পরিস্থিতির দাবি মেটাতে মাহমুদউল্লাহকে যোগ্য ব্যক্তি বলছেন অ্যাশওয়েল প্রিন্স

পরিস্থিতির দাবি মেটাতে মাহমুদউল্লাহকে যোগ্য ব্যক্তি বলছেন অ্যাশওয়েল প্রিন্স
Vinkmag ad

১৭ মাস পর টেস্ট ক্রিকেটে ফিরেই দলের প্রয়োজনে দুর্দান্ত এক ইনিংস মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের ব্যাটে। হারারে টেস্টের প্রথম দিন শেষে অপরাজিত আছেন ৫৪ রানে। তার ব্যাটেই নির্ভর করছে বাংলাদেশের সংগ্রহ কোথায় থামবে। লিটন দাসের সাথে তার ১৩৮ রানের জুটিতেই বিপর্যয় কাটে বাংলাদেশের। দিনশেষে প্রশংসা কুড়িয়েছেন নবনিযুক্ত ব্যাটিং কোচেরও।

গত বছর রাওয়ালপিন্ডি টেস্টে ব্যর্থ হওয়ার পরই কোচ রাসেল ডোমিঙ্গোর সাদা পোশাকের ক্রিকেট ভাবনা থেকে বাদ পড়েন মাহমুদউল্লাহ। জিম্বাবুয়ে সফরের জন্য ঘোষিত স্কোয়াডেও ছিলেন না। শেষ মুহূর্তে অন্তর্ভূক্ত হন তামিম ইকবাল ও মুশফিকুর রহিমের ইনজুরি ভাবনায়।

শেষ পর্যন্ত তামিম ছিটকে যাওয়াতে ব্যাটিং লাইনআপে শক্তি বাড়াতে একাদশেও সুযোগ পান। আর তাতেই করলেন বাজিমাত, দলের বাজে পরিস্থিতিতে লিটনকে দিয়েছন যোগ্য সঙ্গ। ৬ উইকেটে ১৩২ রানে পরিণত হওয়া বাংলাদেশকে উদ্ধারের পথে লিটনের সাথে ১৩৮ রানের জুটি।

লিটন ৯৫ রান করে ফিরলেও মাহমুদউল্লাহ অপরাজিত আছেন ৫৪ রানে। দিনশেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৮ উইকেটে ২৯৪।

সংবাদ সম্মেলনে টাইগারদের ব্যাটিং কোচ অ্যাশওয়েল প্রিন্স বলেন, ‘মাহমুদউল্লাহ সত্যিই গুরুত্বপূর্ণ একটা ইনিংস খেলেছে। ইনিংসের ঐ সময়টায় আমাদের অভিজ্ঞতার দরকার ছিল, সম্ভবত সে সঠিক ব্যাক্তি হিসেবে অভাবটা পূরণ করেছে। লিটন ঐ সময় চাপমুক্ত ইনিংস খেলছিল, মাহমুদউল্লাহ যোগ দিয়ে নিজেদের মধ্যে চাপহীন খেলার ব্যাপারে সাহায্য করেছে, একে অপরকে রান করার ব্যাপারে সহযোগিতা করেছে।’

দিনের শুরুর বিপর্যয় অবশ্য কাটিয়েছেন অধিনায়ক মুমিনুল হক। ৮ রানে ২ উইকেট হারানোর পর সাদমান ইসলামকে নিয়ে ৬০ রানের জুটি টাইগার কাপ্তানের। সাদমান (২৩) ফিরলে মুমিনুল ৭০ রানের ইনিংসে বাকিদের আসা যাওয়ার মিছিলেও হাল ধরে রাখেন। তার এমন ইনিংসও নজর কেড়েছে অ্যাশওয়েল প্রিন্সের।

ব্যাটিং কোচের ভাষ্যমতে, ‘দিনের শেষদিকে আমরা খুব ভাল লড়াই ফিরিয়ে দিয়েছে। দিনের শুরুতে দুটি উইকেট হারানো সত্যিই কঠিন ছিল, কিন্তু এরপর অধিনায়কের সঙ্গে সাদমানের ৬০ রান দারুন ছিল। লাঞ্চের পর আমরা ভাল শুরু পেয়েছিলাম মুমিনুল ও মুশফিকের জুটিতে। কিন্তু মুশফিকের উইকেটটা দুর্ভাগ্য ছিল।’

‘এরপর সাকিবকেও হারালাম দ্রুত। এরপর লিটন ও মাহমুদউল্লাহর দারুন জুটিটা পাই। আমি বলব ৮ রানে ২ উইকেট হারানোর পর এবং ১৩২ রানে ৬ উইকেট হারানোর পর, এ দুই জায়গা থেকে আমরা ভাল লড়াই দিয়ে ম্যাচে ফিরেছি।’

‘মুমিনুল যেভাবে পরিস্থিতি সামাল দিয়েছে তা দারুন ছিল। শান্ত ভাবেই সে দলকে এগিয়ে নিয়েছে। তার এই শান্ত থাকাটা বা ক্রিজে তার অবস্থান ড্রেসিংরুমে আত্মবিশ্বাস দিয়েছে। যে কোন ব্যাটসম্যান এমন বডি ল্যাঙ্গুয়েজে থাকবে তাকে দেখে দলের জন্য কাজটা সহজ হয়।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

ঘড়ি ধরে লিটনের পারফরম্যান্স মূল্যায়ন করলেন প্রিন্স

Read Next

মানু সোহনির ভাগ্য নির্ধারণ হবে আজ

Total
27
Share