প্রয়োজন পড়লে কোচের ভূমিকা পালন করবেন নির্বাচক রাজ্জাক

প্রয়োজন পড়লে কোচের ভূমিকা পালন করবেন নির্বাচক রাজ্জাক
Vinkmag ad

বাংলাদেশ ক্রিকেটের স্পিন কিংবদন্তি মোহাম্মদ রফিক বাংলাদেশ দলের স্পিন বোলিং কোচ হবেন, ভক্তদের এমন চাওয়া দীর্ঘদিনের। সেটা আলোর মুখ দেখেনি, আদৌ তেমনটা হবে কিনা সেটা নিয়েও আছে সন্দেহ। রফিকের উত্তরসূরি আব্দুর রাজ্জাক যুক্ত হয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডে, সেটা অবশ্য নির্বাচক হিসাবে। তবে দরকার পড়লে সাকিব-তাইজুলদের তালিম দিতে চান সাবেক এই বাঁহাতি স্পিনার।

নির্বাচক হবার পর এই প্রথম টাইগারদের সফরসঙ্গী হয়েছেন রাজ্জাক। নতুন ভূমিকায় ভিন্ন রকম অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হওয়া রাজ্জাক জিম্বাবুয়েতে উপভোগ করছেন।

হারারে থেকে বিসিবির পাঠানো এক ভিডিও বার্তায় আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ‘নতুন রোল (নির্বাচক) অবশ্যই এটা আমার জন্য একটা ভিন্ন অভিজ্ঞতা। আর জিম্বাবুয়ের এই অ্যাটমোস্ফেয়ারটা আমার ভালো লাগে ক্রিকেটের জন্য। এখানের যে ওয়েদার, ওটা ভালো। উইকেটটা একটু কঠিন থাকে বিশেষত স্পিনারদের জন্য। তাছাড়া বাকি সবকিছু…সুন্দর ওয়েদার, অ্যাটমোস্ফেয়ার।’

‘আর ফ্যাসিলিটর কথা যদি বলেন, কিছু কম্প্রোমাইজ তো করতেই হয়। সবকিছু মিলিয়ে ভালো। এবার আসলে প্লেয়ার হিসেবে না অফিশিয়াল হিসেবে একটু ভিন্ন রকম লাগছে। এর আগে যতবারই এসেছি, প্র্যাক্টিস করেছি, কাজ করে চলে গিয়েছি। এবার দেখা (ক্রিকেটারদের পারফরম্যান্স) কাজ, একটু তো ডিফারেন্ট আছেই দুইটার মধ্যে।’

জিম্বাবুয়ের কন্ডিশন, উইকেটের চরিত্র বিবেচনায় এখানে পেসারদেরই সুবিধা পাবার কথা। তবে রাজ্জাক বলছেন স্পিনাররা ভালো করতেই পারবে না এমন ভাবনা নিয়ে মাঠে নামা উচিত হবে না।

রাজ্জাক বলেন, ‘এখানে (জিম্বাবুয়েতে) নিশ্চিতভাবেই পেসাররা ডোমিনেট করে। যেমন বাংলাদেশে বা সাব কন্টিনেন্টে খেলা হলে স্পিনারদের ডোমিনেট করার সুযোগ থাকে। এখানে আসলে পেস বোলাররা ডোমিনেট করে খুব স্বাভাবিকভাবে। কিন্তু স্পিনারদের কিন্তু এখানে ভাল রোল প্লে করতে হয়। কিছু কিছু ক্ষেত্রে থাকে রান আটকে রাখা, কিছু বেক থ্রু এনে দেওয়া যদি কখনো পেস বোলাররা স্ট্রাগল করে।’

‘আর এখানে যে স্পিন হবে না বা হয় না এমন চিন্তা করে নেওয়া আমি মনে করি না ভালো কোন কিছু। কারণ প্লেয়াররা খেলবে, আমি চাই না তাদের মনে ঢুকে যাক যে এটা স্পিন কন্ডিশন না। কারণ যেকোনো প্লেয়ারকে সব কন্ডিশনে খেলতে হবে, অ্যাডজাস্ট করতে হবে। যে যত দ্রুত অ্যাডজাস্ট করতে পারবে সে তত ভালো খেলোয়াড়।’

জিম্বাবুয়ে সফরেই বাংলাদেশ দলের স্পিন বোলিং কোচ হিসাবে যোগ দিয়েছেন লঙ্কান কিংবদন্তি রঙ্গনা হেরাথ। তিনি তো তাইজুল-নাইমদের তালিম দিবেনই, দরকার পড়লে রাজ্জাকও নিজেকে অ্যাভেইলেবল রাখছেন।

৩৯ বছর বয়সী রাজ্জাক বলেন, ‘অবশ্যই হেরাথ এসেছে, ওতো অনেক অভিজ্ঞ প্লেয়ার, বিগ স্টার ছিল যখন প্লেয়ার ছিল। আমি নিশ্চিত সে অনেক অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে পারবে আমাদের প্লেয়ারদের সঙ্গে। আর আমার ব্যাপারটা হচ্ছে হেরাথ তো আছে তাও ওদের (স্পিনারদের) যদি কখনো প্রয়োজন হয় আমি সবসময় পাশে আছি।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

জিম্বাবুয়েতে জিম্বাবুয়েকে ভিন্নভাবে ট্রিট করতে বলছেন রাজ্জাক

Read Next

চুক্তিতে স্বাক্ষর না করে দলের বাইরে ‘৫’ লঙ্কান ক্রিকেটার

Total
4
Share