হাসান মাহমুদের অজানা চোটের সমাধান হচ্ছে বিদেশেই!

হাসান মাহমুদ মুস্তাফিজুর রহমান

বেশ সম্ভাবনা জাগিয়ে জাতীয় দলে আবির্ভাব পেসার হাসান মাহমুদের। তবে ৩ ওয়ানডে ও ১ টি-টোয়েন্টিতেই আটকে আছে তার ক্যারিয়ার। পিঠের অজানা এক চোটে মাসের পর মাস মাঠের বাইরে, উত্তর নেই কোথাও। তবে এবার তাকে বিদেশে পাঠানোর ব্যাপারে সচেষ্ট বিসিবি। মাস খানেকের মধ্যে ডানহাতি এই পেসারকে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হবে ভারত, দুবাই কিংবা দক্ষিণ আফ্রিকায়।

চলতি বছর মার্চে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ খেলেই দেশে ফিরতে হয় হাসানকে। এরপর শুরু হয় পুনর্বাসন প্রক্রিয়া। বিসিবির অধীনে দফায় দফায় করানো হয়েছে স্ক্যান, তাতে সমস্যা ধরা না পড়লেও ব্যথার তীব্রতা কমেনি খুব একটা। যে কারণে বল হাতে ফেরার অপেক্ষাটা দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হচ্ছে।

জাতীয় দল তো নয়ই, হাসান এই সময়ে খেলতে পারেননি কোনো ঘরোয়া টুর্নামেন্টেও। সবচেয়ে বড় কথা পুরোদমে বল হাতে অনুশীলনই যে শুরু করা সম্ভব হয়নি তরুণ এই পেসারের।

সমাধান না পেয়ে বিদেশ পাঠানোর চেষ্টা থাকলেও করোনা প্রভাবে সেটিও এতদিন আটকে ছিল। পরিস্থিতি স্বাভাবিকের পথে যাচ্ছে বলে আশার আলো দেখা দিচ্ছে। ইংল্যান্ডে পাঠানোর ইচ্ছে থাকলেও এখনো মেডিকেল ভিসা দিচ্ছে না দেশটি। ফলে ভারত, সংযুক্ত আরব আমিরাত কিংবা দক্ষিণ আফ্রিকা হতে পারে সেরা বিকল্প।

আজ (২৩ সেপ্টেম্বর) মিরপুরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশীস চৌধুরী বলেন, ‘হাসান মাহমুদ বেশ দীর্ঘ সময় আমাদের তত্বাবধানে পুনর্বাসন প্রক্রিয়ার মধ্যে আছে। এর বিভিন্ন পরীক্ষা নীরিক্ষা করেছি, স্ক্যান করেছি। পরীক্ষা নীরিক্ষায় অবশ্য আমরা বড় কোনো সমস্যা পাইনি। আমরা মনে করছি ওর একটা প্রোপার বায়োমেকানিক্যাল বোলিং অ্যাসেসমেন্ট দরকার। যেটা দুর্ভাগ্যজনকভাবে আমাদের এখানে সম্ভব না।’

‘এখন চেষ্টা করছি বিদেশে যেখানে এই সুযোগ-সুবিধাগুলো আছে সেখানে পাঠিয়ে ওর ফুল অ্যাসেসমেন্ট জন্য। করোনার কারণে বিভিন্ন দেশে এখনো বিধি নিষেধ রয়ে গেছে। আমরা দুই-তিন জায়গায় কথা বলছি। সব যদি আমরা ঠিক মতো পারি আশা করছি আগামী দুই-তিন সপ্তাহের মধ্যে আমরা ওকে দেশের বাইরে কোথাও পাঠাতে পারবো টোটাল অ্যাসেসমেন্টের জন্য।’

‘আমাদের হাতে তো বিকল্প কম। আমরা ইংল্যান্ডে পাঠাতে চেয়েছি তবে তারা এখনো মেডিকেল ভিসা দেওয়া শুরু করেনি। আপাতত ভারত, দুবাই ও দক্ষিণ আফ্রিকা আমাদের ভাবনায় আছে। সব জায়গায়তেই আমাদের যোগাযোগ অব্যাহত আছে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

পাকিস্তানের অবস্থা দেখে হতাশ উসমান খাজা, উদাহরণে টানলেন বাংলাদেশকেও

Read Next

চট্টগ্রামে আকবরদের আরও একটি সফল দিন

Total
1
Share