এবার সাকিব-মাহমুদউল্লাহদের টি-টোয়েন্টি চ্যালেঞ্জ

এবার সাকিব-মাহমুদউল্লাহদের টি-টোয়েন্টি চ্যালেঞ্জ

টেস্ট ও ওয়ানডে সিরিজের সবকটি ম্যাচ জয়ের পর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজেও ফেভারিট হয়েই মাঠে নামছে বাংলাদেশ। নিজেদের সবচেয়ে নাজুক ফরম্যাট, প্রতিপক্ষের মাঠে খেলা স্বত্বেও বাংলাদেশই এগিয়ে থাকছে। তবে টি-টোয়েন্টি বলে এতটা আত্মবিশ্বাস দেখাতে চাননা টাইগার দলপতি মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।

৩ ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথমটি মাঠে গড়াচ্ছে আজ (২২ জুলাই) হারারে স্পোর্টস ক্লাবে। বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে ৪ টায় শুরু হবে ম্যাচটি।

নিজেদের সর্বশেষ ১০ টি-টোয়েন্টিতে জিম্বাবুয়ে জিতেছে মাত্র একটিতে। গত এপ্রিলে তারা হারিয়েছে পাকিস্তানকে। বাংলাদেশ জিতেছে ৪ টিতে, যার দুটোই আবার গতবছর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে, বাকি একটি জয় ২০১৯ সালে ভারতের বিপক্ষে।

বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে দুই দলের মুখোমুখি লড়াইয়ে বেশ এগিয়ে বাংলাদেশ। ১৩ ম্যাচে ৯ টিতেই জয়ী টাইগাররা। তবে জিম্বাবুয়ের মাটিতে মাত্র ২ টি টি-টোয়েন্টি মাঠে গড়িয়েছিল। বুলাওয়ের কুইন্স স্পোর্টস ক্লাবে ২০১৩ সালের ম্যাচ দুইটির একটিতে বাংলাদেশ অন্যটিতে জিতেছিল জিম্বাবুয়ে।

তবে পরিসংখ্যান এক পাশে রেখে টাইগার অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান বলছেন চ্যালেঞ্জিং হতে পারে সিরিজ।

ওয়ানডেতে সিরিজ সেরার পুরষ্কার জেতা সাকিব বলেন, ‘টি-টোয়েন্টিতে দুই দলেরই সমান সুযোগ থাকে। এটা বল টু বলের খেলা। এক ওভারেই খেলার মোড় ঘুরতে পারে। তাই এই ফরম্যাটে আমাদেরকে সেরাটাই দিতে হবে সিরিজ জিততে। আমরা মুখিয়ে আছি তবে আমাদের ম্যাচ বাই ম্যাচ আগাতে হবে।’

অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদও দেখছেন চ্যালেঞ্জ, ‘প্রতিটা টি-টোয়েন্টি ম্যাচই চ্যালেঞ্জিং। কারণ কাউকে এই সংস্করনের খেলায় ফেভারিট বলা খুব কঠিন। ওই দিন যে ভালো খেলবে তাদের জয়ের সম্ভাবনা বেশি থাকবে।’

এদিকে হাঁটুর চোটে তামিম ইকবাল ও পারিবারিক কারণে মুশফিকুর রহিমকে পাচ্ছে না বাংলাদেশ। নিজেদের অন্যতম দুই সেরা ক্রিকেটারকে মিস করবেন অধিনায়কও।

রিয়াদ বলেন, ‘আমরা অবশ্যই তামিম ও মুশফিককে মিস করব। দুজনই আমাদের দলের জন্য অনবদ্য দুজন খেলোয়াড়। তারপরও আমি বলব, এটা বাকিদের জন্য সুযোগ বাংলাদেশকে জেতানোর জন্য। জিম্বাবুয়ের কন্ডিশনে ওরা খুবই ভালো দল। আমাদের ভালো খেলেই ওদের হারাতে হবে।’

চলতি বছরের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ সামনে রেখে প্রতিটি সিরিজ, ম্যাচকেই আলাদা গুরুত্ব দিচ্ছে টাইগাররা।

রিয়াদ বলেন, ‘বিশ্বকাপের আগে সব ম্যাচই গুরুত্বপূর্ণ। বিশ্বকাপের আগে আমাদের ১৬টা ম্যাচ খেলার সম্ভাবনা আছে। কিন্তু এই মুহূর্তে আমাদের বর্তমানে থাকাটা গুরুত্বপূর্ণ। অবশ্যই বাকি সিরিজগুলো আমাদের নজরে রাখতে হবে। তবে এই মুহূর্তে কালকের ম্যাচে মনোযোগ দিচ্ছি।’

তামিম না থাকায় ওপেনিংয়ে লিটন দাসের সঙ্গী হওয়ার সম্ভাবনা বেশি নাইম শেখের। তিন নম্বরে সৌম্য সরকার, চার নম্বরে সাকিব আল হাসান, পাঁচ ও ছয় নম্বরে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও নুরুল হাসান সোহান, সাত নম্বরে শেখ মেহেদী হাসান, ৮ নম্বরে মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন।

বোলিং আক্রমণে মুস্তাফিজুর রহমানের সঙ্গী তাসকিন আহমেদ নিশ্চিত। বাকি একজন স্পিনার নাকি পেসার হবে সেটি হয়তো শেষ মুহূর্তেই সিদ্ধান্ত নিবে টিম ম্যানেজমেন্ট।

অনভিষিক্ত শামীম হোসেন প্রথম ম্যাচেই সুযোগ পাওয়ার সম্ভাবনা কমই বলা যায়। সে ক্ষেত্রে নাসুম আহমেদ, শরিফুল ইসলাম ও শেষ মুহূর্তে টি-টোয়েন্টি স্কোয়াডে যুক্ত হওয়া রুবেল হোসেনের মাঝে হতে পারে লড়াই।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

ভারতের বিপক্ষে ইংল্যান্ডের টেস্ট স্কোয়াড ঘোষণা

Read Next

মুশফিককে পেতে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার সাথে দেন দরবারে বিসিবি

Total
21
Share