‘মাসকো-সাকিব’ ক্রিকেট একাডেমির বোলিং কোচ হচ্ছেন সৈয়দ রাসেল

'মাসকো-সাকিব' ক্রিকেট একাডেমির বোলিং কোচ হচ্ছেন সৈয়দ রাসেল

মাসকো-সাকিব ক্রিকেট একাডেমির বোলিং কোচ হিসেবে চলতি মাসেই যোগ দিচ্ছেন জাতীয় দলের সাবেক বাঁহাতি পেসার সৈয়দ রাসেল। রাসেল জানালেন ক্যারিয়ার হিসেবে কোচিংয়েই থিতু হতে চান।

এর আগে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) এ ঢাকা প্লাটুনের পেস বোলিং কোচ হিসেবে কাজ করেছেন ২০১৯-২০ মৌসুমে। পরে কাজ করেছেন খুলনা বিভাগীয় দলের সহকারী কোচ হিসেবেও।

এবার কাজ করবেন টাইগার অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান ও মাসকো গ্রুপের যৌথ উদ্যোগে নারায়ণঞ্জের রুপগঞ্জে অবস্থিত ‘মাসকো-সাকিব’ ক্রিকেট একাডেমিতে। যেখানে প্রধান কোচ হিসেবে ইতোমধ্যে কাজ করছেন সাকিবের শৈশব কোচ, দেশের অন্যতম সেরা কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দিন।

‘মাসকো-সাকিব’ ক্রিকেট একাডেমিতে যোগ দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন ‘ক্রিকেট৯৭’ কে সৈয়দ রাসেল বলেন, ‘হ্যাঁ, আমি সাক্ষাৎকার দিয়েছি। ৮ তারিখ থেকে যোগ দিব। এখানে সালাউদ্দিন স্যার আছে, কোচ ও সাপোর্ট স্টাফ হিসেবে খুলনার অনেকেই আছে। উনারা আমাকে স্থায়ীভাবে চাচ্ছেন, দেখা যাক আগে যোগ দিই।’

ঢাকা প্লাটুনের হয়ে কাজ করার পর দেশের ক্লাব ক্রিকেটে কোথাও দেখা যায়নি রাসেলকে। তবে তার ইচ্ছে আছে এখন থেকে কোচিং পেশাতেই পূর্ণ মনযোগ দেওয়ার। যদিও ক্লাব ক্রিকেটে নিয়োগ পাওয়ার বিষিয়টি যে চ্যালেঞ্জিং সেটিও মানছেন সাবেক এই বাঁহাতি পেসার।

তিনি বলেন, ‘আমি এখন থেকে নিজেকে কোচিং পেশায় নিয়মিত রাখতে চাই। আমার ভবিষ্যত ক্যারিয়ার কোচিংয়েই প্রতিষ্ঠিত করার ইচ্ছে। তবে আসলে বিপিএল বলেন, ক্লাব ক্রিকেট বলেন, এসব জায়গায়তো পরীক্ষিত কোচদের নেওয়া হয়। আমারতো সেভাবে অভিজ্ঞতা নেই। এখনো পর্যন্ত সেভাবে প্রস্তাবও পাইনি। তবে আমি প্রস্তুত, দেখা যাক সামনে কি হয়।’

উল্লেখ্য, ৩৭ বছর বয়সী সাবেই এই পেসার বাংলাদেশের জার্সিতে খেলেছেন ৬ টেস্ট, ৫২ ওয়ানডে ও ৮ টি-টোয়েন্টি। উইকেট নিয়েছেন যথাক্রমে ১২, ৬১ ও ৪ টি। ২০০৫ সালে জাতীয় দলের অভিষেকের পর ২০১০ সালে খেলেছেন সর্বশেষ ম্যাচ। ২০১৮ সাল পর্যন্ত অবশ্য নিয়মিত ছিলেন ঘরোয়া ক্রিকেটে।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

কিউইদের কাছে হারে দায় নিজের কাঁধে নিচ্ছেন লিটন দাস

Read Next

এমন উইকেটেও সফল হবার উপায় জানালেন লিটন দাস

Total
125
Share