বাংলাদেশে কি ধরণের কন্ডিশন ও খাবার অপেক্ষা করছে জানেন রাচিন রবীন্দ্র

বাংলাদেশে কি ধরণের কন্ডিশন ও খাবার অপেক্ষা করছে জানেন রাচিন রবীন্দ্র

এর আগেও ভিন্ন ফরম্যাটে নিউজিল্যান্ড দলে ডাক পেয়েছেন, তবে অভিষেক হয়নি। বাংলাদেশ সফরের টি-টোয়েন্টি স্কোয়াডে জায়গা পাওয়া তরুণ অলরাউন্ডার রাচিন রবীন্দ্র অপেক্ষায় আন্তর্জাতিক অভিষেকের। বাংলাদেশে এবারই প্রথম নয়, বছর পাঁচেক আগে এসেছেন যুব দলের হয়ে বিশ্বকাপ খেলতে।

রাচিনের বিশ্বাস এবার কাজে লাগবে সেবারের অভিজ্ঞতা। অন্তত কি ধরণের কন্ডিশন আর খাবার তাদের জন্য অপেক্ষা করছে সেটার ধারণা রাখেন এই বাঁহাতি।

২০১৬ সালে যুব বিশ্বকাপ খেলতে এসে খুব একটা সুবিধা করতে পারেনি রাচিনের নিউজিল্যান্ড যুব দল। বাংলাদেশের স্পিন নির্ভর স্লো উইকেটে গ্রুপ পর্বেই ইতি ঘটে সেবার অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ যাত্রার। অথচ এর আগে সংযুক্ত আরব আমিরাতে প্রস্তুতিও নিয়েছিল তার দল।

এদিকে সদ্য সমাপ্ত অস্ট্রেলিয়া-বাংলাদেশ সিরিজে দেখেই এই বাঁহাতি অলরাউন্ডার বুঝে গেছেন তাদের জন্য কি অপেক্ষা করছে। নিজের পূর্ব অভিজ্ঞতা কাজে লাগাতে চান, তবে কন্ডিশনে মানিয়ে নেওয়ার চ্যালেঞ্জ উপভোগও করেন এই ভারতীয় বংশোদ্ভূত কিউই ক্রিকেটার।

২০১৬ যুব বিশ্বকাপে তার আরও দুই সতীর্থ সুযোগ পেয়েছেন এবারের বাংলাদেশ সফরের নিউজিল্যান্ড জাতীয় দলের স্কোয়াডে। তারা হলেন ফিন অ্যালেন ও বিন সিয়ার্স। মার্চে বাংলাদেশের নিউজিল্যান্ড সফরেই অভিষেক হয় অ্যালেনের।

নিউজিল্যান্ড স্কোয়াডের যে দুইজন ক্রিকেটার ইতোমধ্যে ইংল্যান্ডের দ্যা হান্ড্রেড খেলে বাংলাদেশে এসে পড়েছেন তাদের একজন অ্যালেন।

রাচিন ও সিয়ার্স অবশ্য এখনো অপেক্ষায় জাতীয় দলের জার্সি গায়ে চাপানোর। ২৪ আগস্ট বাংলাদেশে এসে পৌঁছানোর কথা পুরো নিউজিল্যান্ড স্কোয়াডের। নিজের পূর্ব অভিজ্ঞতা থেকে বাংলাদেশ সফর নিয়ে সম্প্রতি কথা বলেছেন রাচিন ।

তিনি বলেন, ‘ওটা (২০১৬ সালের যুব বিশ্বকাপ) ভিন্ন এক অভিজ্ঞতা ছিল। আমরা সংযুক্ত আরব আমিরাতে ছিলাম তবে কন্ডিশন আমরা যা প্রত্যাশা করেছি তার চেয়ে বেশি কঠিন ছিল। ওগুলো সব টার্নিং উইকেট ছিল, বেশ স্লো এবং আমরা সত্যি নিজেদের মেলে ধরতে পারিনি।’

‘ওটা ছিল চোখ খুলে দেওয়ার মত ব্যাপার। আর ঐ অভিজ্ঞতা আমাকে সাহায্য করবে। এমনকি আবহাওয়ার মত ছোট জিনিস বা কি ধরণের খাবার পেতে যাচ্ছি সে সম্পর্কেও।’

‘বিশেষ করে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজ দেখেছি আর দেখতে পাচ্ছি ওখানে স্বাভাবিক টি-টোয়েন্টি ম্যাচে বিপরীত চিত্র। গড় স্কোর ১৩০-১৪০ হবে সম্ভবত, সুতরাং এটা হবে ভিন্ন গেম প্ল্যান কিন্তু মানিয়ে নেওয়ার ব্যাপারটা উত্তেজনাপূর্ণ এবং ওখান থেকে শেখাটাও।’

বাংলাদেশের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের জন্য নিউজিল্যান্ড স্কোয়াডঃ

টম ল্যাথাম (উইকেটরক্ষক ও অধিনায়ক), ফিন অ্যালেন, হামিশ বেনেট, টম ব্লান্ডেল (উইকেটরক্ষক), ডগ ব্রেসওয়েল, কলিন ডি গ্রান্ডহোম, জ্যাকব ডুফি, ম্যাট হেনরি (ওয়েনডে), স্কট কুগেলেইন, কোল ম্যাককঞ্চি, হেনরি নিকোলস, আজাজ প্যাটেল, রাচিন রবীন্দ্র, বেন সিয়ার্স (টি-টোয়েন্টি), ব্লেয়ার টিকনার, উইল ইয়াং।

কোচিং স্টাফ- গ্লেন পকনাল, গ্রায়েম আলড্রিজ ও থিলান সামারাবিরা।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশের স্কোয়াডঃ

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, সৌম্য সরকার, লিটন দাস, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, আফিফ হোসেন ধ্রুব, মোহাম্মদ নাইম শেখ, নুরুল হাসান সোহান, শামীম হোসেন, রুবেল হোসেন, মুস্তাফিজুর রহমান, তাসকিন আহমেদ, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, শরিফুল ইসলাম, তাইজুল ইসলাম, শেখ মেহেদী হাসান, আমিনুল ইসলাম বিপ্লব ও নাসুম আহমেদ।

নিউজিল্যান্ডের বাংলাদেশ সফরের সূচিঃ

১ম টি-টোয়েন্টি- ১ সেপ্টেম্বর, মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম, ঢাকা
২য় টি-টোয়েন্টি- ৩ সেপ্টেম্বর, মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম, ঢাকা
৩য় টি-টোয়েন্টি- ৫ সেপ্টেম্বর, মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম, ঢাকা
৪র্থ টি-টোয়েন্টি- ৮ সেপ্টেম্বর, মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম, ঢাকা
৫ম টি-টোয়েন্টি- ১০ সেপ্টেম্বর, মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম, ঢাকা।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

নাইট রাইডার্সে ম্যাককুলামের ভূমিকায় ইমরান জান

Read Next

‘দ্য হান্ড্রেড’এর চ্যাম্পিয়ন সাউর্দান ব্রেভ ও ওভাল

Total
6
Share