সৌম্যকে আগলে রাখছেন কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো

সৌম্য সরকার মারিও ভিল্লাভারানে রাসেল ডোমিঙ্গো

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৪-১ ব্যবধানে টি-টোয়েন্টি সিরিজ জিতলেও বাংলাদেশের মাথা ব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়ায় উদ্বোধনী জুটি। নাইম শেখ কয়েক ম্যাচে ক্রিজে টিকেও ইনিংস লম্বা করতে পারেননি। সৌম্য সরকার জিম্বাবুয়ে সফরে সিরিজ সেরা হয়েও অজিদের বিপক্ষে ছিলেন বিবর্ণ। সিরিজে টানা ব্যর্থতায় ইতোমধ্যে সমালোচনা শুরু হলেও কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো ঠিকই আগলে রাখছেন তাকে।

জিম্বাবুয়েতে ৩ ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজে দুই ফিফটি সহ ১২৬ রান করে সিরিজ সেরার পুরষ্কার উঠেছিল সৌম্যের হাতে। তবে ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষেই উল্টো চিত্র। তামিম ইকবাল, লিটন দাসের অনুপস্থিতিতে পুরো সিরিজে ওপেন করে ৫ ম্যাচে রান মাত্র ২৮ (২, ০, ২, ৮ ও ১৬)!

তবে পরিস্থিতি ও উইকেটের ধরণ বিবেচনায় নাইম শেখকে একেবারেই খারাপ বলার উপায় নেই। ৫ ম্যাচে ১৮.২০ গড়ে ৯১ রান করে আছেন সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিকায় চতুর্থ অবস্থানে। তবে ২৩, ২৮ ও ৩০ রানের ইনিংসগুলোকে চাইলেই রূপ দিতে পারতেন আরও ভালো কিছুতে।

নাইম ততটা সমালোচিত না হলেও সৌম্যকে নিয়ে চর্চা হয়েছে অনেক। কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো অবশ্য জিম্বাবুয়ে সিরিজে দুর্দান্ত ব্যাটিং করা এই বাঁহাতিকে এক সিরিজের ব্যর্থতা দিয়েই ছেঁটে ফেলতে চান না।

গতকাল (১১ আগস্ট) হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে কোচিং স্টাফ ও নির্বাচকদের অভিনন্দন জানিয়ে সিরিজ জয় উদযাপন করে বিসিবি। সেখানেই সংবাদ মাধ্যমের সাথে কথা বলেন ডোমিঙ্গো।

নাইম-সৌম্যের ব্যাপারে তার মত,

‘ নাইম তো ভালো করছে। আপনি কি জানেন নাম বাংলাদেশিদের মধ্যে টি-টোয়েন্টি র‍্যাংকিংয়ে শীর্ষে (২৯)? আমি আপনাকে প্রশ্ন করব, এই সিরিজে কয়জন ওপেনার রান করতে পেরেছে? অস্ট্রেলিয়ার বোলিং আক্রমণ অনেক ভালো। হ্যাজেলউড, স্টার্ক বিশ্বের সেরা বোলার। পিচও ছিল ব্যাটসম্যানদের জন্য কঠিন। তারা তাদের সেরাটা চেষ্টা করছে।’

‘দুই ম্যাচ পরই মানুষ সৌম্যকে নিয়ে সমালোচনা শুরু করেছে। কিন্তু দুই ম্যাচ আগেই সে ম্যান অব দ্যা সিরিজ ছিল। খেলোয়াড়দের সমর্থন দিতে হবে। এক-দুই ম্যাচে রান পেলে দল থেকে বাদ দেওয়া যাবে না। এই ব্যাপারে অনুগ্রহ করে আপনারা সংযত হন।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

দুই টেস্টের জন্য পাকিস্তানের ১৯ সদস্যের দল ঘোষণা

Read Next

নিউজিল্যান্ডের স্কোয়াড দেখে অবাকই হয়েছেন ডোমিঙ্গো

Total
19
Share