চলতি বছরও বিদেশী কোচ পাচ্ছে না জাহানারা-সালমারা

ইমার্জিং দল এশিয়া কাপ বাংলাদেশ নারী দল

গত বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর নারী দলের প্রধান কোচ অঞ্জু জৈনের সাথে চুক্তি নবায়ন হয়নি। এই ভারতীয় বিদায় নেওয়ার পর আর কোনো বিদেশী কোচ নিয়োগ দিতে পারেনি বিসিবি। করোনা প্রভাবে আপাতত বিদেশী কোচ নিয়োগের ভাবনা থেকেই সরে এসেছে দেশের ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

মাঝে ইংলিশ মার্ক রবিনসনের সাথে সব চূড়ান্ত হলেও শেষ মুহূর্তে পারিবারিক কারণ দেখিয়ে তিনিও সিদ্ধান্ত বদলান। এরপর দফায় দফায় বিজ্ঞপ্তি দিয়েও আশানুরূপ ফল পায়নি বিসিবি।

যে কারণে আগামী বছর অনুষ্ঠিতব্য নারী বিশ্বকাপের আগ পর্যন্ত বিদেশী কোচ নিয়োগের পথেই হাঁটছে না বিসিবি। গত এপ্রিলে দক্ষিণ আফ্রিকা ইমার্জিং দলের বিপক্ষে সিরিজেও অবশ্য কাজ চালিয়েছে দেশি কোচিং স্টাফ।

গত ১৩ আগস্ট থেকে বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে (বিকেএসপি) শুরু হওয়া নারী দলের ক্যাম্পও দেখভাল করছে দেশি কোচরাই। তবে খুব শীঘ্রই একজনকে স্থায়ীভাবে দায়িত্ব দিবে বিসিবি।

তার অধীনে চলতি বছর নভেম্বরে জিম্বাবুয়েতে অনুষ্ঠিতব্য নারী বিশ্বকাপের বাছাই পর্ব খেলবে টাইগ্রেসরা। যদিও কে পাচ্ছেন সে দায়িত্ব সেটি এখনো চূড়ান্ত হয়নি।

বিসিবির বিসিবির নারী বিভাগের চেয়ারম্যান শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল ‘ক্রিকেট৯৭’ কে বলেন, ‘প্রধান কোচ হিসেবে আপাতত আমাদের দেশীয় কোচদের মধ্য থেকে কাউকে নিয়োগ দেওয়া হবে। যারা অনেকদিন ধরে কাজ করে আসছেন তাদের একজনই পাবেন দায়িত্ব। তবে এখনো এসব আলোচনাধীন, চূড়ান্ত হলে আনুষ্ঠানিকভাবে জানিয়ে দিব।’

উল্লেখ্য, দক্ষিণ আফ্রিকা ইমার্জিং দলের বিপক্ষে প্রধান কোচ হিসেবে কাজ করেছেন শাহনওয়াজ শহীদ শানু। যেখানে স্পিন কোচের দায়িত্বে ছিলেন ওয়াহিদুল গণি, পেস বোলিং বিভাগ দেখেছেন নারী দলের নির্বাচক সাবেক পেসার মঞ্জুরুল ইসলাম। তাদের অধীনেই বর্তমানে বিকেএসপিতে চলছে ১৪ দিনের ক্যাম্প।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

শুরু হল সালমা-জাহানারাদের ক্যাম্প, ত্রিদেশীয় সিরিজের ভাবনা

Read Next

আগামী বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পর্যন্তও টিকে যাচ্ছেন ডোমিঙ্গো

Total
1
Share