ওমান, আরব আমিরাতের উইকেটের জন্য বিকল্প ভাবনা আছে তাসকিনদের

নাসুমের ক্যারিয়ার সেরা বোলিং, ৯৩ এ শেষ কিউইরা

ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টানা দুইটি সিরিজ জিতেছে বাংলাদেশ। তবে বিশ্বকাপ সামনে রেখে উইকেট স্পোর্টিং না হওয়ায় প্রস্তুতি নিয়ে সমালোচনা হয়েছে বেশ। পেসার তাসকিন আহমেদ অবশ্য বলছেন বিশ্বকাপের আগে ওমানের ক্যাম্পে নিজেদের ঝালিয়ে নিতে পারবেন। ওমান ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের উইকেটে ভিন্ন পরিকল্পনায় সফল হওয়ার মন্ত্রও জানালেন।

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৪-১ ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ৩-২ ব্যবধানে সিরিজ জিতেছিল বাংলাদেশ। যেখানে ৯ ম্যাচই হয়েছে স্বাগতিক বাংলাদেশের সহায়ক স্পিন নির্ভর উইকেট। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে শেষ ম্যাচে স্পোর্টিং উইকেট বানিয়ে হারতে হয়েছে ম্যাচও।

অতি মাত্রায় মন্থর উইকেট বানানোয় এই দুই সিরিজের ৯ ম্যাচে জায়গা হয়নি তাসকিনের মত পেসারের। খেলেছেন নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে শেষ ম্যাচে। তবে উইকেট যেমনই হোক বিশ্বকাপ সামনে রেখে অন্তত দুই সপ্তাহ আগে ওমানে পৌঁছে ক্যাম্প করবে বাংলাদেশ। যেখান থেকে বিশ্বকাপের মূল প্রস্তুতি নিতে চায় টাইগাররা।

আজ (১৫ সেপ্টেম্বর) মিরপুরে সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে তাসকিন বলেন আইসিসি ইভেন্ট বলে সংযুক্ত আরম আমিরাত ও ওমানের উইকেট স্পোর্টিং হবে তা মাথায় আছে তাদের। আর সে অনুসারেই পরিকল্পনা করে ম্যাচে প্রয়োগ করতে চান কৌশল।

তিনি বলেন, ‘আসলে প্রস্তুতির জন্য আমরা ১০ দিন পাচ্ছি এবং কিছু প্র্যাকটিস ম্যাচও পাবো, হয়তো তিনটার মত। টি-টোয়েন্টি খেলাটাই…আমাদের যেরকম কন্ডিশনই হোক সেরকম পরিকল্পনামাফিক প্রয়োগ করতে হবে।’

‘যখন কাটার কম ধরে তখন ইয়র্কার বা লেংথ বলের প্রয়োগটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ হবে। অবশ্যই আইসিসি ইভেন্ট, মাথায় থাকবে ফ্ল্যাট ট্র্যাক বা স্পোর্টিং উইকেট হবে। চ্যালেঞ্জিং হবে বোলারদের জন্য তবে একই সময়ে প্রয়োগটা ভালোভাবে করতে পারলে ভালো করার সুযোগও থাকবে।’

এদিকে এর আগে ওমান ও দুইবাইতে না খেলা তাসকিন মুখিয়ে আছেন এই দুই জায়গায় খেলার জন্য, ‘আমি খুবই এক্সাইটেড, কারণ ওমানে এর আগে আমার কখনো খেলতে যাওয়া হয়নি। এমনকি দুবাইতেও যে ইভেন্ট গুলো হয়েছে আমি এখন পর্যন্ত ম্যাচ খেলিনি। ইন শা আল্লাহ আমার জন্য ওমান ও দুবাইতে খেলাটা একদম নতুন হবে যদি সুযোগ হয়। আমি এক্সাইটেড, একই সময়ে আমি চাই ভালো কিছু উপহার দিয়ে ম্যাচ জেতানোর।’

উল্লেখ্য, ৩ অক্টোবর ওমানের উদ্দেশে দেশ ছাড়বে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ স্কোয়াড। সেখানে কয়েকদিনের ক্যাম্প শেষে দুবাইতে ৩ টি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে টাইগাররা। এরপর ১৭ অক্টোবর ওমানে বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের প্রথম ম্যাচে মাথে নামবে।

বাছাই পর্বের বাকি দুই ম্যাচও অনুষ্ঠিত হবে ওমানে। বাছাই পর্ব উতরাতে পারলে মূল পর্বের সুপার টুয়েলভস খেলতে সংযুক্ত আরম আমিরাতের উদ্দেশে আবারও উড়াল দিবে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

বিশ্বকাপের তিক্ত অভিজ্ঞতা পেছনে ফেলে বর্তমানে নজর তাসকিনের

Read Next

প্রথম ওয়ানডের জন্য পাকিস্তানের সেরা ‘১২’

Total
1
Share