মাঠে ফিরছে আইপিএল; ৮ দলের কার কি হাল

রাতেই দেশ ছাড়ছেন সাকিব, অপেক্ষায় থাকতে হচ্ছে মুস্তাফিজকে

অপেক্ষার অবসান, মাঠে ফিরছে আইপিএল মহাযজ্ঞ। ২০২১ আইপিএলের দ্বিতীয় পর্বের প্রথম ম্যাচেই ধোনি-রোহিত দ্বৈরথ। পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে দিল্লি; প্লে অফের দৌড়ে চেন্নাই, ব্যাঙ্গালোর, মুম্বাই। কোলকাতা নাইট রাইডার্স, পাঞ্জাব কিংস, রাজস্থান রয়্যালসের রয়েছে ওপরে ওঠার সুযোগ। তবে সবথেকে সমস্যায় প্রথম পর্ব শেষে তলানিতে থাকা সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের।

২০২১ আইপিএলের বাকি অংশ শুরু হচ্ছে আজ থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাতে। গ্যালারিতে দর্শকদের ফেরার অনুমতিও দেওয়া হয়েছে। সব মিলিয়ে আবারও জমজমাট এক প্রতিযোগিতার সুবাস মিলছে।

দুবাইয়ে রোহিত শর্মার মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স ও মাহেন্দ্র সিং ধোনির চেন্নাই সুপার কিংসের মধ্যে ম্যাচ দিয়ে মাঠে গড়াবে আইপিএলের বাকি অংশ।

প্লে অফ মিলিয়ে ২৭ দিনে মোট ৩১টি ম্যাচ হবে। প্রথমার্ধের ২৯টি ম্যাচের শেষে লিগ টেবিলের শীর্ষে রয়েছে দিল্লি ক্যাপিটালস। আর একেবারে তলানিতে জায়গা হল সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের।

আইপিএল ২০২১ এর পয়েন্ট টেবিলের অবস্থা; কোন দল আছে কোথায়

১. দিল্লি ক্যাপিটালসঃ

৮ ম্যাচে ১২ পয়েন্ট নিয়ে দিল্লি রয়েছে শীর্ষে। তাঁদের নেট রান-রেট +০.৫৪৭।

রিশান পান্টের নেতৃত্বে, দিল্লি ক্যাপিটালস আইপিএল ২০২১ এর প্রথমার্ধে দুর্দান্ত পারফর্ম করে। আইপিএল মাঝপথে বন্ধ হওয়ার আগে আট ম্যাচের মধ্যে ছয়টিই জিতেছিল পান্টের দল। প্রথম পর্বের পর দিল্লি ক্যাপিটালস এখনও পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে রয়েছে।

শ্রেয়াস আইয়ার ফিট হয়ে দলে ফিরে এসেছেন। খেলবেন ২০২১ আইপিএলের বাকি পর্ব। আইয়ার আইপিএলে প্রত্যাবর্তন করলেও রিশাব পান্টকেই নেতৃত্বে রাখছে দিল্লি ক্যাপিটালস ফ্র‍্যাঞ্জাইজি।

দুবাইয়ে সেপ্টেম্বরের ২২ তারিখ দ্বিতীয় পর্বের প্রথম ম্যাচে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের বিপক্ষে মাঠে নামবে দিল্লি ক্যাপিটালস।

২. চেন্নাই সুপার কিংসঃ

৭ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে চেন্নাই সুপার কিংস রয়েছে দ্বিতীয় স্থানে। তাঁদের নেট রান-রেট +১.২৬৩।

চেন্নাই বনাম মুম্বাই ম্যাচ দিয়ে আইপিএল এর দ্বিতীয় পর্বের ম্যাচ শুরু। সাত ম্যাচে পাঁচ জয় নিয়ে সিএসকে আপাতত পয়েন্ট তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে।

আইপিএলের প্রথম পর্বে চেন্নাই দারুন ফর্মে ছিল। সেই ফর্মই ধোনিরা সংযুক্ত আরব আমিরাতেও ধরে রাখতে মরিয়া।

৩. রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরঃ

৭ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে ব্যাঙ্গালোর অবস্থান করছে তিন নম্বরে। তাঁদের নেট রান-রেট -০.১৭১।

প্রথম দফায় সাত ম্যাচের পাঁচটিতে জিতে টেবিলের তৃতীয় স্থানে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর। কাল, সোমবার দ্বিতীয় দফার দ্বিতীয় ম্যাচে নাইটদের মুখোমুখি রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর।

রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের নীল জার্সি উদ্বোধন হয়। কোভিড-যোদ্ধাদের সম্মান জানাতে এই জার্সি পরে খেলবে আরসিবি। প্রথম পর্বে খেলা কাইল জেমিসন এবং অ্যাডাম জাম্পাকে এ বার পাবে না ব্যাঙ্গালোর। তাঁদের বদলে দলে এসেছেন শ্রীলঙ্কার ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা এবং দুশমান্থ চামিরা। ফিন অ্যালেনের জায়গায় ব্যাঙ্গালোর দলে টেনেছে টিম ডেভিডকে।

৪. মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স:

৭ ম্যাচে ৮ পয়েন্ট নিয়ে মুম্বাই রয়েছে চার নম্বরে। তাঁদের নেট রান-রেট +০.০৬২।

মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স ২০২১ আইপিএলের ভারতীয় পর্বে সেভাবে ধারাবাহিকতা দেখাতে পারেনি। সাত ম্যাচের তিনটিতেই হেরে বসেছেন রোহিত শর্মারা।

তবে দ্বিতীয় পর্বের জন্য সংযুক্ত আরব আমিরাতের পরিবেশের সঙ্গে মানিয়ে নিয়েছেন মুম্বাইয়ের ক্রিকেটাররা। ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি বোলিং বিভাগও বিপক্ষ দলগুলিকে চাপে ফেলে দেওয়ার মতো। আত্মবিশ্বাসী মুম্বাই তৈরি চেন্নাইকে হারিয়ে আইপিএলের দ্বিতীয় পর্বে যাত্রা শুরু করতে।

৫. রাজস্থান রয়্যালসঃ

৭ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে রাজস্থান রয়েছে পাঁচ নম্বরে। তাঁদের নেট রান-রেট -০.১৯০।

প্রথম পর্বে সাতটা ম্যাচ খেলে তিন ম্যাচে জয়লাভ করেছে এবং চারটেতে হেরেছে রাজস্থান রয়্যালস। পয়েন্ট টেবিলে তারা আছে পঞ্চম স্থানে। তবে এবার দ্বিতীয় পর্বে একাধিক প্লেয়ার থাকবেন না। বিভিন্ন কারণে নিজেদের নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছেন তাঁরা।

প্রথম পর্বে থাকলেও দ্বিতীয় পর্ব থেকে নাম প্রত্যাহার করে নেন অ্যান্ড্রু টাই। তাঁর বদলি হিসেবে মুস্তাফিজ-মরিসদের সঙ্গী হলেন প্রোটিয়া স্পিনার তাব্রাইজ শামসি। বেন স্টোকসের পরিবর্তে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পেসার ওশানে থমাস, আর জস বাটলারের পরিবর্তে ওপেনার এভিন লুইসকে নিয়েছে রাজস্থান।

৬. পাঞ্জাব কিংসঃ

৮ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে পাঞ্জাব রয়েছে ছয় নম্বরে। তাঁদের নেট রান-রেট -০.৩৬৮।

টানা জয় নিয়ে লিগ টেবিলে উপরে ওঠাই লক্ষ্য পাঞ্জাব কিংসের। ভারতের প্রথম পর্বে থাকা ঝাই রিচার্ডসন, রাইলি মেরডিথ ও ডেভিড মালান নেই আইপিএলের দ্বিতীয় পর্বে। তাঁদের বদলি হিসেবে নাথান এলিস, আদিল রাশিদ ও এইডেন মার্করামকে দলে টেনেছে পাঞ্জাব।

পাঞ্জাব কিংসের ভাগ্য অনেকটাই অধিনায়ক লোকেশ রাহুল এবং মায়াঙ্ক আগারওয়ালের ওপরে নির্ভর করবে।

৭. কোলকাতা নাইট রাইডার্সঃ

৭ ম্যাচে ৪ পয়েন্ট নিয়ে কোলকাতা অবস্থান করছে সাত নম্বরে। তাঁদের নেট রান-রেট -০.৪৯৪।

প্রথম সাতটি ম্যাচে মাত্র দু’টি জয়। চার পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলে সাত নম্বরে কোলকাতা নাইট রাইডার্স।

আগামী ২০ সেপ্টেম্বর রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের বিরুদ্ধে খেলতে নামবে কোলকাতা। এখনও সাতটি ম্যাচ বাকি নাইট রাইডার্সদের। প্লে অফে যেতে হলে প্রায় সব ম্যাচ জিততে হবে তাঁদের। পরিস্থিতি মোটেও সহজ হবে না সাকিব-রাসেলদের। প্যাট কামিন্সের পরিবর্তে অভিজ্ঞ পেসার টিম সাউদিকে নিয়েছে কোলকাতা।

৮. সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদঃ

৭ ম্যাচে ২ পয়েন্ট নিয়ে হায়দ্রাবাদ রয়েছে একেবারে তলানিতে, আট নম্বরে। তাঁদের নেট রান-রেট -০.৬২৩।

২০২১ আইপিএলের প্রথম পর্বটা সবথেকে খারাপ গিয়েছিল সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের। একের পর এক ম্যাচে পরাজয়, ডেভিড ওয়ার্নারকে সরিয়ে কেন উইলিয়ামসনকে অধিনায়ক করা, সব মিলিয়ে নানা সমস্যায় জর্জরিত ছিল। ৭টি ম্যাচের মধ্যে মাত্র ১টিতে জয় পয়েছিল সানরাইজার্স। তাই দ্বিতীয় লেগে একমাত্র সব ম্যাচ জিতলেই শেষ চারে যাওয়ার আশা থাকবে অরেঞ্জ আর্মিদের।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

কথায় নয়, ইংল্যান্ডের কাছ থেকে কাজে প্রমাণ চান আফ্রিদি

Read Next

বিশ্বকাপের আগে ৩ প্রস্তুতি ম্যাচের তারিখ জানালো বিসিবি

Total
1
Share