বিশ্বকাপের আগে আইপিএল সাকিবের কাছে যেন আসল ‘ট্রামকার্ড’

সাকিব যেদিন মুক্তির আনন্দে শাহরুখ হতে চেয়েছেন

বিশ্বকাপ মাতাতে বাংলাদেশের ভালো সুযোগ দেখছেন অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে যে আত্মবিশ্বাস তৈরি হয়েছে তা নিয়েই বিশ্বকাপ অভিযানে নামতে প্রস্তুত বাংলাদেশ। বিশ্বকাপ শুরুর আগে সাকিব, মুস্তাফিজের আইপিএল খেলতে যাওয়া কাজে আসবে পুরো দলের। সাকিবের মতে, বিশ্বকাপে ভালো করতে দলের বাকিরা ভালো সাহায্য পাবে।

জিম্বাবুয়েকে হারিয়ে এসে ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ডকেও টি-টোয়েন্টি সিরিজ হারিয়েছে টাইগাররা। টানা জয়ে থাকা বাংলাদেশ দলের আত্মবিশ্বাস যেন আকাশচুম্বী। জেতার মানসিকতা তৈরির সঙ্গে বেড়েছে খেলোয়াড়দের আত্মবিশ্বাস। সাকিব বললেন, এমন ম্যাচ জেতানো কনফিডেন্স নিয়েই বিশ্বকাপের মঞ্চে জেতে প্রস্তুত বাংলাদেশ দল।

রাজধানীর এক পাঁচ তারকা হোটেলে সাংবাদিকদের সাকিব বলেন, ‘আমার কাছে তো মনে হয় ভালো সুযোগ আছে। আমাদের প্রস্তুতিটা খুবই ভালো হয়েছে। এসব থেকে বড় কারণ হচ্ছে, শেষ তিনটা সিরিজ আমরা জিততে পেরেছি। হয়তো অনেক সমালোচনা হয়েছে, পিচ নিয়ে, উইকেট নিয়ে, লো স্কোরিং নিয়ে, কিন্তু আমাদের জেতার কোন বিকল্প নেই। একটা দল যখন জিততে থাকে, তাঁদের তখন উইনিং মেন্টালিটিটা থাকে, সেটা আসলে অন্য লেভেলের কনফিডেন্স দেয়। যেটা আপনি অনেক ভালো খেলেছেন কিন্তু ম্যাচ হারছেন তখন ওই কনফিডেন্সটা থাকবে না। সেই কনফিডেন্সটা নিয়ে আমরা বিশ্বকাপে যেতে চাই।’

আইপিএলের বাকি অংশে খেলতে বিশ্বকাপের শুরুর বেশ আগেই সাকিব, মুস্তাফিজ পা রাখবে সংযুক্ত আরব-আমিরাতে। উইকেট, কন্ডিশন নিয়ে ভালো ধারণা পাবে সাকিব-ফিজ। অন্যদেশের প্লেয়ারদের সঙ্গে ড্রেসিংরুম শেয়ার করে জানবে তাঁদের চিন্তা-ভাবনা। যা দেশের সতীর্থদেরও কাজে আসবে বিশ্বকাপে ভালো করতে। আইপিএল আর বিশ্বকাপ নিয়ে অলরাউন্ডার সাকিবের বক্তব্য এমনই,

‘যেহেতু আমাদের হাতে অনেক সময় থাকবে, ইউএইতে ট্রেনিং করার। আমরা প্রায় ১৫-১৬দিন আগে যাব, ওয়ার্ল্ডকাপ শুরু হওয়ার। সেটা আমাদের এনাফ টাইম দিবে, ওই পিচের সাথে, কন্ডিশনের সাথে মানিয়ে নিতে। তাই আমার মনে হয়না যে ওইখানকার পিচ, কিংবা কন্ডিশন নিয়ে বেশি সমস্যা হবে। তাই যেটা কাজ করবে, আমাদের জেতার যে মেন্টালিটিটা তৈরি হয়েছে, বা যে কনফিডেন্সটা আছে সেটা নিয়ে ওয়ার্ল্ডকাপে যেতে পারব।’

‘আশা করি হেল্প (বিশ্বকাপের আগে আইপিএল) করবে। কারণ আমরা যেহেতু ওইখানে থাকব, ওই কন্ডিশনের সাথে প্রতিদিন দেখা হবে আমাদের। আমরা খেলব ওখানে ম্যাচগুলা। আমরা ওই এক্সপেরিয়েন্স শেয়ার করতে পারব সবার সাথে। আমি পারব, মুস্তাফিজ পারবে। ৮টা আইপিএল টিমের দুইটা ফ্র‍্যাঞ্জাইজিতে দু’জন রিপ্রেজেন্ট করছি। প্লেয়ারদের মেন্টালিটি কেমন, ওয়ার্ল্ডকাপ নিয়ে কিভাবে চিন্তা করছে, অন্যান্য দেশের প্লেয়ারদের চিন্তা, এগুলো নিয়ে একটা ধারণা হবে। যে ধারণাগুলো আমরা শেয়ার করতে পারব আমাদের টিমমেটদের সাথে। যেটা হয়ত আমাদের ভালো করতে সাহায্য করবে ওয়ার্ল্ডকাপে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

‘এমন উইকেটে কোন ব্যাটসম্যান ১০-১৫ ম্যাচ খেললে ক্যারিয়ার শেষ’

Read Next

শ্রীলঙ্কার বিশ্বকাপ স্কোয়াডে রহস্যময় স্পিনার থিকশানা

Total
1
Share