সুখবর ওয়েস্ট ইন্ডিজে, স্বস্তি বাংলাদেশেও

সুখবর ওয়েস্ট ইন্ডিজে, স্বস্তি বাংলাদেশেও

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার চলমান ওয়ানডে সিরিজের ২য় ম্যাচে টসের পর জানা যায় বাবলে থাকা একজন নন প্লেইং সদস্য করোনা টেস্টে পজিটিভ। যার জের ধরে ম্যাচটি স্থগিত করা হয়। এই ইস্যুতে শঙ্কা ছিল বাংলাদেশ শিবিরেও। কারণ ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর তো বটেই, অস্ট্রেলিয়ার বাংলাদেশ সফরও বাতিল হতে পারত।

একমাত্র পজিটিভের পরিপ্রেক্ষিতে পরিচালিত আরও ১৫২ টি কোভিড -১৯ টেস্টের মধ্যে একটিও ইতিবাচক মামলা রেকর্ড করা হয়নি, যা বৃহস্পতিবার বার্বাডোসে দ্বিতীয় ওয়ানডে শুরু করতে দেয়নি, ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া আরও তথ্য চেয়েছিল কীভাবে এই মামলার উদ্ভব হয়েছে তা জানতে।

এই অনিশ্চয়তা রয়ে গিয়েছিল যে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও এর পরের অস্ট্রেলিয়ার বাংলাদেশ সফর বাতিল হতে পারে। অজিরা কোন সদস্যকে আইসোলেশনে রেখে নিশ্চিতভাবেই বাংলাদেশে যেতে চাইত না।

তেমনটি হলে ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবং বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড উভয়ের পক্ষে তাদের সম্প্রচার চুক্তির ক্ষেত্রে এ জাতীয় পরিণতির মারাত্মক আর্থিক পরিণতি ঘটতে পারত। এবং ইংল্যান্ড এবং ভারতে ছাড়া অন্য কোন দেশে অস্ট্রেলিয়ার সফর করতে যাবার রেপুটেশন আরও সুদৃঢ় হত, পান থেকে চুন খসলেই যেখানে অজিরা যেতে চায়না।

তবে আশার কথা হল সিএ (ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া) চূড়ান্তভাবে সন্তুষ্ট যে এই সিরিজটি নিরাপদে এগিয়ে যেতে পারে, এই আলোচনায় উভয় পক্ষের টিম ম্যানেজমেন্টকে ছাড়িয়ে সংশ্লিষ্ট চিফ এক্সিকিউটিভ এবং বোর্ড নেতাদের কাছে আলোচনা হয়েছে। সিএ’র চিফ এক্সিকিউটিভ নিক হকলি স্পষ্ট করে তুলেছেন যে সাম্প্রতিক অতীতে অসংখ্য বাতিল সফর শেষে সিএ তাদের বৈশ্বিক খ্যাতি বাড়ানোর বিষয়ে তীব্র সচেতন।

ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজ সভাপতি রিকি স্কেরিট বলেছেন, “আগামীকাল কেনসিংটন ওভালে সিজি ইন্স্যুরেন্স ওয়ানডে সিরিজটি পুনরায় চালু করার ঘোষণা দিতে পেরে আমরা খুশি। আমরা গেমসটি আবারও চালিয়ে যাওয়ার অপেক্ষায়, আমরা সিএ’তে আমাদের সহযোগীদের এই বিষয়ে তাদের সহযোগিতার জন্য ধন্যবাদ জানাতে চাই।”

“আমাদের সিইও জনি গ্রেভ, ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার চেয়ারম্যান আর্ল এডিংস, তাঁর প্রধান নির্বাহী নিক হকলি এবং আমাদের নিজ নিজ মেডিকেল এবং অপারেশন দলগুলির সাথে বিশেষ ধন্যবাদ। সিরিজটি আবার চালু করার জন্য সবকিছু ঠিক আছে কিনা তা নিশ্চিত করতে ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাথে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করার জন্য বিসিএ এবং বার্বাডোস সরকারের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকার আমি প্রশংসা করি।”

“চ্যালেঞ্জিং দু’দিন গত হয়ে গেছে এবং আমরা প্রতিষ্ঠিত সমস্ত মেডিকেল প্রোটোকল অনুসরণ করে খুব দ্রুত এবং নিরাপদে কাজ করেছি, আগামীকাল, নিরাপদে খেলা পুনরায় শুরু করতে আমরা এগিয়ে যেতে পারব কিনা তা নিশ্চিত করার জন্য প্রয়োজনীয় সমস্ত সতর্কতা রয়েছে কিনা তা নিশ্চিত করার জন্য। আমরা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ অব্যাহত রাখব এবং সে অনুযায়ী সাড়া দেব।”

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

গণ অভিষেকের দিনে শ্রীলঙ্কার কাছে হারল ভারত

Read Next

পাকিস্তানের বিপক্ষে আফগানিস্তানের ওয়ানডে স্কোয়াড ঘোষণা

Total
3
Share