সোহান-মাহমুদউল্লাহর ছুটে যাওয়া টেকনিক ধরিয়ে দিচ্ছেন বাবুল

সোহান-মাহমুদউল্লাহর ছুটে যাওয়া টেকনিক ধরিয়ে দিচ্ছেন বাবুল

বিশ্বকাপ মিশনে দেশ ছাড়ার আগে টাইগার ক্রিকেটাররা আছেন ছুটিতে। তবে ছুটি মাড়িয়েও কেউ কেউ নিয়মিত ঘাম ঝরাচ্ছেন মিরপুরের। অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, নুরুল হাসান সোহান তাদের মধ্যে অন্যতম। জাতীয় দলের কোচরা আছেন ছুটিতে, সোহানরা শরণাপন্ন হচ্ছেন দেশি কোচের। কোচ মিজানুর রহমান বাবুলকে ডেকে এনে কাজ করলেন ভুল, ত্রুটি নিয়ে।

বাবুল অবশ্য বলছেন আলাদা করে খুব বেশি যে কাজ হচ্ছে তা না। খুব বেশি সময় নেই বলে নতুন কিছু নয় পুরোনো টেকনিকেই শান দিচ্ছেন গুরু-শিষ্য মিলে। মূলত উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান সোহানের দুঃসময়ের বন্ধু বিসিবির এই কোচ। সোহানের সাথে কাজ করতে এসে কিছুটা সময় ব্যয় করেছেন টাইগারদের টি-টোয়েন্টি দলপতি মাহমুদউল্লাহর সাথেও।

মিরপুরের সেন্টার উইকেটে আজ (২৬ সেপ্টেম্বর) বড় শট অনুশীলনে দেখা যায় মাহমুদউল্লাহ ও সোহানকে। তবে ব্যাটে-বলে সংযোগ হচ্ছিল না খুব একটা। অনুশীলন কাভার করতে আসা সাংবাদিকরাই যেন দূর থেকে বল বাই বলে দিচ্ছেন এটা ক্যাচ, এটা ছক্কা হবেনা, এটা লং অনে ধরা পড়বে ইত্যাদি ইত্যাদি। আর এসব নিয়েই সোহানের সাথে কাজ করতে আসেন বাবুল।

‘ক্রিকেট৯৭’ কে তিনি বলেন, ‘মূলত সোহানের জন্যই আসা, সে বলল স্যার একটু আসেন। যেহেতু বিশ্বকাপ সামনে রেখে প্রস্তুতি নিচ্ছে সেহেতু বাড়তি কিছুতো করার নেই। আর সেই সময়ও তো নেই। এখন শুধু তার জানা জিনিসগুলোকে আরেকটু ঘষামাঝা করা। ও তো নামবে ৫, ৬ কিংবা ৭ নম্বরে, তখন হাতে খুব বেশি ওভার থাকবেনা। দেখা যায় ঐ সময় স্ট্রাইক রেট বাড়িয়ে তবেই রান করতে হচ্ছে।’

167A1250
ছবিঃ বিসিবি/ রতন গোমেজ

‘বড় শট খেলতে হয় ঐ জায়গাগুলোতে। যে কারণে শট খেলা নিয়েই আসলে কাজ করেছি। দেখা যাচ্ছে অনেক শটই খেলছিল, কিন্তু ছক্কা হচ্ছেনা, এই জায়গাগুলো কিছুটা কাজ করা আরকি। মূলত টেকনিকে হাল্কা উন্নতির একটা প্রচেষ্টা। নতুন কোনো কিছুনা, সেটার সময় এখন নেই। বিদেশী কোচরা ছুটিতে ফলে একজন কোচের অধীনে কাজ করলে সুবিধা হয় তাদের সে ভাবনা থেকেই আমাকে বলেছে।’

সোহানের পাশাপাশি মাহমুদউল্লাহকেও কিছু জিনিস দেখিয়ে দিচ্ছিলেন বিসিবির এই কোচ। তবে তাকে নিয়ে খুব বেশি কাজ করার নেই বলেই মত বাবুলের। তার মতে কেবল কিছু ছুটে যাওয়া জিনিসই ধরিয়ে দিচ্ছিলেন টাইগারদের টি-টোয়েন্টি কাপ্তানকে।

বাবুল বলেন, ‘রিয়াদের মত সিনিয়র খেলোয়াড়ের সাথে তো আসলে কাজ করার কিছু নেই। বাংলাদেশের অন্যতম সিনিয়র ক্রিকেটারের একজন সে। ওর সাথে তো নতুন করে করার আসলে কিছু নাই। কিছু জিনিস আছে যেমন ও জানে কিন্তু হচ্ছে না, বেসটা ভালোভাবে রেখে মারলে ভালো হয় এটা সে জানে। তখনই আসলে একটু মনে করিয়ে দেওয়া যে আগে এভাবে ছিল, এরকম থাকলে ভালোভাবে মারতে পারতা। এমন কিছু জিনিস কেবল ধরিয়ে দেওয়া।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

তথ্য পেয়েছেন আফ্রিদি, বদলে যাচ্ছে পাকিস্তানের বিশ্বকাপ স্কোয়াড

Read Next

ঘুরে দাঁড়ানোর মিশনে পাকিস্তানকেই লক্ষ্য করেছে বাংলাদেশ

Total
1
Share