফিজদের

দুবাইয়ে পচা শামুকে পা কাটল মুস্তাফিজদের

পয়েন্ট টেবিলে উপরে উঠার লড়াইয়ে তলানিতে থাকা সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের কাছে দুবাইয়ে হোঁচট খেল রাজস্থান রয়্যালস। জেসন রয় আর কেন উইলিয়ামসনের ফিফটির সামনে ম্লান হয়ে গেল সাঞ্জু স্যামসনের অনবদ্য ৮২ রানের ইনিংস। ৯ বল বাকি থাকতেই রাজস্থানের করা ১৬৪ রান টপকিয়ে ৭ উইকেটের বড় জয় পেল হায়দ্রাবাদ। অভিষেকেই ম্যাচ সেরা জেসন রয়!

দুবাই আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে আইপিএলের ৪০তম ম্যাচে প্রথমে ব্যাটিং করে ৫ উইকেটের বিনিময়ে ১৬৪ রান করেছে সাঞ্জু স্যামসনের দল। হায়দ্রাবাদের টার্গেট ছিল ১৬৫। ১৮.৩ ওভারেই ম্যাচ বের করে নিয়ে গেল অরেঞ্জ আর্মিরা।

এই ম্যাচে জিতলেও প্লে-অফে উঠার আশা আগেই শেষ সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের। ১০ ম্যাচের মাত্র ২টিতে জিতে টেবিলের শেষেই রইল হায়দ্রাবাদ। আর ১০ ম্যাচে ৮ পয়েন্ট নিয়ে ৬ নম্বরেই রইল রাজস্থান। তবে জমে উঠেছে শেষ চারে উঠার লড়াই। কোলকাতা নাইট রাইডার্স, পাঞ্জাব কিংস, রাজস্থান রয়্যালস ও মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স রয়েছে চার থেকে সাত পর্যন্ত, তবে সব দলের পয়েন্ট ৮ করে।

টস জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন রাজস্থান অধিনায়ক সাঞ্জু স্যামসন। তবে শুরুতেই ওপেনার এভিন লুইসকে ফিরিয়ে রাজস্থান ইনিংসে ধাক্কা দেন ভুবনেশ্বর কুমার। তবে মারমুখী মেজাজে ব্যাটিং করছিলেন ইয়াশভি জায়সওয়াল। ২৩ বলে ৩৬ রান করে সন্দ্বীপ শর্মার বলে আউট হন তিনি।

তবে তিন নম্বরে নেমে সেরা ইনিংসটা খেলে যান রাজস্থান অধিনায়ক স্যামসন। সিদ্ধার্থ কৌলের বলে আউট হওয়ার আগে ৫৭ বলে ৮২ রান করেন সাঞ্জু। তাঁর ইনিংস সাজানো ছিল ৭টি চার ও ৩টি ছক্কা দিয়ে। অরেঞ্জ ক্যাপও এখন তাঁর দখলে।

তবে লোয়ার মিডল অর্ডার সেভাবে দাঁড়াতে পারেনি কেউ। যে কারণে আশা জাগিয়েও ৫ উইকেট হারিয়ে ১৬৪ রানের বেশি করতে পারেনি রাজস্থান। শেষদিকে ভুবনেশ্বর কুমার নিয়ন্ত্রিত বোলিং না করলে আরও বেশি রান তুলতে পারত রাজস্থান।

তবে এদিন ৮২ রানের অনবদ্য ইনিংস খেলে শিখর ধাওয়ান এবং লোকেশ রাহুলকে টপকে গেলেন সাঞ্জু স্যামসন। অরেঞ্জ ক্যাপ এখন স্যামসনের মাথায়। ১০ ম্যাচে তিনি মোট ৪৩৩ রান করেছেন, একটি শতরান ও দুটি অর্ধশতরানের সৌজন্যে।

বল হাতে হায়দ্রাবাদের সিদ্ধার্থ কৌল ৩৬ রানে ২ উইকেট নিয়েছেন। এছাড়া রশিদ খান ৪ ওভারে ৩১ রান দিয়ে নেন ১ উইকেট।

১৬৪ রানের জবাবে ১৬৭ রান করল সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ। জিতল ৭ উইকেটে। ওপেনিংয়ে নামলেন জেসন রয় ও ঋদ্ধিমান সাহা। ১৮ রান করে সাজঘরে ফেরেন ঋদ্ধিমান সাহা। ভাঙে ৫৭ রানের উদ্বোধনী জুটি।

এরপর কেন উইলিয়ামসনকে নিয়ে এগোতে থাকেন রয়। হায়দ্রাবাদের জার্সিতে আইপিএল অভিষেক ম্যাচেই জেসন রয় পেয়ে যান অর্ধশত রানের দেখা। তবে রাজস্থানকে দ্বিতীয় সাফল্য এনে দিলেন চেতন সাকারিয়া। ৬০ রান করে মাঠ ছাড়লেন জেসন রয়। ৪২ বলে তাঁর এই ইনিংস সাজানো ৮ চার ও ১ ছয়ে।

প্রিয়াম গার্গ কোন রান করার আগেই বিদায় করে দেন মুস্তাফিজুর রহমান। চোখ ধাঁধানো ক্যাচ নিলেন ফিজ নিজের বোলিংয়ে। এরপর অভিষেক শর্মাকে সঙ্গে নিয়ে দলকে ৯ বল বাকি থাকতেই দলকে জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে দেন কেন উইলিয়ামসন। ৪১ বলে ৫১ রানে অপরাজিত থাকেন উইলিয়ামসন।

রাজস্থান রয়্যালসের বল হাতে ১টি করে উইকেট নেন মুস্তাফিজুর রহমান, চেতন সাকারিয়া ও মহিপাল লোমরর।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ (৪০তম ম্যাচ)

রাজস্থান রয়্যালসঃ ১৬৪/৫ (২০ ওভার) লুইস ৬, জায়সওয়াল ৩৬, স্যামসন ৮২, লিভিংস্টোন ৪, লোমরর ২৯*; সিদ্ধার্থ ২/৩৬, ভুবনেশ্বর ১/২৮, সন্দ্বীপ ১/৩০, রাশিদ ১/৩১

সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদঃ ১৬৭/৩ (১৮.৩ ওভার) জেসন ৬০, ঋদ্ধিমান ১৮, উইলিয়ামসন ৫১*, অভিষেক ২১*; মুস্তাফিজুর ১/২৬, লোমরর ১/২২, সাকারিয়া ১/৩২

ফলাফলঃ সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ ৭ উইকেটে জয়ী

ম্যাচ সেরাঃ জেসন রয় (সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ)।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

নিজেদের জাত চিনতে ‘এ’ দলের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে চোখ আকবরদের

Read Next

সৌরভ গাঙ্গুলির বন্ধু বিসিবি নির্বাচনে, জানিয়েছেন শুভকামনা

Total
30
Share