প্রথমবার জিম্বাবুয়ে গিয়ে রোমাঞ্চিত তাসকিন

প্রথমবার জিম্বাবুয়ে গিয়ে রোমাঞ্চিত তাসকিন
Vinkmag ad

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেকের পর ৭ বছর কেটে গেলেও এর আগে জিম্বাবুয়ে সফরে যাওয়া হয়নি তাসকিন আহমেদের। অবশ্য শুধু তাসকিন নয়, ২০১৩ সালের পর বাংলাদেশ দলই জিম্বাবুয়ে গেল এই প্রথম। ফলে দলের বেশিরভাগ ক্রিকেটারের জন্যই আফ্রিকান দেশটিতে জাতীয় দলের জার্সিতে এটি প্রথম সফর। তাসকিন বলছেন খেলতে মুখিয়ে আছেন, তবে নিজেদের মাটিতে প্রতিপক্ষ হিসেবে জিম্বাবুয়েকে বেশ সমীহই করছেন।

২০১৩ সালে সর্বশেষ জিম্বাবুয়ে সফরে গিয়েছে বাংলাদেশ। এই সময়কালে অবশ্য বাংলাদেশ যতটা এগিয়েছে জিম্বাবুয়ে ঠিক ততটাই পিছিয়েছে। কিন্তু ঐ সফরে বাংলাদেশের সাফল্যের পরিসংখ্যান খুব একটা সন্তোষজনক নয়। শুধু ঐ সফর নয় এমনিতেই জিম্বাবুয়েতে গিয়ে টাইগাররা দাপট দেখাতে পেরেছে কমই।

২৮ ওয়ানডেতে টাইগারদের জয় ১৩ টি, ৭ টেস্টে জয়ের সংখ্যা মাত্র এক, ২ টি-টোয়েন্টিতেও জয় একটিই। বিশেষ করে সর্বশেষ সফরে ওয়ানডে সিরিজ হারতে হয়েছে ২-১ ব্যবধানে, টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ করতে হয়েছে ১-১ ড্র।

তবে এবার কাগজে-কলমে এগিয়ে থেকে জিম্বাবুয়ে গেলেও কাজটা যতটা সহজ ভাবা হচ্ছে ততটা হবেনা বলে আসছে টাইগার টিম ম্যানেজমেন্ট। এবার তাসকিনও সুর মেলালেন একই কথায়। দুইদিন আগে জিম্বাবুয়ে পৌঁছেছে টাইগারদের টেস্ট দল। দুইদিন অনুশীলন শেষে একমাত্র টেস্ট সামনে রেখে আগামীকাল (৩ জুন) খেলবে দুইদিনে প্রস্তুতি ম্যাচও।

আজ (২ জুন) বিসিবির পাঠানো এক ভিডিও বার্তায় তাসকিন বলেন, ‘অনুশীলন মা শা আল্লাহ ভালো হচ্ছে। বোলার, ব্যাটসম্যান সবার ভালোই প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। আমরা আগামীকাল প্র্যাকটিস ম্যাচও খেলবো। তো অনুশীলন ভিত্তিক আশা করি কোনো অভিযোগ থাকবে না ইন শা আল্লাহ।’

‘কিন্তু জিম্বাবুয়ের মাটিতে জিম্বাবুয়ের সাথে খেলাটা সহজ না। আমাদেরকে অনেক কঠিন কন্ডিশন ও কঠিন প্রতিপক্ষের বিপক্ষে খেলতে হবে। তো কোনো ম্যাচই তো সহজ না। এর মধ্যেই আমাদের সেরাটা দিয়ে বের হয়ে আসতে হবে।’

এদিকে নিজের প্রথম জিম্বাবুয়ে সফর নিয়ে রোমাঞ্চিত এই ডানহাতি পেসার যোগ করেন, ‘আসলে আমি খুবই এক্সাইটেড। খুবই ভালো লাগছে, প্রথমবারের মতো জিম্বাবুয়ে আসলাম। যদিও আমার অভিষেক হয়েছে ২০১৪-তে। কিন্তু এই ৭ বছরে কখনওই আমার জিম্বাবুয়েতে আসা হয়নি। প্রথমবারের মতো আসলাম। যদিও আমাদের বায়ো বাবলের মধ্যে যাচ্ছে। তবে সব সুযোগ সুবিধা মিলিয়ে আমি উপভোগ করছি। আমি রোমাঞ্চিত যে কখন খেলা শুরু হবে।’

সাম্প্রতিক সময়ে নিজের উন্নতি সম্পর্কে বলতে গিয়ে তাসকিন জানান, ‘আল্লাহ্‌র রহমতে মা শা আল্লাহ আগের চেয়ে ভালো হচ্ছে। কিন্তু এখনও উন্নতির জায়গা আছে। উন্নতি হচ্ছে মা শা আল্লাহ। তবে আমি আসলে মাঠের বাইরের প্রক্রিয়াটাই সবসময় ফলো করছি। ঐটাই আমার কন্ট্রোলে আছে শতভাগ দেয়ার।’

‘তো ঐটাই আমি দিয়ে যাচ্ছি। ইন শা আল্লাহ আল্লাহ যদি চায়, এভাবে যদি ইম্প্রুভ করতে পারি আরও, তাহলে ভবিষ্যতে আরও ভালো কিছু হবে এবং এ সিরিজ নিয়েও ভালো কিছু হওয়ার আশাবাদী আমি, ইন শা আল্লাহ।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

ভক্তদের উদ্দেশ্যে ব্রাভোর প্রশ্ন: ‘২০২৭ পর্যন্ত খেলা উচিত?’

Read Next

যেভাবে দেখা যাবে বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে সিরিজ

Total
1
Share