ধানমন্ডি ক্রিকেট একাডেমিতে ‘নাদির শাহ স্ট্যান্ড’

ধানমন্ডি ক্রিকেট একাডেমিতে 'নাদির শাহ স্ট্যান্ড'

সাবেক ক্রিকেটার ও আইসিসি প্যানেল আম্পায়ার নাদির শাহ ক্যান্সারের সাথে লড়াইয়ে হার মেনে পরলোকগমন করেন গত ১০ সেপ্টেম্বর। তবে শরীরি মৃত্যু হলেও নিজস্ব গুণে, দেশের ক্রিকেটে নিবেদিন প্রাণ হয়ে বেঁচে আছেন ঠিকই। প্রতিষ্ঠাতা সদস্য হিসেবে তাকে শ্রদ্ধা ভরে স্মরণ করেছে ধানমন্ডি ক্রিকেট একাডেমি (ডিসিএ)। ইতোমধ্যে একাডেমিতে ঠাই পেয়েছে তার নামে একটি স্ট্যান্ডও।

২০০০ সালে প্রতিষ্ঠিত ধানমন্ডি ক্রিকেট একাডেমির প্রথম কোচ হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন নাদির শাহ। দীর্ঘ দিনের পথ চলায় পরিবারের সদস্য হিসেবেই ছিলেন। তার মৃত্যুতে দেশের ক্রিকেটাঙ্গণের মত শোকের ছায়া নেমে আসে ধানমন্ডি ক্রিকেট একাডেমিতেও।

গতকাল (১৭ সেপ্টেম্বর) তার স্মরণ সভারও আয়োজন করা হয় একাডেমিতে। যেখানে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক রকিবুল হাসান, বিসিবি গ্রাউন্ডস কমিটির চেয়ারম্যান ও নাদির শাহ’র দীর্ঘদিনের মাঠের সঙ্গী মাহবুব আনাম, ক্রীড়াঙ্গণের সংগঠক ও তার ক্লাব শিষ্যরা।

স্মরণ সভা থেকেই একাডেমিতে নাদির শাহ স্ট্যান্ডের জোর দাবি আসে। সায় দিয়েছেন একাডেমি সংশ্লিষ্ট সহ উপস্থিত সবাই। আর পরদিনই মাঠে শোভা পায় নাদিরের ছবি সম্বলিত স্ট্যান্ড (ক্লাবহাউস)।

পুরো বিষয়টি তুলে ধরে ধানমন্ডি ক্রিকেট একাডেমির প্রেসিডেন্ট আবু এম সবুর বলেন, ‘গতকাল (১৭ সেপ্টেম্বর) আমাদের একাডেমিতে তাকে নিয়ে স্মরণ সভা ছিল। জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক রকিবুল হাসান ভাই, তার দীর্ঘদিনের বন্ধু বিসিবির গ্রাউন্ডস কমিটির প্রধান মাহবুব আনাম ভাই, তার সহকর্মী আম্পায়ার সৈকত (শরফুদ্দোলা ইবনে সৈকত) সহ অনেকেই উপস্থিত ছিল। সেখানেই রকিবুল ভাই প্রস্তাব দেন নাদির কর্ণারের।’

‘আমরা সবাই তার এই প্রস্তাবে তাৎক্ষনিক সাড়া দিয়েছি। আর আজই আমাদের মাঠের যে পাশটায় আমরা বসে আড্ডা দিই, সময় কাটাই কিংবা বিশ্রাম করি সেখানটায় সাইনবোর্ড টাঙিয়ে দিয়েছি নাদির শাহ স্ট্যান্ড নামে। আশা করি এটা ভবিষ্যতেও এভাবেই থাকবে। একাডেমির শিশু, কিশোরদের কাছে নাদিরকে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার অন্যতম মাধ্যমও হবে এই স্ট্যান্ড।’

May be an image of 4 people, people standing and text that says 'S NADIR SHAH STAND'
ছবিঃ ধানমন্ডি ক্রিকেট একাডেমি। বাম থেকে নাদির শাহ স্ট্যান্ডের সামনে একাডেমির প্রেসিডেন্ট আবু এম সবুর, জয়েন্ট সেক্রেটারি তায়েব আফজাল ও জেনারেল সেক্রেটারি আরমান ইসলাম।

নাদির শাহের সাথে ধানমন্ডি ক্রিকেট একাডেমির সম্পর্কের শুরুটা জানাতে গিয়ে সবুর যোগ করেন, ‘ধানমন্ডিতে আমরা ৫০ বছর ধরে ক্রিকেটের সাথে জড়িত। নাদিরদের নিজেদের বাড়ি ৫ নম্বর রোডে। সে সারাজীবন ক্রিকেটই বুঝেছে শুধু, ক্রিকেট ছাড়া তার মাথায় আর কিছু থাকতোনা। আবাহনীর হয়ে খেলেছে। একটা সময় মূল ধানমন্ডি ক্লাবে ভাগাভাগি শুরু হয়ে যায়। আমরা তখন বেরিয়ে যাই।’

‘আর সে সময়টায় নাদিরকে নিয়ে আলোচনা করি কি করা যায়, সে ভাবনা থেকে আজকের ধানমন্ডি ক্রিকেট একাডেমি। যে জায়গায় এখন মাঠ সে জায়গায় ময়লা, আবর্জনা ছিল, রাতে মাদকের আড্ডা, অনৈতিক কাজ হত। পরে আমরা এটাকে একাডেমিতে রূপ দিয়েছি।’

‘সে আমাদের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য, শুরুর দিকের কোচও। বাচ্চাদের সে দারুণভাবে অনুপ্রাণিত করতো। এরপর তার ব্যস্ততা বেড়েছে ঠিকই কিন্তু একাডেমির সাথে সম্পৃক্ত ছিল নিবিড়ভাবে। মৃত্যুর কিছুদিন আগেও আমাকে ফোনে বলতো ঠিকভাবে দেখে রেখো ছেলেদের, আমিতো আমেরিকায় চলে যাবো। আসলে সে আমাদের কিংবদন্তী, আর ধানমন্ডি ক্রিকেট একাডেমির অন্যতম ধারক, বাহক।’

আবু এম সবুরের মত স্মৃতিকাতর একাডেমির জেনারেল সেক্রেটারি আরমান ইসলামও। তিনি বলেন, ‘বাবু ভাই (নাদির শাহ’র ডাকনাম), বাদশা ভাই (জাতীয় দলের সাবেক পেসার জাহাঙ্গীর শাহ বাদশা) আমরা ধানমন্ডি ৫ নম্বরে একসঙ্গে বড় হয়েছি। তিনি আমাদের প্রথম কোচও, তার অধীনেই আমরা তৃতীয় বিভাগে কোয়ালিফাই করেছিলাম।’

উল্লেখ্য, ৫৭ বছর বয়সে জীবনের শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করা নাদির ক্রিকেটের সাথে মিশেছিলেন নিবিড়ভাবে। যিনি জাতীয় দলের সাবেক পেসার জাহাঙ্গীর শাহ বাদশার ছোট ভাই। বাদশার মত জাতীয় দলে না খেলা হলেও ঢাকার ক্লাব ক্রিকেটে নিয়মিত খেলেছেন নাদির শাহ।

আশির দশকে খেলেছেন ভিক্টোরিয়া, আবাহনী, মোহামেডান, বাংলাদেশ বিমান, ব্রাদার্স ইউনিয়ন, সূর্যতরুণ, কলাবাগান, আজাদ বয়েজ ও ধানমন্ডির মত ক্লাবে। ছিলেন লেগ স্পিনার, ব্যাট হাতেও ছিলেন কার্যকরী।

আন্তর্জাতিক আম্পায়ার হিসেবে অভিষেক হয়ে ২০০৬ সালে, বগুড়ায় বাংলাদেশ-কেনিয়া ম্যাচ দিয়ে। আইসিসি প্যানেলের এই আম্পায়ার এরপর পরিচালনা করেছেন ৪০ টি ওয়ানডে ও ৩ টি টি-টোয়েন্টি। টিভি আম্পায়ার হিসাবে ছিলেন ৬ টেস্ট ও ২৩ ওয়ানডেতে। এছাড়া ৭৩ প্রথম শ্রেণির ম্যাচ, ১২৭ লিস্ট এ ম্যাচ ও ৫৪ (৫ টি টিভি আম্পায়ার হিসাবে) টি-টোয়েন্টি ম্যাচ পরিচালনা করেছেন তিনি।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

নিউজিল্যান্ডের ভারত সফরে লখনৌতে ফিরছে টেস্ট ক্রিকেট

Read Next

পাকিস্তান সমর্থক ও ক্রিকেটারদের প্রতি রমিজ রাজার বার্তা

Total
18
Share