নিকোলস-ব্লান্ডেল জুটিতে ঘুরে দাড়াল নিউজিল্যান্ড

নিকোলস-ব্লান্ডেল জুটিতে ঘুড়ে দাড়াল নিউজিল্যান্ড

সিরিজের তৃতীয় ম্যাচে এসেই বাংলাদেশের স্পিনারদের সামলে নেওয়ার কাজটা ভালোই করেছে নিউজিল্যান্ড। তবে এদিন মুস্তাফিজুর রহমানের সাথে কাটার নিয়ে হাজির মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনও। আর তাতেই দারুণ শুরু পেয়েও পথ হারায় কিউইরা। তবে হেনরি নিকোলস ও টম ব্লান্ডেলের ব্যাটে চড়ে শেষ পর্যন্ত লড়াকু পুঁজি পায় সফরকারীরা।

আগের দুই ম্যাচ হেরে পিছিয়ে পড়ে সিরিজ বাঁচাতে জিততেই হবে এমন ম্যাচে বাংলাদেশকে ১২৯ রানের লক্ষ্য দিয়েছে নিউজিল্যান্ড। সর্বোচ্চ অপরাজিত ৩৬ রান হেনরি নিকোলসের ব্যাটে। ৩০ রানে অপরাজিত ছিলেন টম ব্লান্ডেল।

প্রথম ম্যাচে মিরপুরের ৫ নম্বর উইকেটে কিউইরা অলআউট হয়েছিল মাত্র ৬০ রানে। তবে একই উইকেতে আজ শুরু থেকেই মিলেছিল ভালো কিছুর আভাস, টস জিতে আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক টম লাথাম। এদিন টস করতে নেমেই বিশ্বের ৮ম ক্রিকেটার হিসেবে ১০০তম আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি খেলতে নামেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

প্রথম ওভারেই শেখ মেহেদীকে ২ বাউন্ডারি হাঁকান ফিন অ্যালেন। মার্চে বাংলাদেশের বিপক্ষে অভিষেক হওয়া এই ডানহাতি করোনা পজিটিভ হওয়ায় চলতি সিরিজের প্রথম ২ ম্যাচে খেলতে পারেননি। অ্যালেন স্পিনে সাবলীল খেলছিল বলে সিরিজ প্রথমবার তৃতীয় ওভারেই পেসার মুস্তাফিজুর রহমানকে ডেকে আনেন টাইগার অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

নিজের প্রথম বলেই আক্রমণাত্মক শুরু করা অ্যালনকে ফেরান মুস্তাফিজ। অফ কাটারে বোকা বানিয়ে মিড অফে রিয়াদের ক্যাচে পরিণত করেন কিউই ওপেনারকে। অ্যালেন থেমেছেন ১০ বলে ১৫ রান করে। মুস্তাফিজের উইকেট মেইডেন।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by cricket97 (@cricket97bd)

অ্যালেন ফিরলে চতুর্থ ওভারে আক্রমণে আসা সাকিবকে দাউন দ্য ট্র্যাকে এসে ওয়াইড মিড ও ব্যাকওয়ার্ড স্কয়ার লেগ দিয়ে দুই চারে ইতিবাচক শুরু উইল ইয়াংয়ের। ইয়াংয়ের সাথে হাত খুলে খেলতে শুরু করেন ওপেনার রাচিন রবীন্দ্রও। নাসুম আহমেদের করা ৬ষ্ঠ ওভারে আম্পায়ার ৫ বলে ওভার দিলে পাওয়ার প্লেতে ১ উইকেট হারিয়ে ৪১ রান কিউইদের।

তবে ৭ম ওভারেই মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের বলে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন ইয়াং। আগের বলেই অবশ্য হাঁকান চার। ২০ বলে ৩ চারে ফিরেছেন ২০ রান করে। এক বল বিরতি দিয়ে সাইফউদ্দিন ভেতরে ঢোকানো বলে খালি হাতে এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলেন কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমকে।

একপাশ আগলে রাখা রবীন্দ্রকে বোল্ড করে ২০ রানেই থামান মাহমুদউল্লাহ। ৪ রানের ব্যবধানে শেখ মেহেদীকে ফরতি ক্যাচ দেন আগের ম্যাচে দারুণ এক ইনিংস খেলা কিউই দলপতি টম লাথাম। আর তাতেই ১৬ রানের ব্যবধানে ৪ উইকেট হারিয়ে ৫ উইকেটে ৬২ রানে পরিণত হয় নিউজিল্যান্ড।

সেখান থেকে উইকেট বাঁচিয়ে রেখে টম ব্লান্ডেল ও হেনরি নিকোলসের ৫৫ বলে অবিচ্ছেদ্য ৬৬ রানের জুটি। শেষ দিকে চড়াও হয়ে দলীয় সংগ্রহ দাঁড় করান ১২৮। শেষ ৩ ওভারে আসে ৩৩ রান। মুস্তাফিজের করা ১৮ ও ২০ তম ওভারে আসে যথাক্রমে ১৩ ও ১১ রান। মাঝে ১৯তম ওভারে সাইফউদ্দিন দেন ৯ রান।

শেষ ওভারে ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে সাকিব ক্যাচ মিস করেন ব্লান্ডেলের। শেষ পর্যন্ত অপরাজিত ছিলেন ৩০ বলে ৩ চারে ৩০ রান। অন্যদিকে নিকোলস অপরাজিত ছিলেন ২৯ বলে ৩ চারে ৩৬ রানে।

বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ ২ উইকেট সাইফউদ্দিনের। একটি করে নেন শেখ মেহেদী, নাসুম ও মাহমুদউল্লাহ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর (১ম ইনিংস শেষে):

নিউজিল্যান্ড ১২৮/৫ (২০), অ্যালেন ১৫, রবীন্দ্র ২০, ইয়াং ২০, গ্র্যান্ডহোম ০, ল্যাথাম ৫, নিকোলস ৩৬*, ব্লান্ডেল ৩০*; মেহেদী ৪-০-২৭-১, মুস্তাফিজ ৪-১-২৯-১, সাইফউদ্দিন ৪-০-২৮-২, মাহমুদউল্লাহ ২-০-১০-১।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

করোনা পজিটিভ হয়ে আইসোলেশনে রবি শাস্ত্রী

Read Next

কামরান আকমলের পছন্দের পাকিস্তান বিশ্বকাপ স্কোয়াড

Total
6
Share