রানের চাকা দ্রুত ঘোরাচ্ছে জিম্বাবুয়ে

রানের চাকা দ্রুত ঘোরাচ্ছে জিম্বাবুয়ে

আগেরদিন এক সেশন ব্যাট করেই জিম্বাবুয়ে জানান দিয়েছিল বাংলাদেশের বোলারদের জন্য কঠিন সময় অপেক্ষা করছে। আজ তৃতীয় দিন লাঞ্চের আগে সেঞ্চুরির পথে হাঁটা অধিনায়ক ব্রেন্ডন টেইলরকে হারালেও শক্ত অবস্থানেই স্বাগতিকরা।

অভিষিক্ত তাকুজওয়ানাশে কাইতানোকে নিয়ে টেইলর গড়েছিলেন ১০৫ রানের জুটি। টেইলর ৮১ রানে ফিরলেও আরেক অভিষিক্ত ডিওন মায়ের্সকে নিয়ে ৩৩ রানের জুটিতে অবিচ্ছেদ্য কাইতানো। ইতোমধ্যে কাইতানো তুলে নিয়েছেন ফিফটিও, অপরাজিত আছেন ৬৩ রানে। জিম্ববাউয়ে লাঞ্চে যায় ২ উইকেতে ২০৯ রান নিয়ে। পিছিয়ে আছে আরও ২৫৯ রানে।

১ উইকেটে ১১৪ রান নিয়ে দিন শুরু করে জিম্বাবুয়ে। ৩৭ রানে ব্রেন্ডন টেইলর ও ৩৩ রানে অপরাজিত ছিলেন কাইতানো।

আজ দিনের শুরু থেকেই সাবলীল ছিলেন দুজনে। আগের দিনের মত কিছুটা আক্রমণাত্মক টেইলর। ৪৭তম ওভারে সাকিব আল হাসানকে ডাউন দ্য ট্র্যাকে এসে ছক্কা হাঁকিয়ে ৫৮ বলেই তুলে নেন ফিফটি।

৪৮তম ওভারে পেসার এবাদত হোসেন অবশ্য কিছুটা ভুগিয়েছেন টেইলরকে। দ্বিতীয় বলে কট বিহাইন্ডের জোরালো আবেদনও ছিল। ৪৯তম ওভারে সাকিবকে দারুণ এক সুইপ শটে হাঁকান বাউন্ডারি।

টেইলরের আক্রমণাত্মক ব্যাটিংয়ের বিপরীতে অভিষিক্ত ওপেনার কাইতানো দেখাচ্ছিলেন ধৈর্য্যের নিদর্শন। ৫০তম ওভারের প্রথম বলে তার বিপক্ষেও কট বিহাইন্ডের জোরালো আবেদন পেসার এবাদতের।

৫২তম ওভারে এই পেসারকে টানা দুই চার হাঁকান টেইলর। ততক্ষণে জিম্বাবুয়ের স্কোরবোর্ডে সংগ্রহ ১৫০ পেরিয়েছে। পরের ওভারে সাকিবকে চার মেরে কাইতানো জুটির ১০০ পূর্ণ করেন। এরপর ১৫৯ বলে অভিষেকেই ফিফটির দেখা পেয়ে যান এই ডানহাতি। জিম্বাবুয়ের ৬ষ্ঠ ব্যাটসম্যান হিসেবে অভিষেকে ফিফটির কীর্তি গড়লেন কাইতানো।

তবে অন্য প্রান্তে টেইলর রান তোলাতে তাড়াহুড়ো দেখাতে থাকেন। যার পরিণতিতে সেঞ্চুরির দ্বারপ্রান্তে গয়েও পুড়তে হয়েছে আক্ষেপে। মিরাজকে বেশ কয়েকবারই সুইপ, রিভার্স সুইপ খেলতে গিয়ে ব্যর্থ হন।

৫৭তম ওভারের শেষ বলে স্কয়ার লেগে উড়িয়ে মারতে যান এই অফ স্পিনারকে। তবে ধরা পড়েন শর্ট স্কয়ার লেগে ইয়াসির আলি রাব্বির হাতে। থামেন ৯২ বলে ১২ চার ১ ছক্কায় ৮১ রানে। ভাঙে ১০৫ রানের দ্বিতীয় উইকেট জুটি।

টেইলরের বিদায়ের পর ক্রিজে আসা আরেক অভিষিক্ত ডিওন মায়ের্সকে নিয়ে লাঞ্চের আগের সময়টা অনায়েসেই কাটান কাইতানো। শেষ পর্যন্ত লাঞ্চের আগে জিম্ববাবুয়ের স্কোরবোর্ডে ২ উইকেটে ২০৯। ২০০ বলে ৬৩ রানে কাইতানো ও ২৭ বলে ২১ রানে অপরাজিত মায়ের্স।

সংক্ষিপ্ত স্কোর (৩য় দিন, লাঞ্চ বিরতি পর্যন্ত):

বাংলাদেশ ১ম ইনিংসে ৪৬৮/১০ (১২৬), সাইফ ০, সাদমান ২৩, শান্ত ২, মুমিনুল ৭০, মুশফিক ১১, সাকিব ৩, লিটন ৯৫, মাহমুদউল্লাহ ১৫০*, মিরাজ ০, তাসকিন ৭৫, এবাদত ০; মুজারাবানি ২৯-৪-৯৪-৪, এনগারাভা ২৩-৫-৮৩-১, টিরিপানো ২৩-৫-৫৮-২, নিয়াউচি ১৭-১-৯২-২।

জিম্বাবুয়ে ১ম ইনিংসে ২০৯/২ (৬৭), শুম্বা ৪১, কাইতানো ৬৩*, টেইলর ৮১, মায়ের্স ২১*; সাকিব ১৯-৩-৬৩-১, মিরাজ ১৫-১-৫২-১

বাংলাদেশ ১ম ইনিংসে ২৫৯ রানে এগিয়ে।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

ভারতের বিপক্ষে সিরিজে শ্রীলঙ্কার নয়া লিডারশিপ গ্রুপ

Read Next

বিনা বেতনে লঙ্কান যুবাদের কোচ হচ্ছেন জয়াবর্ধনে

Total
4
Share