অধিনায়ক নয়, ব্যাটসম্যান হিসেবেই বেশি অবদান রাখতে চান ওয়েড

অধিনায়ক নয়, ব্যাটসম্যান হিসেবেই বেশি অবদান রাখতে চান ওয়েড

বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথম টি-টোয়েন্টির আগেরদিন অধিনায়কের নাম ঘোষণা করেছে অস্ট্রেলিয়া। অ্যারন ফিঞ্চের চোটের কারণে ম্যাথু ওয়েডই দায়িত্ব পেলেন পাঁচ ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজে। এই উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান বলছেন অধিনায়কত্বের চেয়ে নিজেদের অনভিজ্ঞ ব্যাটিং বিভাগে ভূমিকা রাখাটাই তার জন্য গুরুত্বপূর্ণ।

চোটের কারণে নেই স্টিভ স্মিথ, ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে নাম সরিয়ে নেন ডেভিড ওয়ার্নার, গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের মত তারকা ব্যাটসম্যানরা। শেষ মুহূর্তে চোটে পড়ে নিয়মিত অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ ওয়েস্ট ইন্ডিজে সফর থেকে দেশে ফিরে যান। দলটির পেস বোলিং আক্রমণে অবশ্য খুব বেশি ক্ষতি হয়নি, প্যাট কামিন্স না থাকলেও আছেন মিচেল স্টার্ক, জশ হ্যাজেলউডরা। স্পিন বিভাগে অ্যাডাম জাম্পা, অ্যাশটন আগার, মিচেল সুইপসনরা আছে পুরো প্রস্তুত।

আজ (২ আগস্ট) সিরিজে অধিনায়কত্ব পেয়ে ম্যাথু ওয়েডও জানিয়েছেন বোলিং বিভাগ নিয়ে না ভাবলেও ব্যাটিং বিভাগে তরুণদের সমর্থন দিতে চান নিজে।

৩৩ বছর বয়সী এই উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান বলেন, ‘এখানে আমার অধিনায়কত্বের চেয়ে ব্যাটিং বিভাগে অবদান রাখাটা বড় ব্যাপার। আমরা সম্ভবত ব্যাটিং বিভাগে এক ঝাঁক তরুণকে পাচ্ছি যাদের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিজ্ঞতা খুব বেশি নয়।’

‘বোলিংয়ে দায়িত্বটা অ্যাডাম জাম্পা, মিচেল স্টার্ক, জশ হ্যাজেলউডরা নিজেরাই নিবে, তারা সবাই একসাথে অনেক আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলেছে এবং তারা নিজেদের ব্যাপারটা ভালোই বুঝে।’

উইকেট রক্ষক হওয়াতে অধিনায়ক হয়েও ওয়েডের সাথে বোলার, ফিল্ডারদের সাথে দূরত্বটা ভালোই থাকবে মাঠে। ফলে যার যার দায়িত্ব ঠিকঠাক পালনের পরামর্শ অজি দলপতির।

ওয়েড যোগ করেন, ‘অবশ্যই আমি উইকেট কিপিং করছি, ফলে বোলার এবং আমার মধ্যকার দূরত্ব অনেক বড়। যার মানে দাঁড়াচ্ছে এখানে প্রত্যেকের আলাদা করে অনেক দায়িত্ব।’

‘যখন আপনি আসবেন এবং কারও কাছ থেকে নিবেন (অধিনায়কত্ব) তখন তাদের জন্য সামর্থ্যের পুরোটা দেওয়ার ব্যাপার হয়ে আসে যারা খেলাটা নিজেদের মধ্যে ধারণ করে এবং শীর্ষ পর্যায়ে তাদের প্রয়োগের প্রয়োজন হয়।’

এদিকে বিশ্বকাপ সামনে রেখে স্কোয়াডে প্রতিযোগিতা বাড়াতে অনভিজ্ঞ দল নিয়েই বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজ জিততে চায় অজিরা।

ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক ওয়েড বলেন, ‘অবশ্যই আমরা এই সিরিজ জিততে চাই। প্রতিটি ম্যাচই আমরা সবসময় জিততে চাই। তবে এটা একটা সুযোগ সবাইকে দেখার যে বিভিন্ন ভূমিকায় তারা কেমন করছে, যাতে বিশ্বকাপের দল নির্বাচনের সময় বোঝা যায় কোন ভূমিকায় কে কেমন করছে। সেই সুযোগটি নিতে সবাই রোমাঞ্চিত। নানা জায়গায় নিজেদের তুলে ধরতে মুখিয়ে থাকবে অনেকেই।’

উল্লেখ্য, ৫ ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথমটি আগামীকাল মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে। বাকি ম্যাচগুলো মাঠে গড়াবে যথাক্রমে ৪, ৬, ৭ ও ৯ আগস্ট।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

ভেস্তে গেল পাকিস্তান-উইন্ডিজের তৃতীয় টি-টোয়েন্টিও

Read Next

আইপিএলের বাকি অংশ শুরু করতে যত সমস্যা

Total
4
Share