দল নির্বাচনে হস্তক্ষেপ, সরে দাঁড়ালেন আফগান প্রধান নির্বাচক

বদলে গেল পাকিস্তান-আফগানিস্তান সিরিজের ভেন্যু

আফগানিস্তানের নির্বাচক কমিটির চেয়ারম্যানের পদ থেকে সরে দাঁড়ালেন আসাদউল্লাহ খান। মুলত পাকিস্তান সিরিজে তার অনুমতি ব্যতিরেকে আফগানিস্তানের দল নির্বাচনে অক্রিকেটার কর্তাদের হস্তক্ষেপ বেশি থাকায় তিনি এ কঠিন সিদ্ধান্ত নেন। এক চিঠিতে জানান, খেলোয়াড় বাছাই করণের ক্ষেত্রে অক্রিকেটার কর্তারা অতিরিক্ত বাধা সৃষ্টি করছে।

তিনি আরও জানান, খেলোয়াড় এবং নির্বাচনে নূন্যতম জ্ঞান না থাকাই লোকেরা হস্তক্ষেপ করছে। ২৭ জুলাই তিনি তার পদত্যাগপত্র আফগানিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (এসিবি) চেয়ারম্যান ফারহান ইউসুফজাই-এর কাছে হস্তান্তর করেন। এর আগের দিন পাকিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের জন্য ১৭ সদস্যের দল ঘোষণা করা হয়।

দলে ৫ জন আনক্যাপড ক্রিকেটার আছেন। এরা হচ্ছেন- নুর আহমেদ, সাদিক আতাল, শহিদ কামাল, আবদুল রহমান এবং ফজল হক ফারুকি।

ইএসপিএন ক্রিকইনফোর সূত্রানুযায়ী, আসাদউল্লাহ তার পদত্যাগপত্রে যে ৬টি গুরুত্বপূর্ণ কারণ দেখিয়েছেন, তা হচ্ছে-

১. চেয়ারম্যান হিসেবে অনুমোদনের পর তার অনুমতি ছাড়া নির্বাচক কমিটির সদস্য নিযুক্ত করা।
২. প্রধান নির্বাচক হয়েও কাজে অনেক বাধা পাওয়া।
৩. খেলোয়াড় এবং নির্বাচনে নূন্যতম জ্ঞান না থাকা অক্রিকেটারদের হস্তক্ষেপ।
৪. খেলোয়াড় নির্বাচনে নিজের বক্তব্য উপস্থাপনের অধিকার না থাকা।
৫. গত ৩ মাসে বারবার অনুরোধ সত্ত্বেও একবারের জন্যও তার সাথে চেয়ারম্যান ইউসুফজাইয়ের আলোচনায় না বসা।
৬. পাকিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে চূড়ান্ত স্কোয়াড নির্বাচনে তাকে কোন কিছু না জানানো।

প্রার্থীদের মধ্য থেকে সাক্ষাতকারের ভিত্তিতে এ বছরের মার্চে প্রধান নির্বাচকের ভূমিকায় নিযুক্ত হন আসাদউল্লাহ খান। ঘরোয়া ক্রিকেটে অনেক বেশি অভিজ্ঞতা থাকায় তাকে নির্বাচক কমিটির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল।

এর আগে এসিবি সিদ্ধান্ত নিয়েছিল প্রচলিত নির্বাচন কমিটির কার্যক্রমে পরিবর্তন এনে নির্বাচন নীতি এবং বিভাগ ভালো করে সাজাবে। আসাদউল্লাহ খানকে সাহায্য করার জন্য উপদেষ্টা এবং তথ্য বিশ্লেষকদের রাখবার কথা ছিল। যদিও পরবর্তীতে তা করা হয়নি বলে চিঠিতে উল্লেখ করেন তিনি।

পাকিস্তানের বিপক্ষে আফগানিস্তানের ওয়ানডে স্কোয়াডঃ

রহমানউল্লাহ গুরবাজ (উইকেটরক্ষক), ইব্রাহিম জাদরান, সাদিক আতাল, রহমত শাহ (সহ অধিনায়ক), হাশমতউল্লাহ শহীদি (অধিনায়ক), নাজিবউল্লাহ জাদরান, ইকরাম আলি খিল (উইকেটরক্ষক), শহিদ কামাল, মোহাম্মদ নবি, করিম জান্নাত, আজমত ওমরজাই, রাশিদ খান, আব্দুল রহমান, নাভিন উল হক, মুজিব উর রহমান, ফজল হক ফারুকি ও নুর আহমেদ লাকানওয়াল।

রিজার্ভ ক্রিকেটার-

ইউসুফ জাজাই, সেলিম সাফি, শরফউদ্দিন আশরাফ ও কায়েস আহমেদ।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

দল নিয়ে নেতিবাচক কথায় হতাশ রাসেল ডোমিঙ্গো

Read Next

বিসিসিআইয়ের বিরুদ্ধে পিসিবির অভিযোগ, আফ্রিদির ক্ষোভ

Total
12
Share