আফ্রিদির দাপটে পাকিস্তানের জয়, বাঁচল সিরিজ

শাহীন শাহ আফ্রিদি পাকিস্তান

জ্যামাইকাতে শেষদিনে রোমাঞ্চের অপেক্ষায় ছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ-পাকিস্তান টেস্ট। তবে সব আলো নিজের করে নিয়ে পাকিস্তানকে জেতালেন শাহীন শাহ আফ্রিদি। ১০৯ রানে উইন্ডিজকে হারাল বাবর আজমের দল। বল হাতে দাপট দেখানো আফ্রিদি জিতলেন ম্যাচ ও সিরিজ সেরার পুরষ্কার। দুই ম্যাচের সিরিজ ১-১’এ ড্র।

প্রথম ইনিংসে ৬ ও দ্বিতীয় ইনিংসে ৪ উইকেট (মোট ১০ উইকেট) শিকার করে ম্যাচ সেরার পুরষ্কার জিতেছেন শাহীন শাহ আফ্রিদি। ৯৪ রান খরচে ১০টি উইকেট, টেস্টে যা আফ্রিদির ক্যারিয়ার সেরা বোলিং ফিগার। এছাড়া পুরো সিরিজে মোট ১৮টি উইকেট (প্রথম টেস্টে ৮ ও দ্বিতীয় টেস্টে ১০) নিয়ে জিতলেন সিরিজ সেরার পুরষ্কারও।

চতুর্থ দিনের শেষে ১ উইকেট হারিয়ে স্বাগতিকরা সংগ্রহ করেছিল ৪৯ রান। জয়ের জন্য টেস্টের শেষ দিন প্রয়োজন ছিল ২৮০ রান। আর পাকিস্তানের প্রয়োজন ৯টি উইকেট।

ব্র‍্যাথওয়েট ১৭ রানে, আলজারি জোসেফ ৮ রানে অপরাজিত থেকে এদিন ব্যাটিংয়ে নামেন। তবে আলজারিকে দ্রুতই ফিরিয়ে দেন শাহীন শাহ আফ্রিদি। এরপর হাসান আলির আঘাত উইন্ডিজ ব্যাটিং লাইনে। রান পাননি এনক্রুমাহ বোনার (২)। নিজের দ্বিতীয় উইকেট তুলে নিতে বেশি সময় নেননি হাসান। রোস্টন চেজকে শূন্য রানে রেখেই বিদায় করেন।

ক্রেইগ ব্র‍্যাথওয়েটের সঙ্গে জুটি গড়ে রানের চাকা এগোতে থাকেন জার্মেইন ব্ল্যাকউড। তবে ৫৪ বলে ২৫ করা ব্ল্যাকউড নওমানের পিছনে ক্যাচ তুলে ফিরলে ভাঙ্গে ২৮ রানের জুটি। ইনিংস বড় করতে পারেননি অধিনায়ক ক্রেইগ ব্র‍্যাথওয়েটও। ৩৯ রানের ইনিংসে ব্র‍্যাথওয়েটকে ফেরান সেই নওমান আলিই। ১১৩ রান সংগ্রহ করতেই ক্যারিবিয়ানদের নেই ৬ উইকেট।

কাইল মেয়ার্স ও জেসন হোল্ডারের জুটিতে লড়াইয়ে ফেরার চেষ্টা। ৪৬ রানের জুটিও হয়। তবে মেয়ার্সকে ৩২ রানে ফিরিয়ে ম্যাচ জয়ের পথ থেকে উইন্ডিজকে পুরোপুরি ছিটকে ফেলে দেন শাহীন শাহ আফ্রিদি। এরপর জশুয়া ডা সিলভাকে নিয়ে ফের জুটি গড়ার চেষ্টা করেন জেসন হোল্ডার।

হোল্ডার অর্ধশত রানের দ্বারে থেকে দেখা পাননি। ৪৭ রানে রেখে জেসন হোল্ডারকে প্যাভিলিয়নে পাঠান নওমান আলি। নিশ্চিত হয়ে যায় পাকিস্তানের জয়। এরপর পরপর দুই ওভারে কেমার রোচ (৭) ও জশুয়া ডা সিলভাকে (১৫) আউট করে শাহীন শাহ আফ্রিদি পাকিস্তানের জয় নিশ্চিত করেন। ২১৯ রানে ওয়েস্ট ইন্ডিজ অলআউট। ১০৯ রানের বড় জয় পাকিস্তানের।

বল হাতে ৪৩ রান খরচায় সর্বোচ্চ ৪ উইকেট শাহীন শাহ আফ্রিদির শিকার। এছাড়া নওমান আলি ৩টি ও হাসান আলির দখলে ২টি করে উইকেট।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

পাকিস্তান ১ম ইনিংসঃ ৩০২/৯ডিক্লে. (১১০ ওভার) আবিদ ১, ইমরান ১, আজহার ০, বাবর ৭৫, ফাওয়াদ ১২৪*, রিজওয়ান ৩১, ফাহিম ২৬, আফ্রিদি ১৯; রোচ ২৭-৯-৬৮-৩, সিলস ১৫-৪-৩১-৩, হোল্ডার ২৩-৯-৪৬-২

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১ম ইনিংসঃ ১৫০/১০ (৫১.৩ ওভার) ব্র‍্যাথওয়েট ৪, পাওয়েল ৫, চেজ ১০, বোনার ৩৭, ব্ল্যাকউড ৩৩, হোল্ডার ২৬; আফ্রিদি ১৭.৩-৭-৫১-৬, আব্বাস ১৮-৬-৪৪-৩ ফাহিম ৭-৪-১৪-১

পাকিস্তান ২য় ইনিংসঃ ১৭৬/৬ডিক্লে. (২৭.২ ওভার) ইমরান ৩৭, আবিদ ২৯, আজহার ২২, বাবর ৩৩, হাসান ১৭, ফাহিম ৯, রিজওয়ান ১০*; জোসেফ ৪.২-০-২৪-২, হোল্ডার ৬-০-২৭-২, ব্র‍্যাথওয়েট ৪-০-২৮-১, মেয়ার্স ৭-০-৪৩-১

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২য় ইনিংসঃ ২১৯/১০ (৮৩.২ ওভার) ব্র‍্যাথওয়েট ৩৯, পাওয়েল ২৩, জোসেফ ১৭, বোনার ২, ব্ল্যাকউড ২৫, মেয়ার্স ৩২, হোল্ডার ৪৭, সিলভা ১৫, রোচ ৭; আফ্রিদি ১৭.২-৫-৪৩-৪, নওমান ২২-৭-৫২-৩, হাসান ১৪-৬-৩৭-২

ফলাফলঃ পাকিস্তান ১০৯ রানে জয়ী

ম্যাচ সেরাঃ শাহীন শাহ আফ্রিদি (পাকিস্তান)

সিরিজঃ দুই ম্যাচের সিরিজ ১-১’এ ড্র

সিরিজ সেরাঃ শাহীন শাহ আফ্রিদি (পাকিস্তান)

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

কঠিন প্রতিপক্ষ বলে বাংলাদেশ যুবাদের দিয়ে প্রস্তুতি সারতে চায় ভারত

Read Next

বাংলাদেশে বন্দীদশা যেভাবে উপভোগ করছেন বেন সিয়ার্স

Total
9
Share