মুস্তাফিজকে দ্রুতগতির রাশিদ খান বলছেন ক্রিশ্চিয়ান

মুস্তাফিজকে দ্রুতগতির রাশিদ খান বলছেন ক্রিশ্চিয়ান

টানা ৩ ম্যাচ হারের পর জয়ের দেখা পেল অস্ট্রেলিয়া। তবে গতকাল (৭ আগস্ট) জয় পাওয়া ম্যাচেও মুস্তাফিজুর রহমানকে খেলতে নাকের পানি চোখের পানি এক হয়েছে অজিদের। সিরিজ জুড়েই অবিশ্বাস্য বোলিং করা টাইগার বাঁহাতি পেসারকে খেলতে নানা পরিকল্পনা সাজিয়েও ব্যর্থ হচ্ছে সফরকারীরা। দলটির অলরাউন্ডার ড্যানিয়েল ক্রিশ্চিয়ান বলছেন মুস্তাফিজের কাটার অনেকটা রাশিদ খানের দ্রুত গতির লেগ স্পিনের মত।

আগের তিন ম্যাচে ১২ ওভার বল করে ডট দিয়েছেন ৩৮ টি। মিরপুরের উইকেটের সুবিধা নিয়ে স্লোয়ার-কাটারে একাকার করে নাকানি চুবানি খাওয়াচ্ছেন অজি ব্যাটসম্যানদের। তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতে ৪ ওভার বল করে ১৫ ডট দিয়ে খরচ করেন মাত্র ৯ রান।

তৃতীয় টি-টোয়েন্টির পরই মুস্তাফিজকে খেলার নানা পরিকল্পনা সাজিয়েছিল অজিরা। তবে লাভ হয়নি কিছুতেই, অস্ট্রেলিয়া ম্যাচ জিতেছে তবে মুস্তাফিজ যেন ছাড়িয়ে গেল নিজেকেও। আগের ম্যাচে উইকেট শূন্য থাকলেও গতকাল চতুর্থ টি-টোয়েন্টিতে ৯ রান খরচায় নেন ২ উইকেট।

১০৫ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে সাকিব আল হাসানের ১ ওভারে ৩০ রান নেওয়ার পরও অস্ট্রেলিয়ায়কে চেপে ধরেন মূলত মুস্তাফিজই। শেষ পর্যন্ত ৬ বল ও ৩ উইকেট হাতে রেখে পেয়েছে কষ্টার্জিত জয়। সাকিবকে এক ওভারে ৫ ছক্কা হাঁকিয়ে ১৫ বলে ৩৯ রান করা ড্যানিয়েল ক্রিশ্চিয়ানই ম্যাচের পার্থক্য গড়ে দিয়েছিল। আরও ভয়ংকর হওয়ার আগে ফিরেছেন মুস্তাফিজের বলেই।

ম্যাচ শেষে ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে ক্রিশ্চিয়ান মুস্তাফিজ প্রসঙ্গে বলেন, ‘এই ম্যাচের (চতুর্থ) আগে আমরা তাকে খেলার নানা পরিকল্পনা নিয়ে কথা বলেছি। তাকে সামনের পায়ে খেলব নাকি পেছনের পায়ে, অফ সাইডে খেলব নাকি লেগ সাইডে…। তার বলে এত কিছু হয়, পিচেও বল উঠা-নামা করে… তার বল কেমন হবে, বোঝার উপায় নেই। সামনের পায়ে তাকে খেলা সত্যিই কঠিন, কারণ কোনো বল টার্ন করবে, কোনোটি বাউন্স।’

‘এটা (মুস্তাফিজের কাটার) দারুণ গতিময় রাশিদ খানকে খেলার মতো। অবশ্যই আমরা কোনো সমাধান বের করতে পারিনি। কারণ এই ম্যাচেও সে ওভারপ্রতি মাত্র ২ রান করে দিয়েছে। সত্যিই দুর্দান্ত বোলিং, কন্ডিশনটাকে নিজের পক্ষে দারুণভাবে কাজে লাগাচ্ছে সে।’

মিরপুরের মন্থর উইকেটে মুস্তাফিজকে খেলার চাইতে বিশ্বে আর কোনো কিছুকে কঠিন বলছেন না ৩৮ বছর বয়সী অজি অলরাউন্ডার, ‘মুস্তাফিজকে খেলা ছিল খুবই কঠিন। এই কন্ডিশনে এই ধরনের বোলিং খেলার চেয়ে কঠিন কিছু বিশ্বের কোথাও কোনো পর্যায়ে হয় না।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

রুটের শতরানের পরও জয়ের সুবাস পাচ্ছে ভারত

Read Next

আইসিসি প্লেয়ার অব দ্য মান্থ: মনোনয়ন পেলেন সাকিব

Total
59
Share