হারারেতে ধুকছে বাংলাদেশ দল

হারারেতে ধুকছে বাংলাদেশ দল
Vinkmag ad

প্রথম সেশনের পর দ্বিতীয় সেশনেও ৩ উইকেট তুলে নিয়ে হারারে টেস্টের প্রথম দিনের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পথে স্বাগতিক জিম্ববাবুয়ে। প্রথম সেশনে টাইগার ব্যাটসম্যানদের কুপোকাত করা পেসার ব্লেসিং মুজারাবানির সাথে দ্বিতীয় সেশনে উইকেট শিকারে যোগ দেন ভিক্টর নিয়াউচি। আর তাতেই মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান নির্ভর টাইগারদের মিডল অর্ডারে ধস নামে।

চা বিরতির আগে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৬ উইকেটে ১৬৭ রান। লিটন দাস ২৬ ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ অপরাজিত আছেন ১৪ রানে। এর আগে দুই দফা জীবন পেয়ে ৭০ রানে থামেন অধিনায়ক মুমিনুল হক।

৩ উইকেটে ৭০ রানে লাঞ্চে যায় বাংলাদেশ। ৩২ রানে মুমিনুল ও ১ রানে অপরাজিত ছিলেন মুশফিক।

লাঞ্চের আগে জিম্বাবুয়ে পেসাররা যতটা চাপে রেখেছিল লাঞ্চের পর ততটাই চাপ ফেরত দিতে চেয়েছিল বাংলাদেশ। তবে সেশনের দ্বিতীয় বলেই নিয়াউচির বাউন্সারকে পুল করতে গিয়ে টপ এজ হয় মুমিনুলের। এরপর স্ট্রাইক বোলার মুজারাবানিও যোগ দিলে খানিক অস্বস্তিতে পড়তে হয়।

এই ডানহাতির করা ২৭তম ওভারের শেষ বলে মিড অনে সহজ ক্যাচ দিলেও ফিল্ডার এনগারাভা সামনে ঝুঁকে শুরুতে কোন চেষ্টাই করেনি। তখন ব্যক্তিগত ৫২ রানে ছিলেন মুমিনুল। তার আগে একই ওভারের চতুর্থ বলেই অবশ্য চার মেরে ৬৪ বলে ফিফটিতে পৌঁছান টাইগার কাপ্তান। এটি তার ক্যরিয়ারের ১৪তম টেস্ট ফিফটি।

৩২ রানে লাঞ্চে যাওয়া মুমিনুল ফিরে এসে অন সাইডে বেশ কিছু সাবলীল শট খেলেন। এই বাঁহাতি এক পাশ আগলে রাখলেও অন্য পাশে মুশফিককে বেশিক্ষণ টিকতে দেননি মুজারাবানি।

নিজের ৮ম ওভার করতে এসে চতুর্থ বলে অফ স্টাম্পের বাইরের গুড লেংথ ডেলিভারিতে ফাঁদে ফেলেন মিস্টার ডিপেন্ডেবলকে। ভেতরে ঢোকা বল ছাড়তে গিয়ে প্যাডে লাগান মুশফিক। জোরালো আবেদন নাকচ করতে পারেননি আম্পায়ার।

তবে উচ্চতার কারণে সিদ্ধান্ত নিয়ে কিছুটা অসন্তুষ্ট ছিলেন মুশফিক। মুজারাবানির তৃতীয় শিকার হয়ে মুশফিক ফেরেন ৩০ বলে ১১ রান করে। ভাঙে মুমিনুলের সাথে ৩৮ রানের জুটি।

৫ বলের ব্যবধানে বাংলাদেশ হারায় নতুন ব্যাটসম্যান সাকিব আল হাসানকেও। নিয়াউচির অফ স্টাম্পের বেশ বাইরের বল অযথা ড্রাইভ খেলতে গিয়ে ক্যাচ দেন উইকেটের পেছনে। বাংলাদেশ পরিণত হয় ৫ উইকেটে ১০৯ রানে।

১২ রানের ব্যবধানে ফিরতে পারতেন মুমিনুলো। ইনিংসের ৩৩তম ওভারে দেওয়া সহজ ফিরতি ক্যাচ লুফে নিতে পারেননি মুজারাবানি। তখন ব্যক্তিগত ৬০ রানে ব্যাট করছিলেন টাইগার কাপ্তান। তবে দুই দফা জীবন পেয়ে ইনিংসকে টেনে নিতে পারেননি খুব একটা।

নিয়াউচির অফ স্টাম্পের বাইরের বল কাট করতে চেয়েছেন। কিছুটা ধীরে ব্যাট চালানো মুমিনুল পয়েন্টের উপর দিয়ে পার না করে ক্যাচ দেন গালিতে দাঁড়ানো মায়ের্সকে। ৯২ বলে ১৩ চারে ৭০ রানের ইনিংসটি সাজান টাইগার কাপ্তান।

১৩২ রানে ৬ উইকেট হারানো বাংলাদেশকে চা বিরতির আগে আর কোনো বিপদে পড়তে দেয়নি লিটন দাস ও ১৭ মাস পর টেস্ট একাদশে ফেরা মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। দুজনে ৩৫ রানের জুটিতে অবিচ্ছেদ্য আছেন।

এখনো পর্যন্ত ১১ ওভারে ৩ মেডেনসহ ২৭ রান খরচায় মুজারাবানির শিকার ৩ উইকেট। নিউয়ায়চির শিকার ১১ ওভারে ১ মেডেনসহ ৬৩ রান খরচায় ২ উইকেট। বাকি উইকেটটি নেন রিচার্ড এনগারাভা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর (১ম দিন চা বিরতি পর্যন্ত):

বাংলাদেশ ১৬৭/৬ (৪৯), সাইফ ০, সাদমান ২৩, শান্ত ২, মুমিনুল ৭০, মুশফিক ১১, সাকিব ৩, লিটন ২৬*, মাহমুদউল্লাহ ১৪*; মুজারাবানি ১১-৩-২৭-৩, এনগারাভা ১২-৫-২৬-১, নিয়াউচি ১১-১-৬৩-২।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

মিরাজের কাঁধে নিঃশ্বাস ফেলা ওকস টপকেছেন স্টোকসকে

Read Next

টি-টোয়েন্টি র‍্যাংকিংয়ে ডি কক-পুরানদের উন্নতি

Total
27
Share