যে কারণে পরিবার সাথে রাখতে পারছেনা টাইগার ক্রিকেটাররা

যে কারণে পরিবার সাথে রাখতে পারছেনা টাইগার ক্রিকেটাররা

বর্তমান পরিস্থিতিতে টানা বায়ো-বাবলে থাকতে থাকতে মানসিক অবসাদে ভোগাটা ক্রিকেটারদের জন্য স্বাভাবিক। জিম্বাবুয়ে সফর থেকে দেশে ফিরেই অস্ট্রেলিয়া সিরিজের বায়ো-বাবলে প্রবেশ করলো বাংলাদেশ। দেশে থেকেও সান্নিধ্য পাচ্ছে না পরিবারের। তবে বিসিবি পরিবার সাথে রাখার সুযোগ দিলে সে ক্লান্তি কিছুটা হলেও লাঘব হত। কিন্তু সবার সুরক্ষা নিশ্চিতে বাড়তি ঝামেলায় যেতে চায়নি দেশের ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

এমনিতে দুই দলের ক্রিকেটার, সাপোর্ট স্টাফ, ম্যাচ অফিশিয়াল সহ প্রায় দুই শতাধিক লোক থাকছে হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে বায়ো-বাবলে। পরিবার রাখার সুযোগ দিলে সংখ্যাটা বাড়তো আরও অনেক। দফায় দফায় কোভিড টেস্ট, বায়ো-বাবল প্রোটোকল বজায় রাখার নানা নিয়ম কানুনে আরও ঝামেলা বাড়ার শঙ্কাই করেছে বিসিবি।

অস্ট্রেলিয়ার দেওয়া কঠিন সব শর্ত মেনে নিয়েই সিরিজটি আয়োজন করছে বাংলাদেশ। ৫ ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে ২৯ জুলাই বাংলাদেশে পৌছায় অস্ট্রেলিয়া দল। একই দিন জিম্বাবুয়ে থেকে দেশে ফেরে টাইগার ক্রিকেটাররাও।

বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড়দের সাথে পরিবার রাখার সুযোগ না দেওয়া প্রসঙ্গে আজ (২৯ জুলাই) সংবাদ মাধ্যমকে বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী বলেন,

‘বায়োবাবলের মধ্যে খেলোয়াড়রা বিরতি পাবে। বায়োবাবল সুনিশ্চিত করা বড় একটা চ্যালেঞ্জ। মানুষ যত বাড়বে (তত কঠিন), তাদের টেস্টিং প্রটোকল আছে।’

‘নির্দিষ্ট দিনে সবার করোনা পরীক্ষা করাতে হয়। তাদের নেগেটিভ হওয়া সাপেক্ষে ইভেন্ট আয়োজিত হয়। ওয়েস্ট ইন্ডিজে দেখুন একজন সাপোর্ট স্টাফ আক্রান্ত হওয়ায় পুরো সিরিজ পিছিয়ে যায়। এ ধরণের বিষয়ে আমাদের সতর্ক থাকতে হবে। তাই মানুষের সংখ্যা যত কম রাখা যায় তত ভালো।’

উল্লেখ্য, দুই দলই বর্তমানে আছে ৩ দিনের কোয়ারেন্টাইনে। আগামী ১ আগস্ট মিলবে অনুশীলনের সুযোগ, ৩ আগস্ট মাথে গড়াবে প্রথম টি-টোয়েন্টি। বাকি চারটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে যথাক্রমে ৪, ৬, ৭ ও ৯ আগস্ট।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

নিষিদ্ধ হলেন গুনাথিলাকা-মেন্ডিস-ডিকওয়েলা

Read Next

প্রত্যাশার চেয়ে বেশি সুযোগ-সুবিধা পেয়ে খুশি অস্ট্রেলিয়া

Total
1
Share