চলে গেলেন জালাল আহমেদ চৌধুরী

চলে গেলেন জালাল আহমেদ চৌধুরী

ক্রিকেট খেলতেন, ক্রিকেট শেখাতেন, ক্রিকেট পরিচালনা করতেন এবং ক্রিকেট নিয়ে দুর্দান্ত লিখতেন। হ্যাঁ এত সব গুণ একজনের মধ্যেই বিদ্যমান ছিল। অথচ আজকের আগেও ‘ছিল’ এর পরিবর্তে লিখতে হত আছে। দেশ বরেণ্য ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব জালাল আহমেদ চৌধুরী যে আর বেঁচে নেই।

রাজধানীর আনোয়ার খান মডার্ন হাসপাতালে আজ (২১ সেপ্টেম্বর) শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন জালাল আহমেদ চৌধুরী। গত ১৫ সেপ্টেম্বর দ্বিতীয় দফা শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে হাসপাতলে ভর্তি হন তিনি।

ফুসফুসের সংক্রমণ ও শ্বাসকষ্টের সমস্যা নিয়ে হাসপাতালের ভেন্টিলেশন ও আইসিইইউতে থাকতে হয়েছিল তাকে। সেখান থেকে আর ফেরা হল না বাসায়। আজ বেলা ১১ টা নাগাদ তার মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে।

জালাল আহমেদ চৌধুরী সত্তর-আশির দশকে খেলেছেন ক্রিকেট। পরে আসেন কোচিং পেশায়। দীর্ঘদিন কাজ করেছেন কোচ হিসেবে। জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক গাজী আশরাফ হোসেন লিপু তারই শিষ্য। তার কাছ থেকে তালিম নিয়েছেন মোহাম্মদ আশরাফুল, তুষার ইমরানের মত ক্রিকেটাররাও।

কাজ করেছেন আবাহনী, মোহামেডান,  কলাবাগান ক্রীড়া চক্র, ভিক্টোরিয়া ক্লাবের প্রধান কোচ হিসেবে। নানা সময়ে প্রধান কোচ কিংবা সহকারী কোচ ভূমিকায় ছিলেন জাতীয় দলেও। আশির দশকে কোচিংয়ে তালিম নিয়েছেন ভারতের পাঞ্জাবে গিয়ে।

তবে ক্রিকেটার, কোচ পরিচয় ছাপিয়ে জালাল আহমেদ নিজেকে একজন গুণী লেখক হিসেবেও তুলে ধরেন। ক্রিকেট নিয়ে তার বিশ্লেষণ মুগ্ধ করতো যে কাউকে। তার লেখনী ছিল যেকোনো প্রজন্মের জন্য শিক্ষার উপকরণে ভরপুর। কাজ করেন বাংলাদেশ টাইমস পত্রিকায়, দ্য নিউ ন্যাশনেও। বাংলা ইংরেজি দুই ভাষাতেই লিখেছেন সমান পারদর্শিতায়।

স্ত্রীকে আগেই হারিয়েছেন, এবার নিজেও পরলোকগমন করলেন। শেষ বয়সে রাজধানীর আজিমপুরের একটি ফ্ল্যাটে বসবাস করেছেন। সন্তানরা থাকেন প্রবাসে। তিন পেশাদার ক্রীড়া সাংবাদিকদের সংগঠন বাংলাদেশ স্পোর্টস জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েসনের সাধারণ সম্পাদকও ছিলেন।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

কোলকাতার কাছে পাত্তাই পেলো না ব্যাঙ্গালোর

Read Next

জিম্বাবুয়ে সিরিজ দিয়ে বিশ্বকাপের প্রস্তুতি নেবে নারী দল

Total
1
Share